User Login | | নীতিমালা | 24 Sep 2017 : Sylhet, Bangladesh :
    সংবাদ : বিশ্বের সাথে তাল মিলিয়ে তথ্য প্রযুক্তিতে 
বাংলাদেশ অনেক দূর এগিয়ে গেছে
--ড. মুহম্মদ জাফর ইকবাল  সংবাদ : বিশ্বের সাথে তাল মিলিয়ে তথ্য প্রযুক্তিতে 
বাংলাদেশ অনেক দূর এগিয়ে গেছে
--ড. মুহম্মদ জাফর ইকবাল  সংবাদ : দিনব্যাপী স্নানঘাটের বিভিন্ন গ্রাম পরিদর্শনকালে এমপি কেয়া চৌধুরী
  সংবাদ : রোহিঙ্গা মুসলমানদের পাশে 
স্টুডেন্ট রাইটস বাংলাদেশ  সংবাদ : রোহিঙ্গাদের জন্য ত্রাণ নিয়ে গেলেন কাউন্সিলর আজাদ   সংবাদ : সন্ত্রাসী হামলায় গুরুত্বর আহত স্বাগত চৌধুরীর
পাশে নগর বিএনপির সম্পাদক বি. সেলিম  সংবাদ : কানাইঘাট বুরহান উদ্দিনে প্রভাতী
সংঘের বৃত্তি প্রদান ও সংবর্ধনা  সংবাদ : সত্যিকার মানুষ হওয়ার 
জন্য শিক্ষা অর্জন করতে হবে--অধ্যক্ষ কবি কালাম আজাদ  সংবাদ : সিলেট বিএমএ  সংবাদ : মৌলভীবাজারের জুড়ীতে সজিবনী’র উদ্যেগে  প্রায় ৮শ‘ মানুষকে চিকিৎসাসেবা প্রদান  সংবাদ : মৌলভীবাজারের জুড়ীতে সজিবনী’র উদ্যেগে  প্রায় ৮শ‘ মানুষকে চিকিৎসাসেবা প্রদান  সংবাদ : মৌলভীবাজারের জুড়ীতে সজিবনী’র উদ্যেগে  প্রায় ৮শ‘ মানুষকে চিকিৎসাসেবা প্রদান  সংবাদ : "বিএনপি নেতা আব্দুর রহমান এর ভাইয়ের মৃত্যুতে সিলেট জেলা বিএনপি'র শোক   সংবাদ : সিটি কর্পোরেশনের ত্রাণ তহবিলে রোহিঙ্গাদের
সাহায্য দেওয়ার আহবান মেয়র আরিফের
  সংবাদ : রোহিঙ্গা গণহত্যা বন্ধের প্রতিবাদে দিশারী যুব সংঘের মানববন্ধন  সংবাদ : রোহিঙ্গা মুসলিম গণহত্যা ও নির্যাতনের প্রতিবাদে
টুকেরবাজারে বিক্ষোভ সমাবেশ ও দোয়া  সংবাদ : রোহিঙ্গাদের জন্য ইসলামী আন্দোলনের চিকিৎসা সেবা সহ বিভিন্ন কার্যক্রম অব্যাহত  সংবাদ : সিলেট জেলা ট্রান্সপোর্ট মালিক গ্রুপের বার্ষিক সাধারণ সভা  সংবাদ : রোহিঙ্গা মুসলিম গনহত্যা ও নির্যাতনের প্রতিবাদে
সিলেট জেলা স্বর্ণ শিল্পী শ্রমিক ইউনিয়নের মানববন্ধন
  সংবাদ : দেশ বিদেশ ভ্রমন ও বিদেশে উচ্চশিক্ষা বিষয়ক সেমিনার
sylhetexpress.com এর picture scroll bar এর code. এই কোড যেকোন website এ use করা যাবে।
| সিলেট | মৌলভীবাজার | হবিগঞ্জ | সুনামগঞ্জ | বিশ্ব | লেখালেখি | নারী অঙ্গন | ছবি গ্যালারী | রঙের বাড়ই ব্লগ |


.: 18 May 2015 : :. (2518 বার পঠিত)

