18 Jan 2018 : Sylhet, Bangladesh :

6 March 2016 অভিজ্ঞতা  (পঠিত : 1694) 

রিয়ালের গোলবন্যায় রোনালদোর এক হালি

রিয়ালের গোলবন্যায় রোনালদোর এক হালি
   

Riyad Ahmed এর লিখা।   রঙের বাড়ই   পাতা থেকে

 

প্রথমার্ধের মলিনতা কী দুর্দান্তভাবেই না দ্বিতীয়ার্ধে কাটিয়ে উঠলেন ক্রিস্তিয়ানো রোনালদো! ২৬ মিনিটের মধ্যে হ্যাটট্রিকসহ গোল করলেন চারটি। তাতে লা লিগার ম্যাচে সেল্তা ভিগোকে ৭-১ গোলের বন্যায় ভাসিয়ে দিল রিয়াল মাদ্রিদও।

সান্তিয়াগো বের্নাবেউয়ে শনিবার রাতে সেল্তার বিপক্ষে রিয়ালের পাওয়া বিশাল জয়ে পর্তুগিজ ফরোয়ার্ডের গোলোৎসবের আগে-পরে গোল পেয়েছেন পেপে, হেসে ও গ্যারেথ বেল।

পঞ্চদশ মিনিটে ভাগ্যের জোরে আর গোলরক্ষক কেইলর নাভাসের দৃঢ়তায় বেঁচে যায় রিয়াল। ইগো আসপাসের হেড পোস্টে লেগে ফিরে আসে। স্পেনের এই ফরোয়ার্ডের ফিরতি শটও আটকে দেন নাভাস।

২২তম মিনিটে রোনালদোর একটি প্রচেষ্টা ব্যর্থ হওয়ার পর বের্নাবেউয়ে আসা সমর্থকদের মুখে গোলের হাসি ফোটান পেপে। ৪১তম মিনিটে ইসকোর কর্নারে নিখুঁতভাবে মাথা ছুঁইয়ে সেল্তা গোলরক্ষককে পরাস্ত করেন পর্তুগিজ এই ডিফেন্ডার।

দ্বিতীয়ার্ধে চেনা রূপে ফেরেন রোনালদো। ৫০তম মিনিটে ২৫ গজ দূর থেকে নেওয়া পর্তুগিজ এই ফরোয়ার্ডের শট বাঁক খেয়ে প্রতিপক্ষ গোলরক্ষকের মাথার ওপর দিয়ে ঠিকানা খুঁজে পায়।

৫৭তম মিনিটে ডি-বক্সের খানিকটা বাইরে থেকে দৃষ্টিনন্দন ফ্রি-কিকে ব্যবধান বাড়ান রোনালদো; গোলরক্ষক জায়গা থেকেই নড়তেই পারেননি।

একটু পর প্রায় একই জায়গা থেকে নেওয়া রোনালদোর আরেকটি ফ্রি-কিক লাফিয়ে উঠে কোনোমতে ফেরান সেল্তা ভিগো গোলরক্ষক, বল লাগে ক্রসবারে।

সেল্তা ম্যাচে ফেরার ইঙ্গিত দিয়েছিল আসপাসের গোলে। সের্হিও গোমেসের লম্বা পাস ধরে নাভাসকে ওয়ান টু ওয়ান পজিশনে পেয়ে যান স্পেনের এই ফরোয়ার্ড। নিখুঁত চিপে রিয়াল গোলরক্ষককের মাথার উপর দিয়ে বল জালে পাঠান তিনি।

সেল্তার প্রতিরোধ এখানেই শেষ। ৬৪তম মিনিটে হ্যাটট্রিক পূরণ করেন রোনালদো। কাসেমিরোর বাড়ানো বলে দারুণ প্লেসিং শটে সেল্তার জালে পৌঁছে দেন তিনি।

প্রথম গোলটি করার পর হ্যাটট্রিক পূরণে রোনালদোর সময় লাগে মাত্র ১৪ মিনিট! লা লিগায় ও মৌসুমে গোলদাতার তালিকায় শীর্ষে থাকা বার্সেলোনার লুইস সুয়ারেসকে (২৫ গোল) পেছনে ফেলার উদযাপনটা তিনি করেন ভিন্নভাবে। ট্রেডমার্ক ভঙ্গিতে লাফ দিয়ে দুই হাত ছড়িয়ে না দাঁড়িয়ে ২৬তম গোলের উদযাপন করেন জার্সির নিচে পেটের উপর বল ভরে।

এরপর আরেকবার লক্ষ্যভেদ করে এ মৌসুমে লা লিগায় রোনালদোর গোল হয় ২৭টি। ৭৬তম মিনিটে কর্নার থেকে উড়ে আসা বল হেড করতে লাফিয়ে উঠেছিলেন গ্যারেথ বেল ও রোনালদো। ওয়েলস ফরোয়ার্ড নাগাল না পেলেও পর্তুগিজ তারকা ঠিকই চতুর্থ গোলটি তুলে নেন।

৭৭তম মিনিটে প্রতিপক্ষের এক ফুটবলারের কাছ থেকে বল কেড়ে নিয়ে ডি-বক্সের ভেতর ডিফেন্ডারদের কাটিয়ে লক্ষ্যভেদ করেন হেসে।

ইসকোর বদলি হিসেবে নামা বেল গোলের খাতায় নিজের নাম তোলেন ৮১তম মিনিটে। একক নৈপুণ্যে মাঝ মাঠ থেকে বল নিয়ে এসে ডি-বক্সের ভেতর থেকে ডান পোস্ট ঘেঁষে জোরালে শটে লক্ষ্যভেদ করেন চোট কাটিয়ে ফেরা ওয়েলসের এই ফরোয়ার্ড। তাতে বড় জয়ের আনন্দ নিয়ে মাঠ ছাড়ে জিদানের শিষ্যরা।

এমন দাপুটে জয়ের পরও অবশ্য ২৮ ম্যাচে ৬০ পয়েন্ট নিয়ে লা লিগায় তৃতীয় স্থানে আছে রিয়াল। এক ম্যাচ কম খেলে শীর্ষে থাকা বার্সেলোনার সঙ্গে জিদানের দলের ব্যবধান ৯ পয়েন্টের। বার্সেলোনার মতো এক ম্যাচ কম খেলে ৬১ পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে আতলেতিকো মাদ্রিদ।


Free Online Accounts Software