User Login | | নীতিমালা | 22 Aug 2017 : Sylhet, Bangladesh :
    সংবাদ : শামসুদ্দিন ছাত্রাবাস শিবিরের সভাপতি আটক
  সংবাদ : প্রেমে বাধ সাধার কারণেই খুন হন ওসমানীনগরের ইমাম আব্দুর রহমান!
  সংবাদ : গ্রেনেড বোমা সন্ত্রাস করে রাষ্ট্রনায়ক শেখ
হাসিনাকে দমিয়ে রাখা যাবে না - আশফাক আহমদ  সংবাদ : আওয়ামী লীগকে নিশ্চিহ্ন করতেই 
২১শে আগস্ট গ্রেনেড হামলা
  সংবাদ : 
শাবির নয়া ভিসি অধ্যাপক ফরিদ উদ্দিনের যোগদান
  সংবাদ : 
শাবির নয়া ভিসি অধ্যাপক ফরিদ উদ্দিনের যোগদান
  সংবাদ : 
শাবির নয়া ভিসি অধ্যাপক ফরিদ উদ্দিনের যোগদান
  সংবাদ : 
শাবির নয়া ভিসি অধ্যাপক ফরিদ উদ্দিনের যোগদান
  সংবাদ : নায়ক রাজ রাজ্জাক আর নেই
  সংবাদ : মুহিত চৌধুরীর অসুস্থ মাতাকে দেখতে যান কামরান  সংবাদ : সরকার বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত লোকদের ক্ষতি পুষিয়ে 
দিতে বিভিন্ন সুযোগ সুবিধা প্রদান করছে

  সংবাদ : যুক্তরাজ্য বিএনপি নেতা সাব্বির আহমদ ছুটনের রোগমুক্তি কামনায় দোয়া মাহফিল
  সংবাদ : লালাবাজারে যুক্তরাজ্য কমিউনিটি নেতার উদ্যেগে ত্রাণ বিতরণ  সংবাদ : বন্যাদুর্গতদের পাশে লাইটার ইয়ুথ ফাউন্ডেশন  সংবাদ : দুস্থ ও অসহায়দের মধ্যে নোলকের খাদ্য সামগ্রী বিতরণ  সংবাদ : ওসমানী হাসপাতালের স্টুওয়ার্ড নিজাম উদ্দিনের মায়ের ইন্তেকাল  সংবাদ : বাদাঘাটে রাস্তা মেরামতের দাবিতে অটোরিক্সা শ্রমিক ইউনিয়নের মানববন্ধন  সংবাদ : কৈতর সিলেট-এর উদ্যোগে মোঃ মাহমদুর রহমানকে নিয়ে সুহৃদ সম্মিলন  সংবাদ :  ডা: সায়েফ আহমদের মাতার ইন্তেকালে সিলেট মহানগর জামায়াতের শোক  সংবাদ : বালাগঞ্জে পুলিশ প্রহরায় শ্রমিকলীগের দু’পক্ষের শোক দিবস পালন
sylhetexpress.com এর picture scroll bar এর code. এই কোড যেকোন website এ use করা যাবে।
| সিলেট | মৌলভীবাজার | হবিগঞ্জ | সুনামগঞ্জ | বিশ্ব | লেখালেখি | নারী অঙ্গন | ছবি গ্যালারী | রঙের বাড়ই ব্লগ |

তাসলিমা খানম বীথি
Phone/ Mobile No.: 01712-148 147
E-mail : syfdianews@gmail.com
তাসলিমা খানম বীথি
স্টাফ রিপোর্টার-সিলেটের প্রথম অনলাইন দৈনিক সিলেট এক্সপ্রেস ডট কম।
লাইফ মেম্বার: কেন্দ্রীয় মুসলিম সাহিত্য সংসদ, সিলেট।
এ্যাকটিভিস্ট: সিলেট সেন্টার ফর ইনফরমেশন এন্ড মাস মিডিয়া (সিফডিয়া)।
কৈতর প্রকাশন, সিলেট।
ই-মেল- syfdianews@gmail.com

Web Address : www.sylhetexpress.com
তাসলিমা খানম বীথি এর লিখা
.: 9 August 2017 : সাহিত্য-সংস্কৃতি :.