আন্দোলন সংগ্রামে সিলেটের মানুষ


SylhetSyfdia.com

সেলিম আউয়াল: সিলেট অঞ্চলের মানুষ ভাষা ও সাহিত্য চর্চায় গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছেন। এ অঞ্চলের মানুষ জ্ঞান চর্চায় যেমন ছিলেন নিবেদিত, তেমনি সবসময়ই গুণীজনকে করেছেন সমাদর। ন্যায় প্রতিষ্ঠায় যেমন আত্মনিবেদিত, তেমনি অন্যায়ের প্রতিবাদে-আন্দোলন সংগ্রামে সবসময় রয়েছেন অগ্রণী ভ’মিকায়। সিলেটের মানুষের সংগ্রামের ইতিহাস উজ্জীবীত করবে যে কোন সচেতন মানুষকে।
১৭৫৭ সালে পলাশীর আমের বাগানে ডুবে গেলো বাংলার স্বাধীনতার লাল সূর্য। তারপর ১৮৩১ সালে সৈয়দ নিসার আলী (তিতুমীর) নারিকেলবাড়িয়ায় বাঁশের কেল্ø¬া বানিয়ে দাঁড়িয়েছিলেন ইংরেজের লোহার কামানের সামনে। জানতেন আধুনিক অস্ত্রের সামনে বাঁশের কেলøা বানিয়ে হয়তো টেকা যাবে না, তবুও তো একজনকে দাঁড়াতে হবে। বীর তিতুমীর তাই জীবন বাজি রেখে দাড়িয়েছিলেন ইংরেজের কামানের মুখোমুখি, বরণ করেছিলেন শাহাদাত। এটি আমাদের স্বাধীনতার সংগ্রামের একটি উজ্জ্বল অধ্যায়। কিন্তু তিতুমীরের বিদ্রোহের ৪৯ বছর আগেই সিলেটে সৈয়দ মোহাম্মদ হাদী ওরফে হাদা মিয়া এবং সৈয়দ মোহাম্মদ মেহেদী ওরফে মাদা মিয়া নামের দুই সহোদর নাঙ্গা তলোয়ার হাতে এক ঝাক মানুষ নিয়ে দাঁড়িয়েছিলেন ইংরেজের বিরুদ্ধে। সেটি ছিলো ১৭৮২ খ্রিস্টাব্দের মহররম মাস। সিলেটের শাহী ঈদগাহ ময়দানে হাদা মিয়া মাদা মিয়া তার শত শত মুরিদানকে সমবেত হয়েছিলেন। সেই সময়ে সিলেটে ইংরেজ শাসনকর্তা রবার্ট লিন্ডসে। খবর পেয়ে লিন্ডসে তার কিছু সৈন্য নিয়ে শাহী ঈদগাহ ময়দানে গিয়ে সমবেত হন। তাদের সাথে ছিলো কার্তুজ ভর্তি পি¯Íল আর তলোয়ার। লিন্ডসে হাদামিয়া আর মাদা মিয়াকে তাদের হাতের তলোয়ার মাটিতে ফেলে দিতে বলেছিলেন। কিন্তু বিপ্লবী সেই দুই ভাই আপোস করেননি। সাহসী কন্ঠে উচ্চারণ করেছিলেন‘আজ ইংরেজ রাজত্বের শেষদিন। আজ মরবার না হয় মারিবার দিন।’ সেই সংগ্রামে ইংরেজের গুলিতে শাহী ঈদগাহর সবুজ মাঠেই শাহাদাত বরণ করেছিলেন হাদা মিয়া আর মাদা মিয়া। ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানীর দেওয়ানী লাভের ১৭ বছরের মধ্যেই ঘটনাটি ঘটেছিলো।
সিলেট অঞ্চলে এইভাবে বিভিন্ন সময় সিলেটের মানুষ দাড়িয়েছিলো ইংরেজদের বিরুদ্ধে। ইংরেজদের সাথে লড়াই করার মতো নিজেদের শক্তি সামর্থ আছে সেটা কখনো তারা ভাবেনি। শুধু ভেবেছে, জেহাদের মানে হলো বাঁচতে শেখা। শ্রীমঙ্গল অঞ্চলে বালিশিরার কুকীরাও বিদ্রোহ ঘোষণা করে। দীর্ঘস্থায়ী খন্ড যুদ্ধের পর কুকী রাজা আলচুকা ইংরেজদের হাতে ধরা পড়েন। তাকে নিয়ে যাওয়া হয় ঢাকায়। রাজ বিদ্রোহী হিসেবে তাকে যাবজ্জীবন কারাদন্ড দেয়া হয়েছিলো।
১৭৮৩ খ্রিস্টাব্দে খাসিয়া বিদ্রোহ সংঘটিত হয়। ১৭৬৩ থেকে ১৮০০খ্রিস্টাব্দ পর্যন্ত ফকির সন্ন্যাসী আন্দোলন সংঘটিত হয়। ১৭৮৬ খ্রিস্টাব্দে শ্রী রাধারাম ইংরেজ আধিপত্য অস্বীকার করে নিজেকে স্বাধীন ঘোষনা করে এক আঞ্চলিক স্বাধীন রাজ্য স্থাপন করেন। ইংরেজ সৈন্যরা সে বিদ্রোহ দমন করে এবং রাধারামকে গ্রেফতার করে। সিলেটে নিয়ে আসার সময় রাস্তায় রাধা রাম আত্মহত্যা করেন (এটা প্রাচীনকালের ক্রস ফায়ার হতে পারে)।
লাউড় ও জয়ন্তিয়া রাজ্যের খাসিয়া দলপতিরা ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানীর আনুগত্য অস্বীকার করেন। এজন্যে দীর্ঘদিন খাসিয়াদের সাথে খন্ড খন্ড বিদ্রোহ ও যুদ্ধ সংঘটিত হয়। ১৮২৬ খ্রিস্টাব্দে কুকিরা ইংরেজদের বিরুদ্ধে বিদ্রোহ করেন। পান্ডুয়ায় খাসিয়ারা বিদ্রোহ করে ১৮২৭ খ্রিস্টাব্দে। ১৮৩৫ খৃস্টাব্দে জয়ন্তিয়া রাজ্যটি ইংরেজরা দখল করে এবং স্বাধীন জয়ন্তিয়া রাজ্যের রাজা ইন্দ্র সিংকে সিলেটে এনে মুরারী চান্দের বাড়ীতে বন্দী করে রাখা হয়।
১৮৫৭ সালে সিপাহী বিদ্রোহের সূচনা হয়। ১৮৫৭ খ্রিস্টাব্দের ১৮ নভেম্বর রাতে চট্টগ্রামে অবস্থানরত ৩৪ নম্বর দেশীয় পদাতিক বাহিনী বিদ্রোহ করে। কারাগার ভেঙ্গে কয়েদীদের মুক্তকরণ, অস্ত্রাগার ও কোষাগার লুন্ঠন এবং সৈন্যদের ব্যারাকে অগ্নিসংযোগ ছিলো বিদ্রোহী সিপাহিদের তৎপরতার প্রধান বৈশিষ্ট। সিপাহীরা ১৯ নভেম্বর শেষরাতে চট্টগ্রাম ছেড়ে সিলেটের পাহাড়ী পথ বেয়ে মনিপুরের পথে পা বাড়ায়। এ সময় সিলেটের কালেক্টর ছিলেন আর. ও. হেইড । চট্টগ্রামের বিদ্রোহীরা কুমিল্লা হয়ে সিলেট আসেন। তারা পৃথ্বিমপাশার জমিদার গৌছ আলী খাঁর কাছ থেকে রসদ সংগ্রহ করেন। লাতুতে বিদ্রোহী সৈন্যরা কেল্লা স্থাপন করেন। বিদ্রোহ ঠেকাবার জন্যে ১৮৫৭ খ্রিস্টাব্দের ১৪ ডিসেম্বর সিলেট থেকে মেজর বাং একদল সৈন্য নিয়ে প্রতাপগড়ের পথে যাত্রা করেন। সিলেট থেকে প্রতাপগড়ের দূরত্ব ৮০ কিলোমিটার। প্রায় ৩৮ ঘন্টা পথ চলার পর ১৬ ডিসেম্বর তারা প্রতাপগড় পৌছেন। কিন্তু বিদ্রোহী সৈন্যরা গতিপথ পরিবর্তনের মাধ্যমে প্রতাপগড় থেকে ৩৮ মাইল দূরে চলে যায়। পরের দিন সকালের দিকে তাদের লাতু পৌছার সম্ভাবনা থাকে। তখন কোম্পানী কর্তৃপক্ষ সিদ্ধান্ত নিয়ে রাতের এক অভিযানে সৈন্যসহ লাতু পৌছার চেষ্টা করেন। বর্তমান মৌলভীবাজার জেলার বড়লেখা উপজেলার লাতু থানার সীমান্তে শাহবাজপুর পরগণায় করিমপুরে ছিলো বিদ্রোহী সিপাহীদের অবস্থানস্থল। ১৮৫৭ খ্রিস্টাব্দের ১৯ ডিসেম্বর লাতু বাজারের কাছে ইংরেজ সৈন্যরা বিদ্রোহী সেনাদের মুখোমুখি হয়। শুরু হয় লড়াই। ইংরেজ সেনাধ্যক্ষ মেজর বাংসহ ৫জন সৈন্য বিপ্লবীদের হাতে এই যুদ্ধে নিহত হন। এর পর পরই ইংরেজ বাহিনীর ভারতীয় সুবেদার অযোধ্যা সিংহ নেতৃত্ব গ্রহণ করলে যুদ্ধের মোড় ঘুরে যায়। বিপ্লবীরা ২৬ জন শহীদ সহযোদ্ধার লাশ এবং কয়েকজন আহত সহযোদ্ধাকে যুদ্ধের ময়দানে রেখে কাছাড়ের জঙ্গলের দিকে চলে যায়। এই যুদ্ধ লাতুর লড়াই নামে খ্যাত। অবশেষে বিদ্রোহী সৈন্যদের ছয়জনকে যুদ্ধের ময়দান থেকে বন্দী করে সিলেট ও ঢাকায় পাঠানো হয়। সিলেটের কোর্ট প্রাঙ্গণের পাশের গোবিন্দ চরণ পার্কে (বর্তমান হাছান মার্কেট) গাছে ঝুলিয়ে ছয়জন বিদ্রোহী সৈন্যকে প্রকাশ্যে ফাঁসি দেয়া হয়। বিদ্রোহী সৈন্যদের সহায়তা করার অভিযোগে অনেক বিশিষ্ট ব্যক্তিকে আটক করা হয়েছিলো। এরমধ্যে পৃথ্বিম পাশার জমিদার সৈয়দ গৌছ আলী খান ছিলেন একজন। লাতুর যুদ্ধের পর সিলেট ব্যাটালিয়নের সৈন্যদের একটি দল প্রধান সেনানিবাসে ফিরে যায়। অন্যদিকে গঙ্গারাম ভিস্তির নেতৃত্বে ১৬ জন সৈন্য পালিয়ে যাওয়া বিদ্রোহী সিপাহীদেরকে ধাওয়া করে। গভীর জঙ্গলে এই সৈন্যদেরা ১০ জন বিদ্রোহী সিপাহীকে আক্রমণ করে ৮ জনকে হত্যা করে। বিদ্রোহী সিপাহিরা শেষ পর্যন্ত পূর্ব দিকে যাত্রা করে ২৩ ডিসেম্বর কাছাড় পৌছে, কিন্তু সেখানেও লেফটেন্যান্ট রস-এর নেতৃত্বে সিলেট লাইট ইনফ্যান্ট্রির সৈন্যদলের আক্রমণে বিভ্রান্ত হয়ে গভীর জঙ্গলে পালিয়ে যায়।
সিলেটের মুসলিম বুদ্ধিজীবী তথা মুসলিম সমাজের সাথে উত্তর-পশ্চিম তথা ভারতের এক কেন্দ্র থেকে অন্য কেন্দ্রের যোগাযোগ ছিলো। সম্ভবত: এসব কারনে সিলেট শহরের সাঈদ বখত মজমাদারের ৬টি কামান ব্রিটিশ সরকার সীজ করে নেয়। এভাবে দিনাজপুরের রাজার কামানও ব্রিটিশ সরকার সীজ করার চেষ্টা করেছিলো। তাদের ধারনা ছিলো বিদ্রোহ হলে এসব কামান তাদের বিরুদ্ধে ব্যবহার করা হতে পারে। সাঈদ বখত এদেশকে ‘দারুল হরব’ মনে করতেন বলে প্রতীয়মান হয়। কারন ১৮৫৯ খ্রিস্টাব্দে তিনি সপরিবারে মক্কায় হিজরত করেন।
সিপাহী বিপ্লবের সাথে জৈন্তার রাজা এবং মনিপুরের রাজারাও সম্পৃক্ত ছিলেন। চট্টগ্রামের চাকমাদের মতো সিলেটের কুকীরাও এদের সমর্থক ছিলো। ঢাকা ও চট্টগ্রামের অভ্যূত্থানের পর বাংলাদেশের একমাত্র সিলেট জেলাতেই ব্যাপক সংখ্যক দলত্যাগী ও বিদ্রোহী সিপাহীরা জমায়েত হয়েছিলো। কিন্তু ইংরেজ বাহিনীর শক্তি বৃদ্ধি ও তৎপরতার জন্যে এখানেও বিস্ফোরণ ঘটানো সম্ভব হয়নি। ফলে এদের অনেকেই সিলেট অঞ্চলে ধরা পড়ে। কেউ কেউ সিলেটের বিভিন্ন স্থানে লুকিয়ে আশ্রয় নেন এবং পরবর্তীতে স্থায়ীভাবে বসবাস করতে থাকেন।
সিপাহী বিদ্রোহ বা বিপ্লবের সময় স্থানীয় ইউরোপীয় নাগরিকদের পরামর্শে সিলেটের ইংরেজ ম্যাজিস্ট্রেট আর. ও. হেইড তার স্ত্রীকে ভয়ে চেরাপঞ্জিতে পাঠিয়ে দেন। এই একটি ঘটনা থেকে বুঝা যায় সিলেটে তখন কি পরিমান উত্তেজনা ছিলো। প্রকৃতপক্ষে কোন কোন সময় কুলিমজুর বা নৌকার মাঝি পর্যন্ত ইংরেজ প্রশাসন বা তাদের লোকজনকে সহায়তা করতো না।
১৯২০সালে মহাত্মা গান্ধীর নেতৃত্বে অসহযোগ আন্দোলন এবং আলী ভ্রাতা নামে খ্যাত মাওলানা মোহাম্মদ আলী ও মাওলানা শওকত আলীর নেতৃত্বে গড়ে ওঠা খেলাফত আন্দোলনের প্রবল ঢেউ সিলেটেও এসে দোলা দেয়। দুটো আন্দোলন এক হয়ে দেশে হিন্দু-মুসলমানের এক অভূতপূর্ব সা¤প্রদায়িক ঐক্য প্রতিষ্ঠিত হয়। মৌলভীবাজার শহরে আসাম প্রাদেশিক খেলাফত আন্দোলনের অধিবেশন হয়। বাসন্তী দেবীকে সাথে নিয়ে দেশবন্ধু চিত্তরঞ্জন সেই সম্মেলনে যোগ দেন। দেশবন্ধু সিলেটেও এসেছিলেন। তার সিলেটে আসা জনজীবনে প্রবল সাড়া জাগায়। ১৯২১-এ আলী ভ্রাতৃদ্বয় শওকত আলী ও মোহাম্মদ আলীসহ মহাত্মা গান্ধী সিলেটে এসে শাহী ঈদগাহে লক্ষ জনতার সমাবেশে বক্তব্য রাখেন। তাদের সফর এবং সেই সভাটি সিলেটের মানুষকে খুব আলোড়িত করে। জেগে ওঠে সিলেটের মানুষ। বিশিষ্ট আইনজীবীরা আদালত বর্জন করে অসহযোগ ও খিলাফত আন্দোলনে আত্মনিয়োগ করেন। বিলাতী কাপড়ের বর্জনোৎসব শুরু হয়। খেলাফত আন্দোলনে যোগ দিয়ে সিলেট বিভাগের অসংখ্য নেতাকর্মী কারাবরণও করেছিলেন।
খেলাফত আন্দোলনে আলেমরা জড়িয়ে পড়লে ধর্মপ্রাণ মুসলমানরা খেলাফত আন্দোলনে অংশ গ্রহণকে ধর্মীয় কর্তব্য হিসেবে গণ্য করতে থাকেন। অনেক মহিলারা তাদের গায়ের সোনার অলংকার পর্যন্ত খেলাফত আন্দোলনের তহবিলে দান করেছিলেন। সিলেট নগরীর মানিক পীরের টিলার বিপরীত দিকের খেলাফত টিলা। এখন যেখানে লায়ন শিশু হাসপাতাল, জালালাবাদ প্রতিবন্ধী হাসপাতাল রয়েছে। এটি একসময় খেলাফত টিলা নামে পরিচিত ছিলো। ১৯২১ খ্রিস্টাব্দের ৪ মে সম্পাদিত একটি কবুলতনামা থেকে জানা যায় মানিকপীর রোড নিবাসী নকি মিয়া, আবদুল মজিদ, সোনা বিবি, মোহাম্মদ সুলতান, আবদুল আজিজ, হাসিবা বানু, আসিবা বানু ও আবদুর রহমান আঞ্জুমানে ইসলামিয়ার নামে প্রায় দু কেদার ভূমি দান করেছিলেন। আবদুলøাহ বিএলসহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ সেই টিলায় একটি বিল্ডিং নির্মাণ করেন। খেলাফত আন্দোলনের সময় সেই বিল্ডিংটি ব্যবহার করা হয়। এই বিল্ডিংটি খেলাফত বিল্ডিং নামে সিলেটে পরিচিতি লাভ করে। সেই উত্তাল দিনগুলোতে সিলেটের গ্রামে গঞ্জে স্লোগান ধ্বনিত হতো ‘জাগো জাগো মুসলমান/ লওরে জয় নিশান/ দ্বীনের কাজে হওরে আগুয়ান।’ খেলাফত বিল্ডিংয়ের ভ’মি দান করেছিলেন কয়েকজন সাধারণ মানুষ।
১৯২১ খ্রিস্টাব্দে সিলেটের চা বাগানের চা শ্রমিকরা দলে দলে চা বাগান ছেড়ে তাদের পিতৃভূমিতে যাবার জন্যে অতি কষ্টে চাঁদপুর গিয়ে স্টিমারে উঠার সময় আসাম গুর্খা রাইফেলস-এর সৈন্যদের গুলিতে অনেক চা শ্রমিক নিহত হন। খুব অল্প সংখ্যক তাদের দেশে গেলেও বাকী সবাই চা বাগানে ফিরে আসে এবং তাদেরকে কিছু সুযোগ সুবিধে দেয়া হয়। চা শ্রমিকদের এ আন্দোলন ‘মুলুক চলো’ আন্দোলন নামে পরিচিত।
