29 Jun 2017 : Sylhet, Bangladesh :

সিলেট 10 January 2012 রাজনীতি  (পঠিত : 3209) 

বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস পালিত

বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস পালিত
     

আজ ১০ জানুয়ারি। বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধাঞ্জলী জানানো হয়। মুক্তির স্বাদ নিয়ে জাতির স্বাধীনতার মহানায়ক তার স্বপ্নের বাংলাদেশে প্রত্যাবর্তন করেন আজকের এই দিনে। পরাধীনতার শৃংখল ভেঙ্গে ৭১ সালের ১৬ ডিসেম্বর যে বিজয় এসেছিল সেই বিজয়ের মহানায়ক ছিলেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। ১৯৭২ সালের ১০ জানুয়ারি সেই মহানায়ককে পেয়ে জাতি আবেগ উচ্ছ্বাস আর অসীম আনন্দে ফেটে পড়েছিল। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নেতৃত্বে বাঙালী জাতি অর্জন করেছিল বিজয়, পেয়েছিল স্বাধীনতার স্বাদ। প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষে আজ সকাল ১১টায় সিলেট কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে স্থাপিত বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে জেলা মহানগর আওয়ামীলীগ, জেলা মহানগর ছাত্রলীগসহ বিভিন্ন অংগসংগঠন প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পন করেন। পরে মহানগর আওয়ামীলীগ সভাপতি সিটি মেয়র বদর উদ্দিন আহমদ কামরানের সভাপতিত্বে আয়োজিত আলোচনা সভায় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন জেলা আওয়ামীলীগ সভাপতি আবদুজ জহির চেৌধুরী সুফিয়ান জেলা সাধারণ সম্পাদক শফিকুর রহমান চৌধুরী এবং মহানগর আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক আসাদ উদ্দিন আহমদ প্রমুখ। একাত্তরে ৯ মাসব্যাপী যুদ্ধে ত্রিশলাখ প্রাণের বিনিময়ে আমাদের অর্জন এ স্বাধীনতা। দীর্ঘদিনের শোষণ বঞ্চনা অনাচার ও অত্যাচারের বিরুদ্ধে বাঙালীর ঐক্যবদ্ধ আন্দোলনের ফল এই বাংলাদেশ। সেই বাংলাদেশের রূপকার শেখ মুজিব। শাসক গোষ্ঠীর বিরুদ্ধে বঙ্গবন্ধুর বজ্রকন্ঠ, শোষণ নির্যাতনের বিরুদ্ধে আপোষহীন সংগ্রাম, সর্বোপরি জাতিকে চূড়ান্ত লক্ষ্যে পৌঁছুতে জানবাজ যুদ্ধে অবতীর্ণ করে বঙ্গবন্ধু পাকিস্তানের প্রধান শত্রুতে পরিণত হয়েছিলেন। তার উপর নেমে এসেছিল জেল জুলুম হুলিয়া। তবুও বাঙালীর মুক্তি সংগ্রামের আন্দোলন থেকে পিছপা হননি শেখ মুজিব। স্বাধীন সার্বভৌম লাল সবুজের বাংলাদেশ জাতির ক্রান্তিলগ্নে সঠিক নির্দেশনা দিয়ে গড়ে তুলেছেন। ২৫ মার্চ কালোরাতে ঘুমন্ত বাঙালী জাতির উপর ঝাঁপিয়ে পড়েছিল হানাদার বাহিনী। গ্রেফতার করে তাকে নিয়ে যাওয়া হয়েছিল পশ্চিম পাকিস্তানে। ঠিক এর আগের মুহুর্তে দেশকে শত্রুমুক্ত করতে তার বার্তার নির্দেশনা পেয়ে বাঙালীর তরুণ যুব আবাল বৃদ্ধ বণিতা সকলেই ঝাঁপিয়ে পড়েছিলেন দেশ মাতৃকার টানে স্বাধীনতার জন্যে। মৃত্যু ভয়কে তুচ্ছ করে বীর বাঙালী অস্ত্র হাতে ঝাঁপিয়ে পড়ে রণাঙ্গণে। অবশেষে দীর্ঘ ৯ মাস যুদ্ধে এক সাগর রক্তের বিনিময়ে অর্জিত হয় স্বাধীনতা। বিশ্বের মানচিত্রে অভ্যুদয় ঘটে স্বাধীন সার্বভৌম রাষ্ট্র বাংলাদেশের। স্বাধীনতার কারিগর শেখ মুজিব তখনও পাকিস্তানের কারাগারে বন্দি। বিশ্ব নেতাদের অব্যাহত দাবীর প্রেক্ষিতে অবশেষে ১০ জানুয়ারি মুক্তি মেলে বঙ্গবন্ধুর। অপেক্ষমান বাঙালি জাতি তার প্রিয় নেতা ও রাষ্ট্রের স্থপতি শেখ মুজিবুর রহমানকে আবার কাছে পায় একাত্তরের এই দিনে। প্রাণের প্রিয় ও বাংলার অবিসংবাদিত নেতার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষে আজ দেশব্যাপী নানা কর্মসূচি পালিত হবে। ঐতিহাসিক এই দিনটি যথাযথ মর্যাদায় পালনের লক্ষ্যে বিস্তারিত কর্মসূচি গ্রহণ করা হয়। সরকারি বেসরকারী উদ্যোগে দিবসটি পালন করা হচ্ছে।

আরোও ছবি

বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস পালিত বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস পালিত বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস পালিত বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস পালিত বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস পালিত বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস পালিত বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস পালিত বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস পালিত বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস পালিত

|

   অন্য পত্রিকার সংবাদ  অভিজ্ঞতা  আইন-অপরাধ  আত্মজীবনি  আলোকিত মুখ  ইসলাম ও জীবন  ঈদ কেনাকাটা  উপন্যাস  এক্সপ্রেস লাইফ স্টাইল  কবিতা  খেলাধুলা  গল্প  ছড়া  দিবস  দূর্ঘটনা  নির্বাচন  প্রকৃতি পরিবেশ  প্রবাস  প্রশাসন  বিবিধ  বিশ্ববিদ্যালয়  ব্যক্তিত্ব  ব্যবসা-বাণিজ্য  মনের জানালা  মিডিয়া ওয়াচ  মুক্তিযুদ্ধ  যে কথা হয়নি বলা  রাজনীতি  শিক্ষা  সমসাময়ীক বিষয়  সমসাময়ীক লেখা  সমৃদ্ধ বাংলাদেশ  সাইক্লিং  সাক্ষাৎকার  সাফল্য  সার্ভিস ক্লাব  সাহিত্য-সংস্কৃতি  সিটি কর্পোরেশন  স্বাস্থ্য  স্মৃতি  হ য ব র ল  হরতাল-অবরোধ