অভিমানী গল্পকার


SylhetExpress.com

তাসলিমা খানম বীথি:
১. চকচকে ঝকঝকে হাসির অন্তরালে অভিমানী একটি মুখ লুকিয়ে থাকে তার হৃদয়ে। যার প্রচন্ড অভিমান করার ক্ষমতা রয়েছে। তাকে বাইরে থেকে গুছালো মনে হলোও ভেতরে ভেতরে সে খুবই অগুছালো। কারন সে যখনই ঘর থেকে বের হয় তখন মানিব্যাগ না হয়, হাত ঘড়ি ঘরে রেখে দৌড় দেয়। তার মাথার চুল দেখলে মনে হবে পাখির বাসা। চুল আচড়ায় না বলে একদিন তাকে চিরুনি কিনে দিয়েছিলাম। নিজের প্রতি উদাসীন হলে কী হবে। কাছের মানুষদেরকে ঠিকই সে ভালোবাসে, যত্ন নেয়। প্রতি বছরে আমার জন্মদিনটি আসে আবার নীরবে চলেও যায়। কিন্তু ২০১৫ সালে জীবনে প্রথম কোন জন্মদিনে কেক কাটি। আর সেই অনুষ্ঠানটি আয়োজন করেছিলো যাকে আমি কখনো ঘন্টু, কখনো নীল, আবার কখনো বাবু বলে ডাকি। জন্মদিনে উপস্থিত ছিলেন সিলেটের সাহিত্যঙ্গনে আমার সবচেয়ে প্রিয়, সবচেয়ে কাছের মানুষেরা। সেদিন এতটাই আবেগাপ্লুত হয়েছিলাম যে, চোখের জলে আটকে গিয়েছিলো মনের কথাগুলো।
২.গত ঈদুল ফিতরের আগের দিন তাকে কল করে বলেছিলাম ঈদের দিনে সবাই মিলে বের হবো। আমি জানতাম মোবাইল বন্ধ করে ঘুমিয়ে যাবে সে। সেই জন্য মোবাইলের লাইন কাটার আগে কয়েকবার তাকে বলি- মোবাইল খোলা রাখিস। লক্ষী ভাইয়ের মত সেও জবাব দেয় আচ্ছা খোলা রাখবো, বন্ধ করবো না।
৩.ঈদের দিন সকালে তাকে কল করতেই মোবাইল বন্ধ পেয়ে ভাবলাম হয়তো নামাজের আগে ওঠে যাবে। সকাল সাড়ে ৯টা পর্যন্ত মোবাইল বন্ধ রয়েছে। তখন কল করি ছড়াকার দিলওয়ার হোসেন দিলু ও আকরাম ছাবিতকে। তারা বলল- সে তো বাড়িতে যায়নি, রুমে হয় তো আছে। তাদের সাথে কথা বলে বসু (কবি বাশিরুল আমীন) কে কল করি। হ্যালো বলার আগেই কোথায় আছে জিজ্ঞাসা করি। তার বন্ধুর সাথে আছে, সুবিদবাজার পয়েন্টে আসলে পাবো। দ্রত তৈরি হয়ে বাসায় থেকে বের হই। সকাল ১০টায় রিকশা নিয়ে সোজা সুবিদবাজার পয়েন্টে এসে বসুকে সাথে করে মদিনা মার্কেটের দিকে ছুটি। দু’তলা সিড়ি বেয়ে ওঠতেই, বসু বলল-আপা তুমি নিচে দাঁড়াও আমি রুমে গিয়ে দেখে আসি, সে আছে কিনা। ব্যাচেলর বাসায় তো। ঠিক আছে বলে, সিঁড়ির নিচে দাঁড়াই। কয়েক বার কলিং বেল দেবার পর কারো সাড়া শব্দ না পেয়ে বসু এসে বলল- রুমে মনে হয় কেউ নেই। নিচে দাঁড়িয়ে আরো কিছুক্ষণ অপেক্ষা করতেই একজন লোক আমাদের জিজ্ঞাসা করলেন - আপনারা কী কাউকে খুঁজছেন? তার নাম বলতেই তিনি বললেন, আপনি তার কে? আমি তার বোন। লোকটির সাথে কথা বলে, আবারো রিকশা ওঠি দুজনে। বসু জিজ্ঞাসা করছে কোথায় যাবে আপু? বাসায় চলে যাবো। এ কথা শুনে বসু গাল ফুলিয়ে বলে, আমাদের বাসায় না গিয়ে চলে যাবে। না- ঈদের দিন আমার বাসায় যেতেই হবে। কারো মন খারাপ থাকবে তাও আবার ঈদের দিন। সেটি কখনো মেনে নিতে পারি না। তাই বসুর সাথে তাদের বাসার দিকে চললাম। বাসায় যেতে না যেতে রান্না ঘরে ঢুকেই বসু নিজের হাতে করে পিঠার পুরো পাতিলটি নিয়ে হাজির আমার সামনে। তার মা হেসে বলল-পাগল ছেলের কাজ দেখো। আয়েশা, মনির, বসু ও আমি একসাথে বসে লাচ্ছিসহ বিভিন্ন ধরনের পিঠা খাচ্ছিলাম, তখন চোখ যায় বুবুর দিকে (বসুর দাদি) দাদিকে বুবু বলে ডাকে তাই আমিও ডাকি। একি! বুবুকে শাড়ি পড়িয়ে দিচ্ছে মনির। এ দৃশ্য দেখে আমি আর আয়েশা হেসে লুটোপুটি। বাহ! নতুন শাড়িতে বুবুকে দারুণ লাগছে। আমার কথা শুনে মনির লজ্জায় পালিয়ে যায়।