১৯২২ খ্রিস্টাব্দের ২৩ মার্চ কানাইঘাটে একটি মাদ্রাসার বার্ষিক জলসা বা ধর্মীয় সমাবেশের আয়োজন করা হয়। সরকার ১৪৪ ধারা জারী করে সেই ধর্মীয় সমাবেশ নিষিদ্ধ করে দেয়। ঘৃণা ক্ষোভে ফেটে পড়ে সেই এলাকার মানুষ। ইসলামী সমাবেশে ১৪৪ ধারা জারীকে নিজেদের হৃদয়ে ছুরি মারার মতো মনে করেন তারা। এজন্যে তারা ১৪৪ ধারা ভাঙ্গার সিদ্ধান্ত নেন। মাওলানা ইব্রাহিম আলীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সমাবেশ স্থলে উপস্থিত হয়েছিলেন সুরমা ভ্যালীর সেই সময়ের কমিশনার জে ই ওয়েবস্টার। জনতা লাঠিসোটা নিয়ে কমিশনারকে আক্রমণ করে। পুলিশ গুলি চালায়। নিহত হন ৬জন এবং আহত হন ৩৮জন। এ ঘটনাটি কানাইঘাটের লড়াই নামে পরিচিত। এ ঘটনায় শাহাদাত বরণকারীরা হচ্ছেন মৌলভী আবদুছ ছালাম (বায়মপুর), মো. মুসা মিয়া (দুর্লভপুর), আবদুল মজিদ (নিজবাউর বাগ), হাজী আজিজুর রহমান (উজানীপাড়া), মো. জহুর আলী (সরদারীপাড়া), এবং ইয়াসিন মিয়া (ছোটদেশ চটিগ্রাম)। কমিশনার ওয়েবস্টার বংকবিহারী দাস নামক এক পুলিশ কনস্টেবলকে সভার জনতার উপর গুলী করার আদেশ দিলে বংকবিহারী তার দেশের মানুষের উপর গুলী চালাতে অস্বীকার করেন। পরে অশ্বারোহী ওয়েবস্টারের রিভলবারের গুলী বংকবিহারীর বুক ভেদ করে। কানাইঘাটের এই ঘটনা পুরো দেশে প্রবল উত্তেজনার সঞ্চার করে।
১৯২২ খ্রিস্টাব্দের ৬ এপ্রিল গোলাপগঞ্জ থানার বড় দারোগা আবদুল হামিদ আখন্দ তার সহকর্মী দারোগা আজমল আলীসহ গুর্খা ফৌজ নিয়ে উপজেলার মাইজভাগ গ্রামের মগফুর আলী আমিনের বাড়িতে ঢুকে ঘর দরজা ভাংচুর করে। বাড়ির পর্দানশীন মহিলাদেরকে হয়রানী এবং অনেক মালামাল আত্মসাত করে নিয়ে যায়। তারই নির্দেশে গুর্খা সৈন্যরা বই পুস্তক ধর্মীয় কিতাব এমনকি পবিত্র কোরআন শরীফও ছিন্নভিন্ন করে ফেলে। মগফুর আলী ছেড়া কোরআন শরীফ নিয়ে সিলেট শহরে আসেন। কুদরত উল্লাহ মসজিদে এসে মুসল্লিদেরকে কোরআন শরীফের ছেড়া টুকরোগুলো দেখান। সিলেটের জনশক্তি পত্রিকায় ছেড়া কোরআনের ছবি নিউজও ছাপা হয়। এইসব সংবাদ পত্রিকায় প্রকাশ করায় পত্রিকার সম্পাদক সতীশ চন্দ্র দেব ও মুদ্রাকর অনাথবন্ধু দাস রাজদ্রোহের অভিযোগে অভিযুক্ত হন। এ ঘটনায় মামলা হয়েছিলো। সিলেট জেলা কোর্টে চার বছর মামলাটি চলে। আসামীরা খালাস পায়। আপীলে জনশক্তি কর্তৃপক্ষও অব্যাহতি পান। এসব ঘটনা খেলাফত আন্দোলনের প্রতিক্রিয়া হিসেবে গণ্য হতে পারে, যা ইংরেজ বিরোধী জনমত গঠনে এবং স্বাধীনতা আন্দোলনে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ প্রভাব বিস্তার করে।
সিলেট অঞ্চলে মানুষের অধিকার আদায়ের সংগ্রামে ঐতিহাসিক নানকার বিদ্রোহ একটি ব্যতিক্রমধর্মী সংযোজন। আমাদের দেশে জমিদাররা নিজেদের স্বার্থ ও হীন উদ্দেশ্য সাধনের জন্যে গরীব কৃষকদেরকে চাষের উপযোগী কিছু কিছু জমি দিতেন এবং তাদেরই চৌহদ্দির মধ্যে বসবাসের সুযোগ করে দিতেন। এই সব কৃষক ‘নানকার’ প্রজা বলে পরিচিত ছিলেন। নানকার প্রজাদের নিজেদের বলতে কিছুই ছিলো না। জমিদরাদের ফাই ফরমাশ খাটা, যে কোনো হুকুম তামিল করাই ছিল তাদের কাজ। যদিও নানকার পদ্ধতিটি ছিলো মুগল আমলের ভূমি প্রশাসন এবং ভূ প্রথারই ধারাবাহিকতা, বেশির ভাগ ক্ষেত্রেই প্রথাটি ছিলো নিকৃষ্ট সামন্তবাদী। এই প্রথার বিরুদ্ধে ১৯৩৭ থেকে ক্ষোভ ও বিদ্রোহের মনোভাব দানা বাঁধতে থাকে। গড়ে উঠে আন্দোলন।
১৯৩৮ খ্রিস্টাব্দে আসামে তখন স্যার সৈয়দ মোহাম্মদ সাদ উল্লা প্রধানমন্ত্রী। তিনি সিলেট সফরে এসে সিলেট সার্কিট হাউসে অবস্থান করছিলেন। খবর পেয়ে রণকেলী, ফুলবাড়ি, কানিশাইল এলাকার শত শত কৃষক নানকার নারী পুরুষ আবদুল হামিদ চৌধুরী সোনা মিয়ার নেতৃত্বে দিনের বেলা হারিকেন জ্বালিয়ে ১০/১২ মাইল পথ হেটে সিলেট সার্কিট হাউসে আসেন। প্রধানমন্ত্রী অবাক বিস্ময়ে সোনা মিয়া চৌধুরীকে জিগ্যেস করলেনÑ‘আপনি আমার বিরুদ্ধে অভিযান চালিয়ে আসলেন?’ সাথে সাথে সোনা মিয়া বলে উঠলেন ‘আপনি যে সমস্ত কিছু অন্ধকার করে ফেলেছেন।’ অর্থাৎ মুসলিম লীগ সরকার প্রজাসাধারণের সুখসুবিধের কথা না ভেবে শুধু জমিদারদের স্বার্থ রক্ষার চেষ্টা করছেন।
নানকার আন্দোলন পর্যায়ক্রমে ১৯৪৭-এর পর জোরদার হয়। ১৯৪৯-এর ১৮ আগস্ট বিয়ানীবাজারের উলুউরি ও সানেশ্বর গ্রামের মাঝখানে সুনাই নদীর তীরে পুলিশ ও ইপিআর এবং নানকাররা মুখোমুখি হয়। পুলিশ অফিসার জনতাকে বেআইনী ঘোষণা করে হাতের লাঠি ফেলে দিতে বলেন। নানকাররা পুলিশের হাতে অস্ত্র থাকতে লাঠি ফেলবে না জানালে পুলিশ সমাবেশে গুলি চালায়। সাথে সাথে মারা যান পবিত্র কুমার দাস, অমূল্য কুমার দাস, ব্রজনাথ দাস, কুটুমনি দাস ও প্রসন্ন কুমার দাস। আহত হন আরো অনেকে। নানকার বিদ্রোহ বিগত শতাব্দীর দ্বিতীয় থেকে পঞ্চম দশক পর্যন্ত বাইরের কোন ধরনের রাজনৈতিক সমর্থন ছাড়াই সক্রিয় ছিলো। নানকার বিদ্রোহের ভেতর আরো ছোট ছোট কিছু বিদ্রোহ ঘটেছিলো। এগুলোর মধ্যে অন্যতম ছিলো সুখাই বিদ্রোহ (১৯২২-২৩), কুলাউড়া বিদ্রোহ (১৯৩১-৩২), ভানুবিল বিদ্রোহ (১৯৩৩-৩৫), মহাকাল বিদ্রোহ (১৯৪৬), কণা শালেশ্বর (১৯৪৬) এবং লাউতা বাহাদুরপুর বিদ্রোহ (১৯৪৭)। এর বাইরেও অসংখ্য স্থানীয় এবং ক্ষুদ্রতর বিদ্রোহ সংঘটিত হয়েছিলো। যাদের সম্মিলিত অভিঘাতের ফলে ১৯৫০ খ্রিস্টাব্দে নানকার প্রথা আইনের মাধ্যমে বিলুপ্ত হয়।
আন্দোলন-সংগ্রামের ঐতিহ্যের সিঁড়ি বেয়ে সিলেটের মানুষ জড়িয়ে পড়েন ভাষা আন্দোলনে। ভাষা আন্দোলনের রক্তাক্ত সিঁড়ি বেয়েই সংঘটিত হয় আমাদের মহান মুক্তিযুদ্ধ। ১৯৭১ খ্রিস্টাব্দের ২৫ মার্চ থেকে ১৬ ডিসেম্বর এই নয় মাস মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস। স্বাধীনতা সংগ্রামের ইতিহাস। এ পর্যায়েও সিলেটের মানুষের তাৎপর্যপূর্ণ ভূমিকা রয়েছে।
