18 Nov 2017 : Sylhet, Bangladesh :

সিলেট 9 November 2017 খেলাধুলা  (পঠিত : 298) 

অবশেষে সিলেটের ছন্দপতন টানা তিন জয়ের পর হারল সিলেট


অবশেষে সিলেটের ছন্দপতন
টানা তিন জয়ের পর হারল সিলেট
     

টানা তিন জয়ে যেন ওড়ছিল সিলেট সিক্সার্স। বুধবার তাদের বাস্তবের জমিনে নামিয়ে আনল খুলনা টাইটান্স। বিপিএলের পঞ্চম আসরের সিলেট পর্বের শেষ দিনের দ্বিতীয় ও শেষ ম্যাচে স্বাগতিকদের ৬ উইকেটে পরাজিত করেছে খুলনা।

চতুর্থ ম্যাচে এটি সিলেটের প্রথম হার। অন্যদিকে দ্বিতীয় ম্যাচে এটি খুলনার প্রথম জয়। এর আগে প্রথম ম্যাচে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের কাছে হেরেছিল মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের দল।

সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত ম্যাচে আগে ব্যাটিংয়ে নেমে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৫ উইকেট হারিয়ে ১৩৫ রানে আটকে যায় সিলেট সিক্সার্স। জবাবে ব্যাটিংয়ে নেমে ১২ বল ও ৬ উইকেট হাতে রেখেই জয়ের বন্দরে পৌঁছে যায় খুলনা টাইটান্স।

খুলনার হয়ে মাইকেল ক্লিঙ্গার সর্বোচ্চ ৪৭ রানের অপরাজিত ইনিংস খেলেন। এছাড়া মাহমুদউল্লাহ ২৭, ক্রেইগ ব্রাঠে ২৩ এবং রিলে রুশো করেন ১৯ রান। অলরাউন্ডিং নৈপুণ্যের জন্য ম্যাচসেরা খেলোয়াড়ের পুরস্কার জেতেন খুলনার অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ।

সিলেটের হারের দিনেও বল হাতে উজ্জ্বল ছিলেন বাংলাদেশ জাতীয় দলের স্পিনার তাইজুল ইসলাম। ৪ ওভারে ১৯ রান দিয়ে ৩ উইকেট নেন তিনি। রস হুইটলি নেন অপর উইকেটটি।

১৩৬ রানের লক্ষ্যে ব্যাটিংয়ে নেমে ১৯ রানের মধ্যেই নাজমুল হোসেন শান্ত ও চ্যাডউইক ওয়ালটনকে হারিয়ে বিপাকে পড়ে খুলনা। দলীয় ৪৩ রানের মাথায় ফিরে যান রুশোও। তবে চতুর্থ উইকেটে মাহমুদউল্লাহ ও ক্লিঙ্গার মিলে ৫০ রানের জুটি গড়ে খুলনাকে ম্যাচে ফিরিয়ে আনেন। দলীয় ৯৩ রানের মাথায় মাহমুদউল্লাহ ফিরে গেলেও পঞ্চম উইকেটে ব্রাফেটকে নিয়ে ৪৫ রানের জুটি গড়ে দলকে জিতিয়েই মাঠ ছাড়েন ক্লিঙ্গার।

এর আগে টসে হেরে ব্যাটিংয়ে নেমে খুলনার বোলারদের নিয়ন্ত্রিত বোলিংয়ের মুখে পড়ে ১৩৫ রানেই আটকে যায় সিলেট সিক্সার্স। সিলেটের হয়ে নাসির সর্বোচ্চ ৪৭ রান করেন। ৩৫ বলে ৫টি চারের সাহায্যে এই রান করেন তিনি। এছাড়া থারাঙ্গা ২৬, দানুসকা গুনাথিলাকা ২৬ ও রস হুইটলি করেন ২৭ রান।

খুলনার হয়ে মাহমুদউল্লাহ ও জোফ্রা আর্চার দুটি করে উইকেট নেন। শফিউল ইসলাম নেন একটি উইকেট।


Free Online Accounts Software