সবুজের শহর সিলেটে সবুজের বাহন সাইকেল চলুক অবিরাম!
   16 Aug 2017 : Sylhet, Bangladesh :

সিলেট 21 October 2014 সাইক্লিং  (পঠিত : 1233) 

সবুজের শহর সিলেটে সবুজের বাহন সাইকেল চলুক অবিরাম!

সবুজের শহর সিলেটে সবুজের বাহন 
সাইকেল চলুক অবিরাম!
     


শাহরিয়ার রহমান সাগর:
সাইক্লিং এর শুরুটা অনেকটা হঠাৎ করেই। ২০১২ সালের শেষের দিকে, বড় ভাইয়ের কল্যাণে উপহার পেলাম একটি এন্ট্রি লেভেল মাউন্টেন বাইক। সাইকেল লাইফ এক্সক্লুসিভ থেকে কেনা সেই কয়োটি ব্র্যান্ডের সাইকেলটি দিয়েই মোটামুটি আমার এখনকার আগ্রহের শুরু।
এরপরে কিছু অসাধারণ মানুষের সাথে পরিচয়, Where the trail ends, Life Cycles, Strength in Numbers এর মতন কিছু ডকুমেন্টরি, Premium Rush এর মতন কিছু মুভি দেখে সেই আগ্রহ আরও বেড়ে উঠা। তবে সাইক্লিং সিরিয়াসভাবে নেবার পেছনে সবচাইতে বড় অবদান যদি কারো থাকে তাহলে তা ফেসবুক গ্রুপ “বিডিসাইক্লিস্টস” এর! সাইকেল সম্পর্কে জানা, বিভিন্ন রাইড, ঢাকা কিংবা সিলেটে যানবাহন হিসেবে সাইকেলকে বেছে নেয়া সর্বপরি কিছু অসাধারণ মানুষের সাথে পরিচয় এই গ্রুপ থেকেই! সেজন্যই বিডিসাইক্লিস্টস (আমরা আদর করে ডাকি বিডিসি)এর প্রতি আমার কৃতজ্ঞতার শেষ নেই!
গত বছর দেড়েকে প্রায় আট হাজার কিলোমিটার সাইক্লিং মাঝে সবচাইতে প্রিয় রাইড বেছে নেয়া অসম্ভব। বেশ কিছু রাইডের কথা চলে আসবে তাতে। প্রথমেই আসবে গত জানুয়ারির কথা। ঢাকা থেকে চালিয়ে মানিকগঞ্জ, পাবনা হয়ে আমার গ্রামে বাড়ি সিরাজগঞ্জে চলে গিয়েছিলাম, বাবাকে জন্মদিনের শুভেচ্ছা জানাতে! দুদিনে প্রায় আড়াইশো কিলোমিটারের উপরে চালিয়েছিলাম সেবার! আমার খুব প্রিয় একজন মানুষ, মশিউর ভাই এই রাইডে আমার সাথে ছিলেন।
তবে এখন পর্যন্ত একদিনে সর্বোচ্চ ১২৮ কিলোমিটার চালানো হয়েছে আমার, সেটা ছিল জীবনের প্রথম ১০০ কিলো+ রাইড। উত্তরার সাইক্লিং গ্রুপ ডিএনসির (ঢাকা নর্দান সাইক্লিস্ট) সাথে সেবার মুন্সিগঞ্জের কাছাকাছি গিয়েছিলাম। এছাড়া নিজেদের সাইক্লিং গ্রুপ সাস্টিয়ান সাইক্লিস্টের সাথে সিলেট- জাফলং রাইড, প্রিয় মানুষ আরিফ ভাইয়ের সাথে সিলেট-মৌলভীবাজার-শ্রীমঙ্গল-সিলেট রাইড, তন্ময়ের সাথে সিলেট-বিয়ানীবাজার-সিলেট রাইডও ছিল অনেক আনন্দের!

তবে সব নতুন ট্রেন্ডের মতনই শুরুর দিকে সাইক্লিংও অনেক দুঃসাধ্য ছিল।
মানুষের নানারকম হাসি ঠাট্টার পাত্র হয়েছি আমিসহ শুরুর দিককার সবাই। যে পরিমাণ গালিগালাজ আর কটুক্তি আমাদের করা করা হয়েছে, কথা দিয়ে মানুষ খুন করা গেলে আজ কারোই আমাদের বেচে থাকবার কথা নয়! গত দুবছরে সাইক্লিং শুরু করবার পরে সবচাইতে বেশি চাওয়া ছিল সিলেটে সাইক্লিস্টের সংখ্যা বৃদ্ধি। সে উদ্দেশ্যেই সাস্টিয়ান সাইক্লিস্ট গ্রুপের যাত্রা শুরু। অনেক অনেক স্মৃতি জড়িয়ে এই গ্রুপটার সাথে। কত কত বাইক ফ্রাইডে, বিগিনিয়ারস লেসন, কত কত আনঅফিসিয়াল রাইড! আজ যখন শহরের মাঝে কোথাও হেলমেট গ্লাভস পরে অপরিচিত একজন লোককে সাইকেল চালাতে দেখি, গর্বে বুকটা আধহাত ফুলে যায়! যখন আমাদের কাছেই সাইকেল চালাতে শেখা কোন বন্ধু আমার পাশে পাশে শত কিলোমিটার রাইড দিয়ে ফেলে, আনন্দের কোন সীমা থাকে না। যখন ৩৫০ ও বেশি মানুষ মিলে, সকল সাইক্লিং গ্রুপ একসাথে হয়ে স্বাধীনতা দিবস রাইড সফলভাবে সম্পন্ন হয়, ভুলে যাই সকল মানুষের সব রকম কটূক্তি!

আমি বিশ্বাস করি ভালোর কখনই শেষ নেই, তাই সিলেটে আরও অনেক অনেক সাইক্লিস্ট হোক, সবরকমের ব্র্যান্ডের দোকান তাদের বিক্রয়কেন্দ্র খুলুক, সাইকেলের সার্ভিস সেন্টার বাড়ুক, সাইক্লিস্টদের জন্য নিরাপদ করে তোলা হোক রাস্তাকে, সব যায়গায় সাইকেল পার্কিং এর জন্য উপযুক্ত ব্যবস্থা করা হোক এ আমাদের সকলের প্রত্যাশা!
সবুজের শহর সিলেটে সবুজের বাহন সাইকেল চলুক অবিরাম!



   অন্য পত্রিকার সংবাদ  অভিজ্ঞতা  আইন-অপরাধ  আত্মজীবনি  আলোকিত মুখ  ইসলাম ও জীবন  ঈদ কেনাকাটা  উপন্যাস  এক্সপ্রেস লাইফ স্টাইল  কবিতা  খেলাধুলা  গল্প  ছড়া  দিবস  দূর্ঘটনা  নির্বাচন  প্রকৃতি পরিবেশ  প্রবাস  প্রশাসন  বিবিধ  বিশ্ববিদ্যালয়  ব্যক্তিত্ব  ব্যবসা-বাণিজ্য  মনের জানালা  মিডিয়া ওয়াচ  মুক্তিযুদ্ধ  যে কথা হয়নি বলা  রাজনীতি  শিক্ষা  সমসাময়ীক বিষয়  সমসাময়ীক লেখা  সমৃদ্ধ বাংলাদেশ  সাইক্লিং  সাক্ষাৎকার  সাফল্য  সার্ভিস ক্লাব  সাহিত্য-সংস্কৃতি  সিটি কর্পোরেশন  স্বাস্থ্য  স্মৃতি  হ য ব র ল  হরতাল-অবরোধ