বাংলাদেশের স্বাধীনতা সংগ্রামে বিভিন্ন পর্যায়ে সিলেটের সংগ্রামী মানুষ জেল জুলুম হত্যা নির্যাতনের শিকার হয়েছেন।-৭৩ জেনারেল মুহম্মদ আতাউল গণি ওসমানী ছিলেন মুক্তিযুদ্ধের সর্বাধিনায়ক। লে. কর্ণেল আবদুর রব এমসিএ ছিলেন মুক্তিযুদ্ধের চীফ অব স্টাফ। দেওয়ান ফরিদ গাজী এমসিএ ছিলেন মুজিব নগর প্রশাসনের ‘নর্থ ইস্ট’ জোনের চেয়ারম্যান। তিনি বৃহত্তর সিলেটের ৪ ও ৫ নং সেক্টরের রাজনৈতিক উপদেষ্টা এবং উত্তর পূর্ব জোন-১-এর প্রশাসকের দায়িত্ব পালন করেন। আবদুস সামাদ আজাদ এমসিএ বাংলাদেশের পক্ষে ভ্রাম্যমান প্রতিনিধি হিসেবে জাতিসংঘ ও বুদাপেস্ট শান্তি সম্মেলনে অংশগ্রহণ করেন।
বৌদ্ধ ভারত থেকে হিন্দু ভারত। হিন্দু ভারত থেকে মুসলিম ভারত। মুসলিম ভারত থেকে বৃটিশ ভারত। ব্রিটিশ ভারত থেকে পাকিস্তান। ১৯৪৭ খ্রিস্টাব্দে পাকিস্তানের সৃষ্টি। দ্বি-জাতি তত্ত্বের ভিত্তিতে ইন্ডিপেন্ডেন্স এ্যাক্ট। ১৯৪৭ খ্রিস্টাব্দের আইন। এই আইনেই পাকিস্তানের সৃষ্টি। এই আইনেই আছে সিলেটের বিশেষ অবস্থান। সিলেটের বিশেষ স্ট্যাটাস বা মর্যাদা। এই আইনেই রেফারেন্ডাম। সিলেটের রেফারেন্ডানম। ১৯৪৭ খ্রিস্টাব্দের রেফারেন্ডামের মাধ্যমেই সিলেট যোগ দেয় পাকিস্তানে। সেই সময়েই সিলেটবাসীর দাবী সিলেটের বিশেষ স্ট্যাটাস চাই। কেন্দ্র শাসিত স্বতন্ত্র স্ট্যাটাস চাই। সায় দিলেন পাকিস্তানী নেতৃবৃন্দ, পরে ভুলে গেলেন।
১৯৬৯ খ্রিস্টাব্দে শুরু হলো জালালাবাদ বিভাগ আন্দোলন। সিলেট বিভাগ আন্দোলন। সিলেট বিভাগ বাস্তবায়নের জন্যে বৃহত্তর সিলেট ও ঢাকায় সভা-সমাবেশ, মিছিল, অবরোধ, বিমান বয়কট, ধর্মঘট, হরতাল, ঘেরাও, অনশন, স্মারকলিপি পেশ, প্রধানমন্ত্রীর কাছে গণ তারবার্তা প্রেরণ ইত্যাদি কর্মসূচী পালিত হয়। সিলেটবাসীর দীর্ঘ আন্দোলনের পর ১৯৯৪ খ্রিস্টাব্দের ২৪ সেপ্টেম্বর সিলেট আলিয়া মাদ্রাসা মাঠে এক বিশাল জনসভায় সেই সময়ের প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়া ঘোষণা দিলেন‘ সিলেট বিভাগ হলো’। কথাটি তিনি তিনবার উচ্চারণ করলেন।
আন্দোলন সংগ্রামের ধারাবাহিকতায় সিলেটের শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠিত হয়। ১৯২০ খ্রিস্টাব্দে ঢাকায় বিশ্ববিদ্যায় প্রতিষ্ঠাকালে সিলেট ছিলো সেই সময়ের আসাম প্রদেশের অন্তর্গত। আসামে তখন কোন বিশ্ববিদ্যালয় ছিলো না। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার পরপরই আসাম প্রদেশের সিলেটে একটি বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপনের চিন্তাভাবনা শুরু করেন সেই সময়ের শিক্ষামন্ত্রী আবদুল মজিদ সিআইই। ১৯২১ খ্রিস্টাব্দে সিলেট এমসি কলেজের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন প্রসংগে আসামের সেই সময়ের গভর্নর স্যার উইলিয়াম মরিসও এখানে একটি বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপনের আশাবাদ ব্যক্ত করেন।
১৯৪৫ খ্রিস্টাব্দে সিলেটে একটি বিশ্ববিদ্যালয় কনভেনশন অনুষ্ঠিত হয়। এই কনভেনশন সিলেটে বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপনের খসড়া স্কীম প্রণয়ন করে সরকারের কাছে পেশ করে। আসামের সেই সময়ের ডিপিআই মি. ক্যানিং হাম অবসর গ্রহণ করে ইংল্যান্ডে দিন যাপন করছিলেন। তাকে ইংল্যান্ড থেকে তলব করে স্পেশাল অফিসার নিযুক্ত করা হয়। তিনি সিলেট বিশ্ববিদ্যালয় স্কীম প্রণয়ন করেন। কিন্তু দেশ বিভাগের ফলে তা ফলপ্রসু হয়নি। পরবর্তীতে আসামের গৌহাটিতে বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপিত হয়।
ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার পর ১৯৫৪ খ্রিস্টাব্দে উত্তর বঙ্গের রাজশাহীতে দেশের দ্বিতীয় বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠিত হয়। কাজেই সেই সময়ের পাকিস্তানের তৃতীয় বিশ্ববিদ্যালয় সিলেটে স্থাপিত হওয়ার বিষয়টি প্রায় নিশ্চিত হয়ে যায়। এই পটভূমিতে ১৯৬২ খ্রিস্টাব্দের ২০ ডিসেম্বর পাকিস্তানের প্রেসিডেন্ট ফিল্ড মার্শাল মোহাম্মদ আইয়ূব খান সিলেট এলে তিনি পূর্ব পাকিস্তানের তৃতীয় বিশ্ববিদ্যালয় সিলেটে স্থাপিত হবে বলে আশ্বাস দেন। কিন্তু পরবর্তীতে তার বিদেশ সফরের সুবাদে অস্থায়ী প্রেসিডেন্ট হিসেবে দায়িত্ব পালনরত চট্টগ্রামের ফজলুল কাদের চৌধুরী পূর্ব পাকিস্তানের তৃতীয় বিশ্ববিদ্যালয়টি চট্টগ্রামে স্থাপনের নির্দেশ দেন। ফলে তা চট্টগ্রামে স্থাপিত হয়ে যায়। ১৯৬৫ খ্রিস্টাব্দে পাক-ভারত যুদ্ধ বেধে যায় এবং পরবর্তীতে ১৯৬৯ খ্রিস্টাব্দে সরকার বিরোধী গণ আন্দোলনও জোরদার হতে থাকে। কিন্তু সিলেটে একটি বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপনের দাবী ¯স্তদ্ধ হয়ে যায়নি। কেন্দ্রীয় মুসলিম সাহিত্য সংসদের মুখপত্র আল ইসলাহ এবং সিলেটের প্রাচীনতম সাপ্তাহিক যুগভেরী প্রভৃতি পত্রিকা প্রবন্ধ ও নিবন্ধের মাধ্যমে সিলেটে বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপনের গণদাবী উত্থাপন করতেই থাকে। অবশেষে ১৯৮৫ খ্রিস্টাব্দের ৫ সেপ্টেম্বর সিলেট সরকারী আলিয়া মাদ্রাসা মাঠে সেই সময়ের প্রেসিডেন্ট হুসাইন মোহাম্মদ এরশাদ সিলেটে বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপনের ঘোষণা দেন। প্রেসিডেন্ট এরশাদকে দিয়ে এ ঘোষণা দেবার জন্যে আলহাজ্ব হুমায়ুন রশীদ চৌধুরীর অবদান রয়েছে। ১৯৯১ খ্রিস্টাব্দের ১৪ ফেব্রুয়ারি আনুষ্ঠানিকভাবে শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় উদ্বোধন করা হয়।
------------------------------------------------------------
বীথি -১৮মে ২০১৫/ আপডেট ২১ মে ২০১৬


