19 Jan 2018 : Sylhet, Bangladesh :

জাতীয় 24 March 2015 মুক্তিযুদ্ধ  (পঠিত : 1641) 

রক্তঝরা উত্তাল ২৪ মার্চ

রক্তঝরা উত্তাল ২৪ মার্চ
     

ভানুজ কান্তি ভট্রাচার্য্ আজ ২৪ মার্চ, আগুন ঝরা উত্তাল মার্চের এক বিশেষ দিন। একাত্তরের এই দিনে পাক সেনাদের হাতে প্রাণ হারান স্বাধীনতাকামী কয়েকশ’ বাঙালি। পশ্চিমাদের ভয়ঙ্কর তৎপরতা প্রতিহত করতে আজকের দিনে বাংলার মানুষ প্রচন্ড হুঙ্কারে রাস্তায় নামে, কামানের গোলার সামনে দাঁড়িয়ে গ্রহণ করে দেশ রক্ষার দৃপ্ত শপথ। দুপুরে প্রেসিডেন্ট ভবনে ইয়াহিয়া খান এবং তার উপদেষ্টাদের সাথে পিপিপি প্রধান ভুট্টো বৈঠকে মিলিত হন। আলোচনা শেষে বের হয়ে পিপিপি প্রধান সাংবাদিকদের বলেন, পূর্বাঞ্চলের পরিস্থিতি অত্যন্ত করুণ। আমি অখন্ড পাকিস্থান রক্ষায় জীবন দিতে প্রস্তত। ঢাকায় অবাঙালিরা সাদা পোশাকধারী সেনা সদস্যদের সহায়তায় বাড়ি-ঘরে ওড়ানো স্বাধীন বাংলার পতাকা ও কালো পতাকা নামিয়ে পাকিস্তানী পতাকা ওড়াতে গিয়ে বিক্ষুব্ধ জনতার প্রতিরোধের মুখে পড়ে। ‘এমভি সোয়াত’ জাহাজ থেকে যুদ্ধাস্ত্র খালাসে অনীহার কারণে ব্রিগেডিয়ার মজুমদারকে চট্টগ্রামের সামরিক আইন প্রশাসকের পদ থেকে সরিয়ে দেওয়া হয়। পাক সেনারা নিজেরাই বন্দরে নোঙ্গর করা জাহাজ থেকে সমরাস্ত্র খালাস শুরু করলে অর্ধ লক্ষাধিক মানুষ অস্ত্রশাস্ত্র নিয়ে বন্দর ঘেরাও করে। ট্রাক বোঝাই করে অস্ত্র অন্যত্র নিয়ে যেতে চাইলে দুর্ভেদ্য ব্যারিকেড গড়ে তোলা হয়। ব্যারিকেড ভাঙ্গতে গুলি চালালে দুশ শ্রমিক নিহত ও কয়েকশ’ আহত হয়। এই ঘটনায় জনতার আন্দোলনে জোয়ারের সৃষ্টি করে। রংপুর হাসপাতালের সামনে পাকবাহিনীর সাথে জনতার সংঘর্ষ কালে গুলিতে ৫০ জন শহীদ হন। ঢাকাস্থ টেলিভিশন কেন্দ্রে প্রহরারত সেনা সদস্যরা বাঙালি কর্মীদের সাথে চরম দুর্ব্যবহার করে। এর প্রতিবাদের সেখান থেকে সবধরণের অনুষ্ঠানেরর প্রচার কাজ থেকে বিরত থাকেন বাঙালি কর্মীরা। স্বাধীন বাংলা কেন্দ্রীয় ছাত্র সংগ্রাম পরিষদের পক্ষ থেকে এক বিবৃতিতে পাকিস্তানীদের সম্ভাব্য হামলা প্রতিহত করতে গণবিপ্লব আরও জোরদার করার জন্য দেশবাসীর প্রতি আহবান জানানো হয়।


Free Online Accounts Software