19 Feb 2018 : Sylhet, Bangladesh :

সিলেট 10 December 2017 মিডিয়া ওয়াচ  (পঠিত : 612) 

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সংবাদপত্রের স্বাধীনতায় বিশ্বাস করেন- অর্থ ও পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সংবাদপত্রের স্বাধীনতায় বিশ্বাস করেন- অর্থ ও পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী
     

সংবাদপত্র ও সাংবাদিকদের স্বাধীনতা প্রশ্নে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আন্তরিকতার কথা জানিয়ে অর্থ ও পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী এম এ মান্নান এমপি বলেছেন, তিনি সাংবাদিকদের ব্যাপারে খুব আন্তরিক। তিনি চান সকলে যেন স্বাধীনভাবে কাজ করেন। গঠনমূলক সমালোচনার মাধ্যমে দেশের উন্নয়নে সাংবাদিকদের অংশগ্রহন তিনি সবসময় আশা করেন।
রোববার সন্ধ্যায় সিলেট প্রেসক্লাবে মানবাধিকার সাংবাদিকতা বিষয়ক কর্মশালার সনদ বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি একথা বলেন। প্রেসক্লাবের আমিনুর রশীদ মিলনায়তনে বাংলাদেশ মানবাধিকার সাংবাদিক ফোরাম এ আয়োজন করে।
এমএ মান্নান এমপি বলেন, সাংবাদিকরা লেখালেখির মাধ্যমে সরকারের চোখ খুলে দেন। এতে মানুষ উপকৃত হয়, দেশ উপকৃত হয়।
সরকারের গঠনমূলক সমালোচনার আহবান জানিয়ে তিনি বলেন, কারো চরিত্র হনন নয়, বন্ধুসুলভ আচরণের মাধ্যমে দেশের স্বার্থে সংবাদ মাধ্যমের কর্মীদের সমালোচনা সরকার সবসময় ইতিবাচক দেখছে। উন্নয়নের জন্য আপনাদের কাছ থেকে অনেক বেশি সহযোগিতা চায় বর্তমান সরকার।
সিলেট প্রেসক্লাবের স্বার্থ সংরক্ষণ ও উন্নয়নে নিজের সর্বাত্মক সহযোগিতার আশ্বাস দেন প্রতিমন্ত্রী। তিনি বলেন, অতীতে দেয়া প্রতিশ্রæতি তিনি ভুলে যাননি। একটু সময় লাগলেও সাংবাদিকদের স্বার্থ সংশিøষ্ট সকল বিষয়ে তিনি আন্তরিক রয়েছেন।
মানবাধিকার সাংবাদিক ফোরামের সিলেট বিভাগীয় সমন্বয়কারি ও সিলেট প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি ইকবাল সিদ্দিকীর সভাপতিত্বে ও প্রেসক্লাবের সদস্য নূর আহমদের সঞ্চালনায় এতে বক্তব্য দেন বর্তমান সভাপতি ইকরামুল কবির, বাংলাদেশ মানবাধিকার সাংবাদিক ফোরামের খায়রুজ্জামান কামাল। উপস্থিত ছিলেন সিলেটের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) সৈয়দ আমিনুর রহমান, অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট আব্দুলøাহ, সিলেট প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রশিদ রেনু, সিটি কর্পোরেশনের ৭নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আফতাব উদ্দিন, মানবাধিকার সাংবাদিক ফোরামের প্রশিÿক আব্দুল আল মামুন, রাশনা রশিদ প্রমুখ। প্রশিÿণপ্রাপ্ত সাংবাদিকদের মধ্যে অনুভূতি প্রকাশ করেন সৈয়দ সাইমূম আনজুম ইভান ও তাসলিমা খানম বীথি।
প্রতিমন্ত্রী বলেন, বলেন, বর্তমান দেশের অবকাঠামো উন্নয়নে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার অবদান অনস্বীকার্য। যারা সরকারের বিরোধিতা করেন তারাও এটা বিশ্বাস করেন।
ঢাকা-সিলেট চারলেন, ডাবল ট্রেক রেললাইন নির্মাণ, সিলেটে মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপন, ইঞ্জিনিয়ারিং বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপনসহ সরকারের বিভিন্ন পরিকল্পনার কথা জানিয়ে অর্থ ও পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী বলেন, এসব কর্মপরিকল্পনা তালিকায় অনেক এগিয়ে আছে। এজন্য কিছু সময় প্রয়োজন।
এম এ মান্নান বলেন, নেত্রী উন্নয়নের কাজকে যে পর্যায়ে নিয়ে গেছেন, অবকাঠামো উন্নয়ন যে পর্যায়ে এগিয়ে গেছে সেটা ধরে রাখা প্রয়োজন। এজন্য বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে আবারো নির্বাচিত করার দরকার আছে।
প্রতিমন্ত্রী বলেন, এটা অনস্বীকার্য যে, এ যাবৎকালে শেখ হাসিনার সবচেয়ে বেশি অবদান আছে। তার চরম শত্রæও এটা অস্বীকার করতে পারবে না। যারা তার সঙ্গে একমত নন তারাও স্বীকার করবেন শিক্ষা, স্বাস্থ্য, বিদ্যুৎ, কৃষিতে সর্বত্র অবকাঠামো উন্নয়নে দৃশ্যমান অগ্রগতি সাধিত হয়েছে। আর যারা এসব বিষয়ে একমত হবেন, তাদেরকে ভাল কাজে সকলকে শামিল হওয়ার আহŸান জানান মন্ত্রী।


Free Online Accounts Software