.: 23 September 2017 : :. (140 বার পঠিত)
বিশ্বের সাথে তাল মিলিয়ে তথ্য প্রযুক্তিতে বাংলাদেশ অনেক দূর এগিয়ে গেছে --ড. মুহম্মদ জাফর ইকবাল
SylhetSyfdia.com

সিলেট এক্সপ্রেস ডেস্ক:শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ইলেকট্রিক্যাল এন্ড ইলেকট্রনিক্স ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের প্রফেসর ড. মুহম্মদ জাফর ইকবাল বলেছেন, তথ্য ও প্রযুক্তির ক্ষেত্রে দেশ অনেক এগিয়ে যাচ্ছে। দেশে অর্থনৈতিক মুক্তি পেতে তথ্য-প্রযুক্তির উপর জ্ঞান থাকা আবশ্যক। ...Details...


.: 23 September 2017 : :. (192 বার পঠিত)
সিলেট বিএমএ'ও উদ্যোগে কেন্দ্রীয় বিএমএ’র নেতৃবৃন্দের সংবর্ধনা
SylhetSyfdia.com

মো. আব্দুল বাছিত: বাংলাদেশ মেডিকেল এসোসিয়েশন (বিএমএ)-এর কেন্দ্রীয় সভাপতি ও সাবেক সাংসদ ডা. মোস্তফা জালাল মহিউদ্দিন বলেছেন, আওয়ামীলীগ সরকারের যোগ্য নেতৃত্বে বাংলাদেশ এগিয়ে যাচ্ছে। দেশের প্রতিটি ক্ষেত্রে অসাধারণ পরিবর্তন সাধিত হয়েছে। এরই ধারাবাহিকতায় সরকার বাংলাদেশের স্বাস্থ্য ...Details...


.: 23 September 2017 : :. (341 বার পঠিত)
সাংবাদিক ইকবাল মাহমুদ ফেইসবুকে রোডমার্চ সম্পর্কে যা বললেন
SylhetSyfdia.com

রোডমার্চের নামে ভয়ংকর প্রতারণাঃ ধৈর্য্য ধরে পড়ুন ।। হিউম্যানিটি ফর রোহিঙ্গা’র ব্যানারে সিলেট-টেকনাফ রোডমার্চ। উদ্দেশ্য, মিয়ানমারে রোহিঙ্গা নির্যাতনের প্রতিবাদ । পক্ষকাল ধরে ব্যাপক ঢাক-ঢোল পিটিয়ে চলছিলো প্রচারণা। চলেছে অনুদান সংগ্রহ। কোটি টাকার বাজেট হয়েছে।কর্তৃপক্ষই বলেছে দে ...Details...


.: 22 September 2017 : :. (263 বার পঠিত)
কমলগঞ্জে বাল্য বিবাহের হাত থেকে রক্ষা পেল কিশোরী বর ও বরের পিতা পুলিশের হাতে
SylhetSyfdia.com

কমলগঞ্জ(মৌলভীবাজার ) প্রতিনিধি মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলার মাধবপুর ইউনিয়নের পারুয়াবিল ইসলামাবাদ গ্রামে দরিদ্র এক কিশোরীর বিয়ের সব আনুষ্ঠানিকতা চলাকালে কমলগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও নির্বাহী কর্মকর্তা ও পুলিশি অভিযানে বাল্য বিবাহের হাত থেকে রÿা পেলে কিশোরীটি। এ ...Details...


.: 22 September 2017 : :. (482 বার পঠিত)
রোহিঙ্গা মুসলিম গণহত্যা ও নির্যাতনের প্রতিবাদে চেতনা যুব পরিষদের মানববন্ধন
SylhetSyfdia.com

ফারহান আহমদ চৌধুরী সিলেট সিটি কর্পোরেশনের ৫নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর রেজওয়ান আহমদ বলেছেন, মায়ানমারে রোহিঙ্গা মুসলমানসহ ভিন্নধর্মী লোকদের উপর নির্যাতন, নিপীড়ন চলছে তা ইতিহাসের জঘন্য বর্বরতা ও গণহত্যা। গণমাধ্যমে মানুষ হত্যার দৃশ্য দেখে বিশ্বের বিবেকবান মানুষ নিশ্চুপ থাকতে পারেনা। ...Details...


.: 22 September 2017 : :. (242 বার পঠিত)
দক্ষিণ সুরমা উপজেলা স্কাউট শাপলা কাব/ প্রেসিডেন্ট এ্যাওয়ার্ড পরীক্ষা --- মোঃ রাহাত আনোয়ার
SylhetSyfdia.com

সিলেটের জেলা প্রশাসক মোঃ রাহাত আনোয়ার বলেছেন, তথ্য ও বিজ্ঞান-প্রযুক্তির যুগে শিক্ষকদের সব বিষয়ে দক্ষতা অর্জন করতে হবে। সাংস্কৃতিক অঙ্গনেও শিক্ষকদের দক্ষতা বৃদ্ধি করতে হবে। তিনি বলেন, সুনাগরিক গঠনে স্কাউটের বিকল্প নেই। স্কাউটস প্রশিক্ষণের মাধ্যমে শৃঙ্খলা ও ভ্রাতৃত্ববোধের সৃষ্ট ...Details...


.: 22 September 2017 : :. (266 বার পঠিত)
সিসিক কর্মচারী আমির হোসেন বাবুল এর মৃত্যুতে মেয়র, কর্মচারী সংসদ ও ড্রাইভার কল্যাণ সমিতির শোক
SylhetSyfdia.com

সিলেট এক্সপ্রেস ডেস্ক: মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী’র শোক সিলেট সিটি কর্পোরেশনের কর্মচারী আমির হোসেন বাবুল এর মৃত্যুতে গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছে সিলেট সিটি মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী। শোক বার্তা মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী সিলেট সিটি কর্পোরেশনের কর্মচারী আমির হোসেন বাবুল এর এর বিদেহী ...Details...


.: 22 September 2017 : :. (212 বার পঠিত)
ডেমোক্রেসি ইন্টারন্যাশনাল’র উদ্যোগে রাজনৈতিক প্রশিক্ষণে সিলেট জেলা বিএনপি
SylhetSyfdia.com

ডেমোক্রেসি ইন্টারন্যাশনাল এর উদ্যোগে রাজনৈতিক যোগাযোগ ও প্রচার বিষয়ক প্রশিক্ষণে অংশ নিয়েছেন সিলেট জেলা বিএনপির নেতৃবৃন্দ। ডেমোক্রেসি ইন্টারন্যাশনালের সভায় বক্তারা রাজনীতিতে নারীর নেতৃত্ব ও যোগ্যতার ভিত্তিতে নারীর রাজনৈতিক অধিকার প্রতিষ্ঠার আহবান জানান। তারা নির্বাচন ও সংস ...Details...


.: 22 September 2017 : :. (75 বার পঠিত)
চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় সিলেট অঞ্চলের ২৬ তম ব্যাচের ঈদ পূণর্মিলনী ও আড্ডা
SylhetSyfdia.com

সিলেট এক্সপ্রেস ডেস্ক: চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় সিলেট অঞ্চলের ২৬ তম ব্যাচের ঈদ পূণর্মিলনী ও পারিবারিক আড্ডা শুক্রবার আলী বাহার বাংলোয় অনুষ্ঠিত হয়। মোঃ ওয়াকিল উদ্দিন ও জয়দ্বীপ বিশ্বাসের পরিচালনায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় সিলেট অঞ্চলের ২৬ তম ব্যাচের সদস্য ...Details...


.: 22 September 2017 : :. (218 বার পঠিত)
রোহিঙ্গা গণহত্যার প্রতিবাদে মানব কল্যাণ পরিষদের বিক্ষোভ মিছিল
SylhetSyfdia.com

সিলেট এক্সপ্রেস ডেস্ক: মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে রোহিঙ্গা মুসলমানাদের উপর আং সান সুচির সেনাবাহিনী ও বৌদ্ধ সন্ত্রাসী কর্তৃক অমানবিক নির্যাতন ও গণহত্যার প্রতিবাদে ২২ সেপ্টেম্বর শুক্রবার বাদ জুম্মা বন্দরবাজার কেন্দ্রীয় জামে মসজিদের সামন থেকে বাংলাদেশ মানব কল্যাণ পরিষদের উদ্যো ...Details...


.: 22 September 2017 : :. (100 বার পঠিত)
সিলেট ন্যাশনাল হার্ট ফাউন্ডেশন হাসপাতালে শীঘ্রই অপারেশন থিয়েটার চালু হবে
SylhetSyfdia.com

সিলেট এক্সপ্রেস ডেস্ক: হৃদরোগ আমাদের দেশে এক নম্বর একটি ঘাতক। এই ঘাতক ব্যাধি একবার হয়ে গেলে ক্রনিক হয়ে যায়। হৃদরোগের জন্য আমরা নিজেরাই অনেকটা দায়ি। সুতরাং হৃদরোগ থেকে বাচতে হলে প্রতিরোধ গড়ে তুলতে হবে। শুক্রবার সকালে ন্যাশনাল হার্ট ফাউন্ডেশন সিলেট আয়োজিত ২ দিন ব্যাপী হার্ট ক্যাম ...Details...


.: 22 September 2017 : :. (202 বার পঠিত)
রোহিঙ্গা সমস্যার স্থায়ী সমাধানে দ্রুত কার্যকর উদ্যোগ গ্রহণের জন্য জাতিসংঘ এবং আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের প্রতি প্রধানমন্ত্রীর আহবান
SylhetSyfdia.com

সিলেট এক্সপ্রেস ডেস্ক:জাতিসংঘ চতূর্দশবারের মত বাংলায় ভাষণে রোহিঙ্গা সমস্যার স্থায়ী সমাধানে দ্রুত কার্যকর উদ্যোগ গ্রহণের জন্য জাতিসংঘ এবং আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের প্রতি আহবান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। স্থানীয় সময় ২১ সেপ্টেম্বর বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় জাতিসংঘ সাধারণ ...Details...


