17 Dec 2017 : Sylhet, Bangladesh :

বিশ্ব 19 September 2017 সার্ভিস ক্লাব  (পঠিত : 1103) 

মিয়ানমারে রোহিঙ্গা গণহত্যা ও নির্যাতনের প্রতিবাদে জুড়ীতে উপজেলা মহিলা দলের মানববন্ধন

মিয়ানমারে রোহিঙ্গা গণহত্যা ও নির্যাতনের প্রতিবাদে জুড়ীতে উপজেলা মহিলা দলের মানববন্ধন
     

সাইফুল ইসলাম সুমন, জুড়ী থেকে:মিয়ানমারের আরাকান রাজ্যে রোহিঙ্গা মুসলিমদের ওপর বর্বর নির্যাতন, ধর্ষণ, খুন ও অগ্নিসংযোগের প্রতিবাদে মানববন্ধন ও উত্তাল বিক্ষোভ করেছে জুড়ী উপজেলা মহিলা দল। উক্ত মানববন্ধন ও বিক্ষোভে সুধুমাত্র নারীরা অংশগ্রহন করেন। এই মানববন্ধন ও বিক্ষোভ মিছিলের মূল শ্লোগান ছিল মিয়ানমার সরকার ও অং সান সু চি-র বিরুদ্ধে এবং হত্যা বন্ধে আন্তর্জাতিক মহলের হস্তক্ষেপের দাবিতে। দুই ঘণ্টাব্যাপী চলা এ মানববন্ধন ও বিক্ষোভে ছিলো প্রতিবাদমুখর শ্লোগান। এর মাঝে মাঝে অনেকে সংক্ষিপ্ত বক্তব্য দেন।
সোমবার (১৮ সেপ্টেম্বর) সকালে মৌলভীবাজার জেলার জুড়ীতে উপজেলা পরিষদ কমপ্লেক্স সংলগ্ন রাস্তায় “জুড়ী উপজেলা মহিলা দল” এর আয়োজনে এক মানববন্ধন ও বিক্ষোভ অনুষ্ঠিত হয়। উক্ত মানববন্ধনে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন জুড়ী উপজেলা মহিলা দলের সভাপতি হোসনে আরা বেগম।
প্রাক্তন শিক্ষিকা আয়শা খাতুন শামুল এর পরিচালনায় এবং আইনজীবী আমিনা আক্তার সুইটি ও তরুন সমাজসেবী সুমাইয়া আক্তার ছানি এর সার্বিক তত্ত্বাবধানে অনুষ্ঠিত মানববন্ধন ও বিক্ষোভে আরো বক্তব্য রাখেন- জুড়ী উপজেলা মহিলা দলের সদস্য রুসনা বেগম, জায়ফরনগর ইউপি মহিলা সদস্যা রওশন আরা বুলবুলি, নারীনেত্রী মনোয়ারা বেগম মিলন, রাজিয়া বেগম, কল্পনা বেগম, শিউলী প্রমূখ।
মানববন্ধন ও বিক্ষোভে প্রধান অতিথির বক্তব্যে হোসনে আরা বলেন, মিয়ানমারে রোহিঙ্গাদের হত্যা, নির্যাতন চরম আকার ধারণ করেছে। নিজ দেশ থেকে জীবন বাঁচাতে লাখ লাখ রোহিঙ্গা বাংলাদেশে প্রবেশ করছে। মানবিক দিক বিবেচনায় ওইসব শরণার্থীদের পাশে সকলের দাঁড়ানো উচিত। তবে তারা যাতে দ্রুত নিজ দেশে ফিরে সাংবাধানিক অধিকার নিয়ে জীবন যাপন করতে পারে, সেজন্য আন্তর্জাতিক মহল যাতে এগিয়ে আসে, সে ব্যাপারে সবাইকে বিভিন্ন কর্মসূচির মাধ্যমে ভূমিকা রাখার আহবান জানাচ্ছি আমি।
হোসনে আরা আরো বলেন, মিয়ানমার সরকার মানবাধিকারের সব রীতিনীতি লঙ্ঘন করেছে। একটি সরকারের গঠিত এ হত্যাযজ্ঞ মেনে নেওয়া যায় না। এর আগে রোহিঙ্গাদের ওপর নির্যাতন চালাতো বুদ্ধ ধর্মীয় জঙ্গিরা। আর এবার তাদের সঙ্গে যৌথভাবে যুক্ত হয়েছে সরকার ও সেনাবাহিনী। তারা রোহিঙ্গাদের ওপর গণহত্যা, গণধর্ষণ, গ্রামের পর গ্রাম জ্বালিয়ে ভস্ম ও দেশান্তরিত করছে। এ জাতিগত নিধন বন্ধে এ মুহূর্তেই জাতিসংঘসহ আন্তর্জাতিক বিশ্বকে কার্যকর ভূমিকা রাখতে হবে।




Free Online Accounts Software