26 Sep 2017 : Sylhet, Bangladesh :

সিলেট 22 October 2015 সাহিত্য-সংস্কৃতি  (পঠিত : 3094) 

°স্পর্শের বাহিরে°

°স্পর্শের বাহিরে°
     

এইচ়.এম আলমগীর:
কোনো এক পড়ন্ত বিকেলের কথা , প্রতিদিনের
নিয়মে এ বেলায় মুক্ত হাওয়া খেতে খেতে
বন্ধুদের সাথে আড্ডা বেশ জমে যায় । ঠিক
এমনি এক আড্ডাগন মূহুর্ত পাল্টে দিবে আমার
জীবন , সেটা কখনো অতদূর ভাবা হয়নি । সেদিন
হয়েছিল কি ! আড্ডার ফাঁকে হঠাৎ আমার চোঁখ
যোগল নিয়মিত পরিবেশের ভিতরে আরেক
পরিবেশ আবিষ্কার করে , মূহুর্তেই সেই
পরিবেশের সাথে নিজেকে মিলিয়ে একটা নতুন
স্বপ্নের সন্ধানে এর গন্তব্যস্থল কতদূর তা লক্ষ
করি , আর করিবনাই বা কেন ? চিরচেনা
পরিবেশে যখন অচেনা কোনো নির্লিপ্ত চাহনী
, হাল্কা গড়নের অপ্সরী সাদৃশ্য কোনো
প্রেমময়ী যে পরিবেশকে চির অচেনা নতুন ফুলের
ঢালি সাজিয়ে ,পদে পদে নব প্রেমের শিষ দিয়ে
যায় , তারেতো লক্ষ করিবই এ যে যৌবনের এক
পাগলা নেশা ।
সময়ের গন্ডি পেরিয়ে সেও খাপ খেয়ে যায়
নিয়মিত পরিবেশের সাথে । তবে এটা কিছুটা
ভিন্নতর ,নিরবে চুপিসারে অতি ধীর গতিতে সে
আমার মনের দখল নিতে থাকে অতপর আমি আর
কিছু চাইনা কিচ্ছু চাইনা , শুধু এই অপ্সরীকে
নিজের করে পেতে চাই , চিরতরে চির সঙ্গীনি
করে ।
ভোরের উষা লগ্নে সাড়া না দিলেও আলোকিত
তপ্ত দুপুরে সেও তার আপন সত্বা আমাতে
বিলিয়ে দেয় ।নব প্রেমে রাঙ্গা হতে থাকে,
নিল আকাশ ।
প্রতিদিন কিছু নতুন ভাবনা , নতুন স্বপ্ন আর নতুন
কিছু কবিতার জন্ম হতে থাকে , যার প্রতিটি
ক্ষনে প্রতি লাইনে আশা আর ভালোবাসার
বিত্তিকে চূড়ান্ত লক্ষে পৌছে দেওয়ার মূহুর্তে
উপনীত হয় । আস্তে আস্তে দুটি মন এক অভিন্ন ,
অখন্ডিত আত্বায় পরিনত হয় ।
আড্ডার পরিবেশ আর সময়ের পরিবর্তন হতে
থাকে , বন্ধুদের কাছ থেকে দূর সরতে থাকি ,
কারন অমার বন্ধু সে, আড্ডা তার সাথে , সময়
তার জন্য , আমার রঙ্গিন ভূবনে শুধু সে আর আমি
নীলাভ সাগরে দুজনের প্রেমের হাবুডুবু ।
এমনি সময়ে মেঘাচন্ন আঁকাশে বাজ পড়ার মতো
কিছু একটা ঘটে গেলো । কোন কারনে কিসের
জন্য কার ভুলে , সেই অপ্সরীর পুষ্প সুভাষিত
গুলাপ পাপড়ির ন্যায় চিকন ঠোঁটের ফাঁক দিয়ে
তিক্ত কিছু কথার খই ফুটলো । যেটুকু শুনেছি তার
বেশি দূর বিশ্লেষন করিতে যাইনাই , শুধু এটুকুই
বুঝেছি যে তপ্ত দূপুরের শেষে ক্লান্ত গোধূলী
এসেছে , এবার মিলিয়ে যাবার পালা , আমার
সব আশা কবিতার খুনসুটি আর স্বপ্ন সব নিমিষেই
হাল্কা কাঁচের মতো করে ঝরে গিয়ে , অবশেষে
তা গোধূলীতে বিলিন হলো ।
বেশ কিছুকালা পেরিয়ে গেলো , মাঝে মাঝে
আশা গুলো ডেকর দিতে থাকে , হারিয়ে যাওয়া
সেই সুর দিয়ে আবারও নিজেকে ভরপুর করতে চাই

কিন্তু বিপত্তি ঘটলো ঘোটঘোটে কালো এক
আলোহীন সন্ধ্যায় ,
সন্ধ্যার দূত নিয়ে এলো এক ছন্দহীন নিরানন্দ
অপরিচিত বার্তা । স্পষ্ট জানান দিয়ে গেলো
সে নাকি এখন আমার ভূবনে নাই , সে এখন
অন্যভূবনে ভালোবাসার দালান গড়েছে , বুঝতে
বাকি রইলনা সে এখন আমার স্পর্শের বাইরে ।
নিজেকে নিজের মতো গুছিয়ে নেবার মন্ত্রের
দিক্ষা পেলাম , যদিও চক্ষু জল ফেলাতে চাইনাই
তথাপি বুক পর্যন্ত গড়িয়ে গেলো , মনো হলো
যেনো কালো মেঘ এসে ঢেকে দিয়েছে আমার
সব আশা , প্রতিফলে পাল্ট গেলো জীবনের বাঁক