৪.দুপুর পৌনে ১টা তখন। কেন জানি মনে হচ্ছে সে রুমেই আছে। বাইরে থেকে তালা লাগিয়ে রুমে ভেতর নিশ্চয় ঘুমাচ্ছে। তাকে আবার কল করতে বসুকে বলি। ফোন রিসিভ করতেই বসু বলল, ভাই আপনি কোথায়? আমি তো আপনার বাসার সামনে। খুব বাথরুম পেয়েছে। আমি রুমেই আছি, চলে আসুন। মোবাইলে লাইন কেটে দিয়ে দু’জনে আবার রিকশা নিয়ে মদিনা মার্কেটে তার বাসার কাছে পৌঁছাতে অনুপ্রাণন এর সম্পাদক নাসির উদ্দিন ও লিটল ম্যাগ অটোগ্রাফের সম্পাদক আবদুল কাদের জীবনের সাথে দেখা। আমাদের দুজনকে এক সাথে দেখে বলল কোথায় যাচ্ছি। তাদেরকে বি¯Íারিত বলতেই তারাও আমাদের সঙ্গী হয়। কলিং বেলের শব্দ হতেই সে দরজা খুলে বিস্ময় চোখে প্রশ্ন? তুমি! আমি তো ভাবছি- তার কথা শেষ হবার আগে পেছনে দাঁড়ানো নাসির ভাই, বসু ও জীবনকে দেখতে পেয়ে আরো অবাক। ঈদের দিন এরকম কিছু ঘটবে সে ভাবতেই পারিনি। রাগ না দেখিয়ে দ্রুত তৈরি হতে বলি। আমরা সবাই তার রুমে গিয়ে বসি। এলোমেলো বিছানার উপরে বই পত্র, খাতা কলম দেখে গুছাতে থাকি। টেবিলে উপরে টিফিন বক্স দেখে বুঝতে পারি নিশ্চয় মায়ের হাতে রান্না। টিফিন খুলতেই দেখি পুরোটাই খালি। লাল পাঞ্জাবীতে তোকে নতুন বরের মত লাগছে। চিরচেনা অট্টোহাসি দিয়ে বলল-কি যে বল না আপু। ঈদের দিনে আমাদের ঘুরাঘুরি অভিযান নাসির উদ্দিনের বাসা থেকে শুরু করে, ছড়াকার দেলোওয়ার হোসেন দিলু, গল্পকার সেলিম আউয়াল, কবি জান্নাতুল শুভ্রা মনি। গোধূলী বেলা শেষে আমাদের ফুফু ঔপন্যাসিক আলেয়া রহমানের বাসায়। ফুফু আমাদেরকে নাস্তা দিতেই সবাই ঝাঁপিয়ে পড়ে। কারণ দুপুর গড়িয়ে বিকেল হলেও কারোর লাঞ্চ করা হয়নি। সবার একটু বেশি ক্ষিধা পেয়েছিল তখন। তাই ফুফু যা দেয় সব শেষ। খাওয়ার সাথে চলে আমাদের আড্ডাবাজী আর ফেইসবুকে আপলোডিং। ফেবুতে ছবি দেখে ইছমত আপা কল করে বললেন. যে করেই হোক আমরা যেন তার বাসায় যাই। ফুফুকে সাথে নিয়ে কবি ইছমত হানিফা বাসায় যাই। পরে ইছমত আপাকে সাথে নিয়ে সবাই মিলে কাজিবাজার সেতু গিয়ে জড়ো হতেই কবি মাসুদা সিদ্দিকা রুহি ও কবি ধ্রুব গৌতম এসে যোগদেন। সেতুতে দাঁড়িয়ে হলুদিয়া আলোয় ২০১৬ সালে ঈদের চাঁদের সাথে সেলফিতে বন্দি হই আমরা।
৫. এতক্ষন আমি যার কথা বলছিলাম। যাকে কেন্দ্র করে ঈদের দিনটি আমাদের জম্পেশ আড্ডায় মধ্যে দিয়ে দিন কাটলো তিনি আর কেউ না। সিলেটের সাহিত্যঙ্গনে সবার পরিচিত প্রিয়মুখ তরুণ গল্পকার মিনহাজ ফয়সল। তার সাথে পরিচয় হবার আগে প্রথমে তার কবিতার সাথে পরিচয় ঘটে প্রিয় কর্মস্থল সিলেট এক্সপ্রেসের মাধ্যমে। তারপর প্রথম দেখা কেন্দ্রীয় মুসলিম সাহিত্য সংসদের সাহিত্য আসরে। তার হাসিমুখ, বিনয় আচার আচরণ যে কাউকে মুগ্ধ করবে।
