20 Jan 2018 : Sylhet, Bangladesh :

সিলেট 9 January 2018 আইন-অপরাধ

র‌্যাব-৯ এর সংবাদ সম্মেলন কানাইঘাটে উচ্চ ক্ষমতাসম্পন্ন বিস্ফোরকসহ গ্রেফতার ৩

     

র‌্যাপিড এ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব)-৯ এর অভিযানে কানাইঘাট উপজেলার সুরইঘাট বাজার এলাকা থেকে বিপুল পরিমাণ বিস্ফোরক দ্রব্যসহ ৩ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। গ্রেফতারকৃত ব্যক্তিরা হচ্ছে- উপজেলার হালাবাদি গ্রামের এতিম আলীর পুত্র ইব্রাহীম (৪০), একই উপজেলার সোনারতন গ্রামের মো: কাহিরের ছেলে মোঃ আশিক (১৯) এবং একই গ্রামের হরজাইল গ্রামের রায়হান (২০)।
তাদের কাছ থেকে ১৫ টি নীল রংয়ের পলি ব্যাগ ভর্তি খাকি কাগজে মোড়ানো ৩০০ পিস হাই এক্সপ্লোসিভ পাওয়ার জেল এবং সাদা তার সমেত ইলেকট্রিক ডেটোনেটর ৩০০ পিস, ১টি কালো রংয়ের পুরাতন সিম্পনি মোবাইল ফোন এবং একটি কালো রংয়ের পুরাতন উয়াইম্যাক্স মোবাইল ফোন উদ্ধার করা হয়।
বিস্ফোরক দ্রব্যগুলো এতই উচ্চ ক্ষমতাসম্পন্ন এবং উচ্চ মান সম্পন্ন বিস্ফোরক পদার্থ, যার ১০ টি দ্বারা ২/৩ তলা একটি স্থাপনা পুরোপুরি গুড়িয়ে দেওয়া সম্ভব বলে র‌্যাব সূত্র জানিয়েছে।
এদিকে, গতকাল সোমবার দুপুর সাড়ে ১২টায় নগরীর ইসলামপুরস্থ র‌্যাব-৯ এর সদর দপ্তরে এক সংবাদ সম্মেলনে ভারপ্রাপ্ত অধিনায়ক মেজর জামসেদুর রহমান সাংবাদিকদের জানান, গত রোববার বিকাল ৫টায় গোপন সংবাদের ভিত্তিতে স্পেশাল কোম্পানী, সিলেট ক্যাম্পের একটি আভিযানিক দল অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোঃ মনিরুজ্জামান এর নেতৃত্বে অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেফতার করে।
গোপন সূত্রে খবর আসে, সুরইঘাট বাজারস্থ হোসেন আহমদের বাড়ীর সামনে কতিপয় দুষ্কৃতকারী বিপুল পরিমাণ বিস্ফোরক দ্রব্য মজুদ করে অবস্থান করছে। খবর পেয়ে র‌্যাব সদস্যরা ওই এলাকায় গেলে অভিযুক্ত ব্যক্তিরা দৌড়ে পালানোর চেষ্টা করে। এ সময় র‌্যাব সদস্যরা তিন জনকে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়।
আটককৃত ব্যক্তিদের জিজ্ঞাসাবাদের বরাত দিয়ে র‌্যাব সদস্যরা জানায়, এই বিস্ফোরক গুলো মূলত সীমান্তবর্তী এলাকার কয়লা খনি সমূহে ব্যবহৃত হয় । এই বিস্ফোরকের চালান মেঘালয় রাজ্যের লাটুম্বাই কয়লা খনিতে কর্মরত কিছু অসাধু কর্মকর্তা ও কর্মচারীর মাধ্যমে বিভিন্ন হাত হয়ে দুর্গম এলাকার ভিতর দিয়ে আটককৃত ব্যক্তিদের মাধ্যমে বাংলাদেশে প্রবেশ করে। একই জাতীয় বিস্ফোরক সমূহ পূর্বে আটককৃত জঙ্গিদের কাছ থেকে উদ্ধারকৃত বিস্ফোরকের সাথে হুবহু মিল রয়েছে। এতে প্রতীয়মান হয়, এই বিস্ফোরক দ্রব্য সমূহ জঙ্গি কার্যক্রমে ব্যবহৃত হতো। ধৃত ব্যক্তিদের কাছ থেকে তাদের অপরাপর ৩/৪ জন পলাতক সহযোগীর ব্যাপারে প্রাপ্ত তথ্যানুসারে তাদের গ্রেফতারের লক্ষ্যে জোর প্রচেষ্টা চলছে। তিনি আরো জানান, এ ধরণের জঙ্গি তৎপরতা প্রতিহত করা এবং যে কোন ধরণের নাশকতা, ধ্বংসাত্মক ও হিংসাত্মক কার্যকলাপের বিরুদ্ধে র‌্যাবের অভিযান অব্যাহত থাকবে।
সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন-র‌্যাবের সিনিয়র এএসপি ও সিনিয়র সহকারি পরিচালক (মিডিয়া) মাঈন উদ্দিন চৌধুরী, ক্যাপ্টেন নূর আলম প্রমুখ।


Free Online Accounts Software