24 Sep 2017 : Sylhet, Bangladesh :

সিলেট 8 March 2015 দিবস  (পঠিত : 455) 

শোষনহীন সমাজ প্রতিষ্ঠাই নারীদের চুড়ান্ত মুক্তি সম্ভব

     



আন্তর্জাতিক নারী দিবস উপলক্ষ্যে জাতীয় গণতান্ত্রিক ফ্রন্ট এনডিএফ’র শরিক সংগঠন গণতান্ত্রিক মহিলা সমিতি সিলেট জেলা শাখার উদ্যোগে আজ সকাল ১১ টায় সিলেট শহরতলীর ইসলামপুর মেজরটিলা বাজারে এক র‌্যালি ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন গণতান্ত্রিক মহিলা সমিতি সিলেট জেলা শাখার সংগঠক সাজেদা বেগম। সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জাতীয় গণতান্ত্রিক ফ্রন্ট সিলেট জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক জয়দীপ দাস চম্পু। আলোচনা সভায় নারী দিবসের তাৎপর্য তুলে ধরে প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন গণতান্ত্রিক মহিলা সমিতি সিলেট জেলা শাখার সদস্য রুবি বেগম ও ইমা বেগম। সভায় আলোচনা করেন মিলন বেগম, জাতীয় ছাত্রদল শাবি শাখার সাধারণ সম্পাদক শাহাদত হোসেন, জেলা আহবায়ক নাজমুল হোসেন, বাংলাদেশ ট্রেড ইউনিয়ন সংঘ সিলেট জেলা শাখার সহ সভাপতি সুরুজ আলী, শহর পূর্বাঞ্চল কমিটির সিনিয়র সদস্য মো: আলা উদ্দিন, হোটেল শ্রমিক ইউনিয়ন মহানগর কমিটির সহ-সভাপতি আরিফুল ইসলাম । সভায় প্রধান অতিথি বলেন নারীমুক্তির সঙ্গে পুরুষের বিপরীত্যের কোন সম্পর্ক নেই। কারণ যে দীর্ঘ প্রক্রিয়ায় সমাজ কাঠামো তৈরি সেই কাঠামোর মধ্যেই নারী পুরুষের অবস্থান। অর্থনৈতিক ক্ষেত্রে নারীর অবস্থান সমান না হওয়ায় পুরুষকেই তার প্রতিদ্বন্ধি মনে হয়। নারীবাদ সমস্যার গভীরে প্রবেশ না করে সমস্যার সমাধান খুঁজে। সমস্যার উৎস কোথায় সেদিকে দৃষ্টি নিবন্ধ করেনা বলেই নারীবাদ সংকীর্ন। যে জন্য নারীবাদ যথার্থ অর্থে নারীমুক্তি নয়। নারী সমস্যা প্রশ্নে যে দুটি মত আমরা পাই তার একটি উদারনৈতিক দৃষ্টিভঙ্গি এবং অপরটি মার্কসবাদি দৃষ্টিভঙ্গি। নারী মুক্তির প্রাথমিক শর্ত হলো একটি শোষণহীন সমাজ যে সমাজে উৎপাদনের উপকরণগুলো থাকবে সমাজের সম্পত্তি। যেখানে সামাজিক উৎপাদনের মধ্যে ফিরে আসবে নারী। যেখানে থাকবে না সুবিধাভোগী বা সর্বহারা। ব্যক্তিগত গৃহস্থালী পরিণত হবে সামাজিক শিল্পে। শিশুপালন, শিক্ষা ও চিকিৎসা সামাজিক বিষয় হওয়ার দায়িত্ব নেবে রাষ্ট্র। সার্বিক অর্থেই নারী হয়ে উঠবে স্বাধীন। তাই নারী মুক্তির আবশ্যকীয় শর্তও সমাজ কাঠামোর আমূল পরিবর্তন। র‌্যালি ও আলোচনা সভায় হোটেল শ্রমিক ইউনিয়ন, স’ মিল শ্রমিক সংঘ, শ্রমজীবি সংঘের নেতৃবৃন্দরা অংশগ্রহণ করেন।