৬. ফেব্রয়ারি মাস আসলেই বইমেলাকে কেন্দ্র করে লেখকদের ভেতরে একটি উৎসব চলে আসে। ২০১৭ সালে গল্পকার মিনহাজ ফয়সলের ‘মানুষ হাসতে জানে’ গ্রন্থটি হাতে পাওয়ার আগেই ফেইসবুকে দেখি বইয়ের প্রচ্ছেদ। গত ৭ ফেব্রুয়ারি সিলেটে শুরু হয় প্রথম আলো বন্ধু সভার উদ্যোগে বইমেলায়। সন্ধ্যায় সেই বইমেলা গিয়ে নাগরী স্টলে ঢুকি তার নতুন গ্রন্থটি দেখার জন্য। ‘মানুষ হাসতে জানে’ বইটি হাতে নিতেই উৎসর্গ লাইনগুলোতে চোখ আটকে যায়। চার বোনকে উৎসর্গ করেছে সে। এই চারবোনের সাথে তার রক্তের সম্পর্ক না থাকলেও আছে, আত্মার সম্পার্ক। হৃদয় আর আত্মার যে ভালোবাসা সৃষ্টি হয় সেই ভালোবাসাকে কখনো আলাদা করা যায় না। সেই চার বোনের মধ্যে আমি হচ্ছি দ্বিতীয়। বইটি উল্টেপাল্টে দেখার আগেই চোখে কোনে জল টলমল করতে থাকে। টপ করে জল পড়ার আগেই চোখের কোনটা মুছে নেই। স্টলে বাইরে দাঁড়িয়ে তখন কয়েকজনকে অটোগ্রাফ দিচ্ছে মিনহাজ। বইটি হাতে নিয়ে তার দিকে বাড়িয়ে দেই অটোগ্রাফের জন্য। মুখের দিকে তাকাতেই দেখে আমি। তুমি! কিনলে কেনা? আমি তো এমনি তোমাকে গিফট করতাম। তাকে কথা না বাড়িয়ে বললাম-অটোগ্রাফ দিবি কিনা বল। তারপর খসখস করে লিখে দিলো ‘প্রিয় ¯স্নেহময়ী আপু তাসলিমা খানম বীথি, এতো ¯স্নেহ কেন তোমার মনে? সবটুকুই আমার চাই। মিনহাজ ০৭/০২/১৭।
৭. রক্তের সর্ম্পক থাকলেই আপন হওয়া যায় না, আপন হতে হলে প্রয়োজন আত্মার সর্ম্পক। আর সেই আত্মার সর্ম্পক রয়েছে যে সকল ভাইয়েদের সাথে। যাদের হৃদয় নিড়ানো ভালোবাসা পাচ্ছি তাদের মধ্যে গল্পকার মিনহাজ ফয়সল অন্যতম। আমাদের ভাইবোনের মধ্যে রাগ অভিমানে পালা বদল চলতেই থাকে। আমার উপরে যত অভিমানই থাকুক না কেন? তাকে কোন কাজে ফোন করলে হ্যালো বলার আগেই কথা বলা শুরু হলে আর শেষ হবে না। কয়টা গল্প লেখছে, গল্পের বিষয়বস্তু কী ইত্যাদি। যেন আমার জন্যই সব জমা করে রেখেছে। তাকে কখনই পর মনে হয় না। সত্যি সত্যি যেন দুজনে একই মায়ের সন্তান।
৮. ‘মানুষ হাসতে জানে’ বইটির সর্ম্পকে কিছু কথামালা-
মানুষের জীবনের প্রতিটি পরতে পরতে কত অজানা অচেনা গল্প লুকিয়ে থাকে। যেমনটি দেখা যায় সাদা এপ্রোন গল্পটিতে- অনিচ্ছা সত্ত্বেও ঘর থেকে বের হলো শাওন। উদ্দেশ্য তিন্নিকে সারপ্রাইজ দেবে। প্রচন্ড ভালোবাসে তাকে। তিন্নিও ভালোবাসে শাওনকে। তিন্নির জন্যই শাওন তার অগুছালো জীবনকে সাজাতে পেরেছে। যার ভালোবাসার চোখে জীবন যুদ্ধের সফল হবার শক্তি পায়। আসলে ভালোবাসা একটি শক্তি, একটি প্রেরণা। ভালোবাসাই মানুষকে বাঁচিয়ে রাখে, অমর করে রাখে। পৃথিবীতে নিজেকে তখনি সবচেয়ে সুখী মনে হয়, যখন ভালোবাসার মানুষটি ভালোবেসে পাশে থাকে..!! আর তখনি নিজেকে অনেক ভাগ্যবান মনে হয়, যখন ভালোবাসার মানুষটি বিশ্বাস দিয়ে বিশ্বাস রাখে।
বইয়ের প্রতিটি পাতায় যে জীবন দেখতে পাই তা আমাদের কারো অচেনা নয়। প্রতিমুহুর্তে ঘটে যাওয়া আমাদের জীবনে প্রেম, বিরহ, আবেগ, ভালোবাসা, স্বপ্ন, সংগ্রামী জীবনের কথা ফুটে ওঠেছে এই গ্রন্থটিতে। যা সহজে পাঠকের মনে দাগ কাটবে। আমাদের জীবনের ঘটে যাওয়া বাস্তবতা প্রতিটি দৃশ্য বন্দি হয়েছে ‘মানুষ হাসতে জানে’ গল্পগুলোতে।