.: 21 September 2017 : :. (346 বার পঠিত)
কথাশিল্পী বহুমুখী প্রতিভার অধিকারী আব্দুল্লাহ’র জীবন অনুসরণযোগ্য -- রাগিব হোসেন চৌধুরী
SylhetSyfdia.com

সিলেট এক্সপ্রেস ডেস্ক:কেন্দ্রীয় মুসলিম সাহিত্য সংসদের সাবেক সভাপতি, বিশিষ্ট কবি ও সংগঠক রাগিব হোসেন চৌধুরী বলেছেন, এ. জেড আব্দুল্লাহ বহুমুখী প্রতিভার অধিকারী ছিলেন। তার চিন্তায় দর্শন ছিলো, সমাজ উন্নয়নে তার ভূমিকা স্মরণযোগ্য। তার বর্ণাঢ্য জীবন অনুসরণযোগ্য। কেন্দ্রীয় মুসলিম সাহ ...Details...


.: 21 September 2017 : :. (651 বার পঠিত)
সাস্টিয়ান ফোরাম, কানাইঘাট- এর নতুন কার্যকরি পরিষদ গঠন
SylhetSyfdia.com

মো. আব্দুল বাছিত: শাবিপ্রবিতে অধ্যয়নরত কানাইঘাট উপজেলার শিক্ষার্থীদের সংগঠন ‘সাস্টিয়ান ফোরাম, কানাইঘাট’ এর নতুন কার্যকরি পরিষদ গঠন সম্পন্ন হয়েছে। গত ২১ সেপ্টেম্বর রোজ বৃহস্পতিবার বিকালে ইউনিভাসিটি সেন্টারে আয়োজিত এক সভায় ২০১৭-১৮ সালের জন্য সংগঠনের এই ২য় কার্যকরি পরিষদ গঠিত হয় ...Details...


.: 21 September 2017 : :. (188 বার পঠিত)
ম্যুভিয়ানা ফিল্ম সোসাইটি ৬, ৭ অক্টোবর ফিল্ম অ্যাপ্রিসিয়েশন কোর্স
SylhetSyfdia.com

সিলেট এক্সপ্রেস ডেস্ক: আগামী ৬, ৭ অক্টোবর সিলেটে শুরু হচ্ছে ফিল্ম অ্যাপ্রিসিয়েশন কোর্স ২০১৭ ৷ ফেডারেশন অব ফিল্ম সোসাইটিজ অব বাংলাদেশ'এর উদ্যোগে ২ দিন ব্যাপী এই কোর্সের আয়োজন করেছে ম্যুভিয়ানা ফিল্ম সোসাইটি ৷ এই কোর্সে চলচ্চিত্রের ইতিহাস, চলচ্চিত্রের ভাষা, চলচ্চিতের নন্দনরূপ, চলচ ...Details...


.: 21 September 2017 : :. (70 বার পঠিত)
মরমি কবি আরিজা খাতুনের ১৪তম মৃত্যুবার্ষিকী আজ

সিলেট এক্সপ্রেস ডেস্ক: মরমি সাধক ও কবি হজরত রকীব শাহ (রহ.)-এর সহধর্মিণী মরমি কবি আরিজা খাতুনের ১৪তম মৃত্যুবার্ষিকী আজ । বৃহস্পতিবার শহরের কাজিটুলাস্থ কবির মাজারপ্রাঙ্গণে এক কুরআনখানি, মিলাদ মাহফিল এবং আলোচনাসভার আয়োজন করা হয়েছে। সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায় ধর্মবর্ণ-জাতিনির্বিশেষে সকলকে ...Details...


.: 20 September 2017 : :. (271 বার পঠিত)
এডিস মশার বংশ বৃদ্ধি রোধের মাধ্যমে ডেঙ্গু ও চিকুনগুনিয়া প্রতিরোধ করা সম্ভব--- ডা. ইসমাঈল ফারুক
SylhetSyfdia.com

মো. আব্দুল বাছিত: সিলেট স্বাস্থ্য বিভাগের পরিচালক ডা. ইসমাঈল ফারুক বলেছেন, এডিস মশার আক্রমণের ফলে ডেঙ্গু ও চিকুনগুনিয়ার বিস্তার ঘটে। ব্যক্তি, পরিবার ও সমাজকে এ থেকে মুক্ত রাখার জন্য সবাইকে সচেতন হতে হবে। সাম্প্রতিককালে চিকনগুনিয়া রোগ ঢাকা থেকে শুরু করে সমস্ত বাংলাদেশের জনগণকে এক ...Details...


.: 20 September 2017 : :. (186 বার পঠিত)
আগামীকাল থেকে মায়ানমার অভিমুখে রোডমার্চ যাত্রা শুরু
SylhetSyfdia.com

সিলেট এক্সপ্রেস ডেস্ক:মিয়ানমারে রোহিঙ্গাদের উপর দেশটির সেনাবাহিনী ও সরকারের পৈশাচিক নির্যাতনের প্রতিবাদে বিশ্ব জনমত গড়ে তুলতে (২১ সেপ্টেম্বর) বৃহস্পতিবার সকাল ১০ ঘটিকায় সিলেট নগরীর দক্ষিণ সুরমার হুমায়ুন রশীদ চত্বর থেকে শতাধিক গাড়িবহর নিয়ে টেকনাফ অভিমুখে রোডমার্চ করবে ‘হিউম্ ...Details...


.: 19 September 2017 : :. (231 বার পঠিত)
সরকার হিজড়া জনগোষ্ঠি সহ সুবিধা বঞ্চিতের জীবনমান উন্নয়নে আর্থিক সহায়তা দিচ্ছে ----------- শফিউল আলম চৌধুরী নাদেল
SylhetSyfdia.com

সিলেট এক্সপ্রেস ডেস্ক:বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের পরিচালক ও সিলেট বিভাগীয় ক্রিড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক শফিউল আলম চৌধুরী নাদেল বলেছেন, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সোনার বাংলার স্বপ্ন বাস্তবায়নে জননেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সরকার বিভিন্ন পদক্ষেপ বাস্তবায়নের ...Details...


.: 19 September 2017 : :. (233 বার পঠিত)
সালেহ চৌধুরী ছিলেন সাংবাদিকতা জগতের উজ্জ্বল নক্ষত্র -- অধ্যক্ষ মাসউদ খান
SylhetSyfdia.com

সিলেট এক্সপ্রেস ডেস্ক:বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ ও কেন্দ্রীয় মুসলিম সাহিত্য সংসদের সাবেক সভাপতি অধ্যক্ষ মাসউদ খান বলেছেন-সাংবাদিক সালেহ চৌধুরী ছিলেন বর্ণাঢ্য জীবনের অধিকারী। সাংবাদিক,সাহিত্যিক, চিত্রশিল্পী, দাবাড়ু নানা গুণে গুণাম্বিত ছিলেন তিনি। মৃত্যুর পূর্বপর্যন্ত তিনি ছিলেন কমন ...Details...


:Next::..
Space for Advertisement
সপ্তাহের আলোচিত খবর

.: 1 day ago : :.
রোহিঙ্গা মুসলিম গণহত্যা ও নির্যাতনের প্রতিবাদে চেতনা যুব পরিষদের মানববন্ধন (482 বার পঠিত)
SylhetExpress.com

ফারহান আহমদ চৌধুরী সিলেট সিটি কর্পোরেশনের ৫নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর রেজওয়ান আহমদ বলেছেন, মায়ানমা ...Details...


.: 2 days ago : :.
সিসিক কর্মচারী আমির হোসেন বাবুল এর মৃত্যুতে মেয়র, কর্মচারী সংসদ ও ড্রাইভার কল্যাণ সমিতির শোক (266 বার পঠিত)
SylhetExpress.com

সিলেট এক্সপ্রেস ডেস্ক: মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী’র শোক সিলেট সিটি কর্পোরেশনের কর্মচারী আমির ...Details...


.: 1 day ago : :.
কমলগঞ্জে বাল্য বিবাহের হাত থেকে রক্ষা পেল কিশোরী বর ও বরের পিতা পুলিশের হাতে (263 বার পঠিত)
SylhetExpress.com

কমলগঞ্জ(মৌলভীবাজার ) প্রতিনিধি মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলার মাধবপুর ইউনিয়নের পারুয়াবিল ইসল ...Details...