৯. প্রতিটি নারী হৃদয়ে লালিত থাকে একটি স্বপ্ন। ফুটফুটে এক সন্তানের মা হবার স্বপ্ন। আর সেই নারী ছেঁড়া ধনের মুখে সারাক্ষণ মা ডাকটি শুনবে। যে সন্তানের মুখের দিকে তাকিয়ে মায়ের সব কষ্টগুলো দূর হয়ে যাবে। ঠিক তেমনি একটি সন্তানের প্রতিক্ষায় প্রতিটি প্রহর কাটে নীলিমার। চোখের নোনা জলে বুক ভাসে তার। ‘ক্রন্দনে হাসি’র গল্পটিতে একজন নি:সন্তান জননীর কথা উঠে এসেছে।
‘কাঁঠাল লাগবে কাঁঠাল’ বাবার কাঁধে উঠে প্রতিটি সন্তানেরা খেলে। এ গল্পটি পড়লে যে কোন পাঠক তার শৈশবে ফিরে যাবে। আরো জানতে পারবে একজন মা কিভাবে সংগ্রাম করে দুটি সন্তানকে বড় করে তুলে। পৃথিবীতে একজন সন্তানের কাছে শ্রেষ্ঠ সম্পদ হচ্ছে তার মা বাবা। সন্তানের জন্য মায়েরা নিজের জীবন দিতে পিছপা হয় না। এরকম ঘটনা আমাদের চোখের সামনে অনেক আছে। ‘অসীমের কষ্ট’ গল্পে তেমনি একজন সংগ্রামী মায়ের কথা বলা হয়েছে।
‘মানুষ হাসতে জানে’ গ্রন্থেটিতে যে গল্পটি আমার সবচেয়ে বেশি ভালো লেগেছে, ‘একজন দর্জির স্বপ্ন যখন ফ্যানে ঝুলে’। বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ুয়া নওমির বাবা একজন দর্জি। একমাত্র মেয়ের স্বপ্ন পূরনের জন্য দিনের পর রাত, রাতের পর দিন সেলাই মেশিনে পা চালিয়েছেন। তিলতিল করে গড়ে তোলা স্বপ্ন যখন এগিয়ে যাচ্ছিলো, ঠিক তখনই নওমির জীবনে আসে কালবোশেখী ঝড়। চারদিকে সেই ঝড়ে লন্ডভন্ড হয়ে যায় দর্জিওয়ালা বাবার স্বপ্ন। মিনহাজ ফয়সল এ গল্পে একজন বাবার স্বপ্নকে কিভাবে গলাটিপে হত্যা করা হয় এবং আমাদের সমাজের বর্তমান প্রেক্ষাপটকে চৎমকারভাবে তার কলমের কালিতে ফুটে তুলেছেন।
১০.তাঁর গল্পগুলো শেষ পর্যন্ত আপনাকে হাসাবে এবং কাঁদাবে। যে কোন বয়সের মানুষের জন্য মিনহাজ ফয়সলে গ্রন্থের ১৪টি গল্প সুখপাঠ্য হবে বলে আমার বিশ্বাস। মানবিক আবেগের পাশাপাশি আমাদের আর্থসামাজিক প্রেক্ষাপটের বাস্তবতা উঠে এসেছে ‘মানুষ হাসতে জানে’ গ্রন্থের বিভিন্ন গল্পে। তার গল্পের শুরুতে ভালো লাগা সৃষ্টি হয়। তবে শেষের দিকে কোথায় যেনো একটা তাড়াহুড়া প্রবণতা লক্ষ্য করা যায়। লেখার প্রতি লেখকের আরো যত্নশীল হতে হবে। কারণ শান্তিতে থাকার জন্য ভালোবাসতে হয় আর শান্তিতে থাকার কিছু সার্বজনীন উপায় আছে, তা মেনে চলতেই হয়। হৃদয়ের সমস্ত জিঞ্জির থেকে, সমস্ত অশান্তি ও অতৃপ্তির জাল থেকে, সমস্ত ঘৃণার কাঁটাতারের বেড়ায় আটকে থাকার অসহায়ত্ব থেকে বেরিয়ে আসতে সাহায্য করে বই।
সবশেষে বলব-যে প্রজন্ম টিভি, কম্পিউটার, গেম নিয়ে ব্যস্ত থাকে, তাদের হাতে একটি বই তুলে দিয়ে আমাদের ভালোবাসাটা চারপাশে ছড়িয়ে দেই।
একজনরে-
বইয়ের নাম- মানুষ হাসতে জানে
লেখক-মিনহাজ ফয়সল
প্রকাশক- নাগরী
প্রচ্ছদ- ওয়ালিউল ইসলাম
প্রকাশকাল- অমর একুশে বইমেলা ২০১৭
মূল্য-১৪০ টাকা
পৃষ্টা সংখ্যা- ৬৩।






.: 13 July 2017 : ব্যক্তিত্ব :. (427 বার পঠিত)
তারুণ্যদীপ্ত শাদা মনের মানুষ সাংবাদিক সংগঠক বশিরুদ্দিন


SylhetExpress.com

তাসলিমা খানম বীথ: সিলেটের প্রবীণ সাংবাদিক, সংগঠক ও সাহিত্যিক মুহম্মদ বশিরুদ্দিন। বয়স ৬৩ হলেও টগবগে তরুণদের মত এখনো তিনি ছুটে বেড়ান। তার ঠোঁটের এক ফালি হাসিই প্রমাণ করে তিনি কতটা প্রাণবন্ত ও সজীব। কারো সাথে দেখা হলেই হাসিমুখে কুশলাদি জিজ্ঞাসা করেন। নবীন প্রবীণ সকল বয়সের মানুষের স ...Details...


.: 21 May 2017 : সাহিত্য-সংস্কৃতি :. (1681 বার পঠিত)
বেঁচে থাক প্রতিটি শব্দে...


SylhetExpress.com

তাসলিমা খানম বীথি: ১.আত্মার সাথে যাদের সর্ম্পক তাদেরকে কখনও মন থেকে মুছে ফেলা যায় না পৃথিবী উল্টে গেলোও। সিলেটে সাহিত্যঙ্গনে প্রিয় কিছু মুখ আছে যাদের সাথে আমার কোন রক্তের সর্ম্পক না থাকলেও আত্মার সর্ম্পক রয়েছে। জন্ম থেকে মৃত্যু পর্যন্ত যে কষ্ট আমাকে তাড়া করতো সেটি হলো একটি ভাইয়ের ...Details...


.: 9 February 2017 : সাহিত্য-সংস্কৃতি :. (2022 বার পঠিত)
একজন যুবতীর কথা...


SylhetExpress.com

তাসলিমা খানম বীথি: ১. যে মেয়েটিকে কোলে নিয়ে জাঁকিয়ে জাঁকিয়ে আল্লা, আল্লা জপতে ভালোবাসতো তার মা। দুপুরবেলা সারা শরীর তেলে জবজবা করে গোসল করাতো যে মেয়েকে তার মা। সেই মেয়েটিকে এখন ঘিরে আছে বেশ ক’জন সাংবাদিক। মেয়েটির নাম ফুলবানু। শাদা ফরশা রংয়ের চামড়া। নাদুস-নুুদুস না হলেও শরীরে এক ধরন ...Details...


.: 26 January 2017 : সাহিত্য-সংস্কৃতি :. (1487 বার পঠিত)
‘মায়ার বইন’


SylhetExpress.com

তাসলিমা খানম বীথি: ১. তার সাথে কথা বললে কখনো মনে হয় না আমি তার পর। দেখা হলেই বিনয়ী একটি হাসি আর সালাম দিয়ে কথা বলবে। কোন অনুষ্ঠানে দেখা হলেই পাশে চেয়ারে এসে বসে তার জমানো সব কথা বলতে শুরু করবে। রুহেল যখন আমার সাথে কথা বলে তখন মনে হয় আমার জন্যই সব কথা জমা করে রেখেছে দেখা হলেই বলবে। কত কথা ...Details...


.: 23 January 2017 : ব্যক্তিত্ব :. (2732 বার পঠিত)
কুয়াশা মোড়া এক স্নিগ্ধ সকালে...


SylhetExpress.com

তাসলিমা খানম বীথি: ১. মানুষের জীবনে প্রতিটি দিন যদি শুরু হতো ভালো কোন কাজ দিয়ে কিংবা পৃথিবীর সবচেয়ে ভালো মানুষটির সাথে দেখা হয়ে তাহলে কেমন হয় বলুন তো? সবার কথা জানি না। তবে আমার যেদিন এমন দিয়ে শুরু হয় সেদিন নিজেকে প্রচন্ড সুখি মানুষ মনে হয়। ঠিক আজকের দিনটি যেভাবে শুরু হয়েছে। স্যারকে ...Details...


.: 17 January 2017 : সাহিত্য-সংস্কৃতি :. (1725 বার পঠিত)
বত্রিশ বছর পর...


SylhetExpress.com

তাসলিমা খানম বীথি: ১. চুরাশি সাল, তখন ¯স্নাতক পড়ছি। রেড়িও-তে তরুণদের অনুষ্ঠান ‘নব কল্লোল’এর প্রায় নিয়মিত কথিকা পড়ি। গ্রাম উন্নয়নে তরুণ সমাজ, দার্শনিক রুশো, আত্মসম্ভ্রম-এই ধরনের বিষয় নিয়ে কথিকা। একদিনের বিষয় ছিলো মরমি কবি হাসন রাজা। লোকে বলে, বলেরে ঘরবাড়ি বালা নায় আমারৃ’ রেড়িও তো এই ...Details...