.: 2 days ago : :.
দক্ষিণ সুরমা উপজেলা স্কাউট শাপলা কাব/ প্রেসিডেন্ট এ্যাওয়ার্ড পরীক্ষা --- মোঃ রাহাত আনোয়ার (242 বার পঠিত)
SylhetExpress.com

সিলেটের জেলা প্রশাসক মোঃ রাহাত আনোয়ার বলেছেন, তথ্য ও বিজ্ঞান-প্রযুক্তির যুগে শিক্ষকদের সব বিষয়ে ...Details...


.: 2 days ago : :.
রোহিঙ্গা গণহত্যার প্রতিবাদে মানব কল্যাণ পরিষদের বিক্ষোভ মিছিল (218 বার পঠিত)
SylhetExpress.com

সিলেট এক্সপ্রেস ডেস্ক: মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে রোহিঙ্গা মুসলমানাদের উপর আং সান সুচির সেনাবাহ ...Details...




সংবাদ শিরোনাম
o বিশ্বের সাথে তাল মিলিয়ে তথ্য প্রযুক্তিতে বাংলাদেশ অনেক দূর এগিয়ে গেছে --ড. মুহম্মদ জাফর ইকবাল

o দিনব্যাপী স্নানঘাটের বিভিন্ন গ্রাম পরিদর্শনকালে এমপি কেয়া চৌধুরী

o রোহিঙ্গা মুসলমানদের পাশে স্টুডেন্ট রাইটস বাংলাদেশ

o রোহিঙ্গাদের জন্য ত্রাণ নিয়ে গেলেন কাউন্সিলর আজাদ

o সন্ত্রাসী হামলায় গুরুত্বর আহত স্বাগত চৌধুরীর পাশে নগর বিএনপির সম্পাদক বি. সেলিম

o কানাইঘাট বুরহান উদ্দিনে প্রভাতী সংঘের বৃত্তি প্রদান ও সংবর্ধনা

o সত্যিকার মানুষ হওয়ার জন্য শিক্ষা অর্জন করতে হবে--অধ্যক্ষ কবি কালাম আজাদ

o সিলেট বিএমএ'ও উদ্যোগে কেন্দ্রীয় বিএমএ’র নেতৃবৃন্দের সংবর্ধনা

o গোপাল চন্দ্র বর্ধনের মাতা'র মৃত্যুতে সিলেট প্রেসক্লাব নেতৃবৃন্দের শোক

o সাংবাদিক গোপাল বর্ধনের মায়ের মৃত্যুতে ইমজার শোক

o মৌলভীবাজারের জুড়ীতে সজিবনী’র উদ্যেগে প্রায় ৮শ‘ মানুষকে চিকিৎসাসেবা প্রদান

o জকিগঞ্জে ৫৪(চুয়ান্ন) বোতল অফিসার চয়েজ সহ ১জন গ্রেফতার

o "বিএনপি নেতা আব্দুর রহমান এর ভাইয়ের মৃত্যুতে সিলেট জেলা বিএনপি'র শোক

o সিটি কর্পোরেশনের ত্রাণ তহবিলে রোহিঙ্গাদের সাহায্য দেওয়ার আহবান মেয়র আরিফের

o রোহিঙ্গা গণহত্যা বন্ধের প্রতিবাদে দিশারী যুব সংঘের মানববন্ধন

o রোহিঙ্গা মুসলিম গণহত্যা ও নির্যাতনের প্রতিবাদে টুকেরবাজারে বিক্ষোভ সমাবেশ ও দোয়া

o রোহিঙ্গাদের জন্য ইসলামী আন্দোলনের চিকিৎসা সেবা সহ বিভিন্ন কার্যক্রম অব্যাহত

o সিলেট জেলা ট্রান্সপোর্ট মালিক গ্রুপের বার্ষিক সাধারণ সভা

o রোহিঙ্গা মুসলিম গনহত্যা ও নির্যাতনের প্রতিবাদে সিলেট জেলা স্বর্ণ শিল্পী শ্রমিক ইউনিয়নের মানববন্ধন

o দেশ বিদেশ ভ্রমন ও বিদেশে উচ্চশিক্ষা বিষয়ক সেমিনার




সিলেটে | আজ | কাল | পরশু |
পাঠকের মতামত
(পাঠকের মতামতের এর জন্য সিলেট এক্সপ্রেস ডট কম কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়)


24 February 2016 তারিখে মিজান মোহাম্মদ সিলেট লিখেছেনঃ nice ...





18 December 2014 তারিখে Zameer Hussain jeddah (kingdom of saudi Arabia) লিখেছেনঃ All poems r very nice ...



4 November 2014 তারিখে anamul haq uposhohor লিখেছেনঃ im agree ...




পাঠকের আরো মতামত»
লেখালেখি

রোহিঙ্গাদের কি অপরাধ

SylhetExpress.com
বদরুজ্জামান জামান:
রোহিঙ্গাদের জাতিয়তা কি কিংবা তারা কারা ?
কি অপরাধ করছে তারা কেন স্বদেশছাড়া ? মিয়ানমার আধিবাসী তারা শতক শতক ধরে
তবুও কেন সুচিরা তাদের নেয়নি আপন করে।
তাদের উপর নির্যাতনে মধ্যযুগে আজ হার মানে
স্বদেশে নেই অধিকার একথা আজ কে না জানে ।
মিয়ানমারের সংখ্যালগু এ …সম্পূর্ণ»

হায়রে মানবতা

SylhetExpress.com
প্রিন্সপাল এম আতাউর রহমান পীর:
কলম আমার থমকে গেছে পারছেনা যে চলতে
প্রশ্ন করলে বললো কেঁদে পারছিনা যে লিখতে
নারী জ্বলে, শিশু জ্বলে আরও জ্বলে বৃদ্ধ
কেমন করে লিখব বলো হয়ে গেছি নিঃস্ব।
রোহিঙ্গারা ছিল সেথায় জনম জনম ধরে
স্বাধীন রাষ্ট্র ছিল তাদের হাজার বছর আগে
আজকে তারা বিতাড় …সম্পূর্ণ»

আমার মায়ের স্বপ্নগুলো

SylhetExpress.com
ইসতাইন আহমেদ:
আমার মায়ের স্বপ্নগুলো স্বপ্ন রবে না
মরণ দিয়ে পূরণ হবে শেষ ঠিকানা
আমার মায়ের স্বপ্ন ছিল কেবল মানুষ করার
সর্বদা এক সত্যবাদী শক্তি দিবে লড়ার
আমার মায়ের স্বপ্নেছিল কেবল বাংলাদেশ
সুখে দুঃখে মাটির বুকে জীবন হবে শেষ
আমার মায়ের স্বপ্ন ছিল নদীর স্রোতে চলার
গাঙ …সম্পূর্ণ»

নারী অঙ্গন

অভিমানী গল্পকার

SylhetExpress.com
তাসলিমা খানম বীথি: ১. চকচকে ঝকঝকে হাসির অন্তরালে অভিমানী একটি মুখ লুকিয়ে থাকে তার হৃদয়ে। যার প্রচন্ড অভিমান করার ক্ষমতা রয়েছে। তাকে বাইরে থেকে গুছালো মনে হলোও ভেতরে ভেতরে সে খুবই অগুছালো। কারন সে যখনই ঘর থেকে বের হয় তখন মানিব্যাগ না হয়, হাত ঘড়ি ঘরে রেখে দৌড় দেয়। তার মাথার চুল দেখলে ম …সম্পূর্ণ»

শেয়ার বাজার

Stock Market Monitor

@ stocktime.tk




Bangla Font
free counters

www.SylhetExpress.com - First Online NEWS Paper in Sylhet, Bangladesh.

Editor: Abdul Baten Foisal Cell : 01711-334641 e-mail : news@SylhetExpress.com
Editorial Manager : Abdul Muhit Didar Cell : 01730-122051 e-mail : syfdianews@gmail.com
Photographer : Abdul Mumin Imran Cell : 01733083999 e-mail : news@sylhetexpress.com
Reporter : Mahmud Parvez Staff Reporter : Taslima Khanom Bithee

Designed and Developed by : A.S.H. Imranul Islam. e-mail : imranul.zyl@gmail.com

Best View on Internet Explore, Mozilla Firefox, Google Chrome
This site is owned by Sylhet Sifdia www.sylhetexpress.com
copyright © 2006-2013 SylhetExpress.com, All Rights Reserved