.: 9 January 2017 : ব্যক্তিত্ব :. (2635 বার পঠিত)
স্বপ্নের ফেরিওয়ালা একজন গল্পকারের কথা


SylhetExpress.com

তাসলিম খানম বীথি: ১. আমাদের তিন বোনকে আব্বা সবসময় বলেন, কখনো অন্যায়ের কাছে মাথা নত করবে না। সত্য কথা বলবে, সৎ পথে থাকবে। আর তুমি যে কাজটি করবে সেটি ভালোবেসে করবে। দুই হাতে কাজ করবে। কাজ করলে কখনও হাত ভেঙ্গে যাবে না। তোমার কাজই সফলতা এনে দেবে। তাই আমি যখনই কোন কাজ করি ভালোবেসে ও আন্তরিক ...Details...


.: 30 December 2016 : সাহিত্য-সংস্কৃতি :. (1712 বার পঠিত)
বছরের শেষ প্রান্তে দাঁড়িয়ে...


SylhetExpress.com

তাসলিমা খানম বীথি: ১. বিয়ে বাড়িতে যখন কনে বর নিয়ে হইহুলড় চলছে ঠিক সেই মুহুর্তে হারান দা’র ফোন। চিরচেনা সেই ডাক ‘কই গো’ অফিসে আছনি’ উত্তরে বললাম না দাদা, আমি তো একটি বিয়ের অনুষ্ঠানে। দাদা বললেন অনুষ্ঠান শেষ করে তোমাকে অফিসে আসতেই হবে। সন্ধ্যে সাড়ে ৬টায় মেজরটিলা থেকে সিএনজি ওঠেই মোবা ...Details...


.: 8 December 2016 : সাহিত্য-সংস্কৃতি :. (1301 বার পঠিত)
মেয়ের আবদার: বাবার শুভ কামনা


SylhetExpress.com

তাসলিমা খানম বীথি: সিলেটের সাহিত্য পাড়ায় অনেক প্রবীণ লেখককের সাথে পরিচয় থাকলেও কখনো কাউকে কিছু ডাকা হয় না। শুধু মাত্র বেলাল চাচা ছাড়া। তিনি একমাত্র ব্যক্তি যাকে আমি চাচা বলে ডাকি। কারণ তার সাথে আমার বাবার মিল খুঁজে পাই। তিনিও আমাকে তার মেয়ের মতই স্নেহ করেন। আমিও তাকে বাবার মত শ্রদ ...Details...


Next Page»: তাসলিমা খানম বীথি এর আরো লিখা »

তাসলিমা খানম বীথি এর সর্বাধিক পঠিত লিখা

.: : ব্যক্তিত্ব :. (11951 বার পঠিত)
কবিতার মাঝে জীবনবোধকে ফুটিয়ে তোলা কবি শফিকুল ইসলামের নিরন্তর সাধনা


SylhetExpress.com

তাসলিমা খানম বীথি : কবিতার মাঝে জীবনবোধকে গভীরভাবে অন্বেষণ করা কবি শফিকুল ইসলামের নিরন্তর সাধনা। জীবনের আশা-নিরাশা, হতাশা-বঞ্চনা কবিকে আন্দোলিত করলেও কবি তার কাব্য ভাবনায় কখনও বিচলিত হননি......তা তার কাব্যে সুষ্পষ্ট। প্রকৃতি ও প্রেম তার কাব্যে অফুরন্ত প্রেরণার উৎস। তরুণ হৃদয়ের অব ...Details...


.: 21 March 2016 : ব্যক্তিত্ব »মতামত (1) :. (8692 বার পঠিত)
সুমী : সিলেটের প্রথম সফল কৃতি নারী ফটো সাংবাদিক


SylhetExpress.com

তাসলিমা খানম বীথি : জন্মমাত্রই প্রতিটি মানুষ সফল। কারন স্বয়ং স্রষ্টা মানুষকে সৃষ্টির সেরা জীব হিসেবে পাঠিয়েছেন এই পৃথিবীতে। সুতরাং সফলতার জন্যই মানুষের জন্ম। সাফল্য-কৃতিত্বের মূল উৎস হলো বিশ্বাস। আর বিশ্বাস হচ্ছে এক বিপুল শক্তি, এটা কোন ম্যাজিক বা অলৌকিক ব্যাপার নয়। সাফল্য প্রত ...Details...


.: 30 April 2016 : মিডিয়া ওয়াচ :. (6502 বার পঠিত)
আম্মা বলে কেউ আর ডাকবে না....


SylhetExpress.com

তাসলিমা খানম বীথি: ১ অফিস থেকে বের হয়ে রিকশা না পেয়ে হেঁটে যাচ্ছিলাম আম্বরখানা দিকে। চৌহাট্টা যেতেই কিছুটা যানজট থাকায় হাঁটতে পারছিলাম না। হঠাৎ শুনতে পেলাম ‘আমার আম্মার লাগি রাস্তাটা বড়ো খরা লাগবো’ গলা শুনে বুঝতে পারলাম রাহমান চাচা। কারন তিনি ছাড়া আমাকে আর কেউ আম্মা বলে ডাকে না ...Details...


.: 28 July 2016 : সাহিত্য-সংস্কৃতি :. (5489 বার পঠিত)
ফুল ছবি আর কবিতা নিয়ে কাল কাটে কবি চপলের


SylhetExpress.com

তাসলিমা খানম বীথি:- চৌধুরী চপল। পুরো নাম চৌধুরী জোৎস্না পারভিন চপল। আশির দশকের গোড়ার দিকে কবিতার অঙ্গনে প্রবেশ। তার সম্পাদিত ‘মনসিক্ত’ ছিলো দুই বাংলার শ্রেষ্ঠ সংগ্রামী প্রজন্মের সেতুবন্ধন। মাসিক ‘চিরকুট’ নামের সাহিত্যপত্র তার সম্পাদনায় এক যুগেরও বেশি বয়সী হয়ে বেড়ে উঠছে। বয়সে এখন ...Details...


.: 4 December 2014 : সাহিত্য-সংস্কৃতি :. (4462 বার পঠিত)
শরতে শুভ্র মেঘের দেখা


SylhetExpress.com

তাসলিমা খানম বীথি: ১৩ সেপ্টেম্বর ২০১৪ শনিবার। অফিস থেকে একটু তাড়াতাড়ী বের হলাম। জীবনটা যেন একটি যান্ত্রীক হয়ে গেছে। শুধু কাজ আর কাজ। জীবনের আনন্দ দিনগুলো সবই যেন এই কাজের আড়ালে চাপা পড়ে গেছে। আমার সাথে নাঈমা চৌধুরী। দ্রুত যাবার জন্য আমরা দু’জন রিকশায় করে কেমুসাসের উদ্দেশ্য রওয়ান ...Details...


পাঠকের মতামত
সুমী : সিলেটের প্রথম সফল কৃতি নারী ফটো সাংবাদিক
পাঠকের মতামতঃ (1)

21 May 2016 তারিখে সালাহ্‌ আদ-দীন লিখেছেনঃ বিথিকে অনেক অনেক ধন্যবাদ, এরকম একজন মানুষকে আমাদের সাথে পরিচিত করিয়ে দেবার জন্যে! উনাকে অনেক বার দেখেছ! নামও জানতাম তবে কখনও উনার সাথে কথা হয়নি! উনাকে হলুদ জামার পড়া অবস্থায় অনেক দেখেছি! এবার উনার সম্পর্কে জেনে আরও বেশি ভাল লাগলো!

একজন মাশরাফির ভক্ত
পাঠকের মতামতঃ (1)

24 February 2016 তারিখে মিজান মোহাম্মদ সিলেট লিখেছেনঃ nice

মায়াবতী নীলা আপা
পাঠকের মতামতঃ (1)

5 February 2016 তারিখে fcmyddgd 1 লিখেছেনঃ 1

Other Pages :

 
 অন্য পত্রিকার সংবাদ
 অভিজ্ঞতা
 আইন-অপরাধ
 আত্মজীবনি
 আলোকিত মুখ
 ইসলাম ও জীবন
 ঈদ কেনাকাটা
 উপন্যাস
 এক্সপ্রেস লাইফ স্টাইল
 কবিতা
 খেলাধুলা
 গল্প
 ছড়া
 দিবস
 দূর্ঘটনা
 নির্বাচন
 প্রকৃতি পরিবেশ
 প্রবাস
 প্রশাসন
 বিবিধ
 বিশ্ববিদ্যালয়
 ব্যক্তিত্ব
 ব্যবসা-বাণিজ্য
 মনের জানালা
 মিডিয়া ওয়াচ
 মুক্তিযুদ্ধ
 যে কথা হয়নি বলা
 রাজনীতি
 শিক্ষা
 সমসাময়ীক বিষয়
 সমসাময়ীক লেখা
 সমৃদ্ধ বাংলাদেশ
 সাইক্লিং
 সাক্ষাৎকার
 সাফল্য
 সার্ভিস ক্লাব
 সাহিত্য-সংস্কৃতি
 সিটি কর্পোরেশন
 স্বাস্থ্য
 স্মৃতি
 হ য ব র ল
 হরতাল-অবরোধ

লেখালেখি
ব্রিগেডিয়ার জেনারেল জুবায়ের সিদ্দিকী (অবঃ)
আব্দুল হামিদ মানিক
শফিকুল ইসলাম
প্রা. মেট্রোপলিটান ম্যাজিষ্ট্রেট
ইকবাল বাহার সুহেল
হারান কান্তি সেন
সেলিম আউয়াল
বায়েজীদ মাহমুদ ফয়সল
এ.এইচ.এস ইমরানুল ইসলাম
জসীম আল ফাহিম
সৌমেন রায় নীল
সাকিব আহমদ মিঠু
রাহিকুল ইসলাম চৌধুরী
সালাহ্‌ আদ-দীন
ছাদিকুর রহমান
সাঈদ নোমান
জালাল আহমেদ জয়
আজিম হিয়া
মিহির রঞ্জন তালুকদার
পহিল হাওড়ী (মোঃ আবু হেনা পহিল)
শাহ মিজান
নারী অঙ্গন
নূরুন্নেছা চৌধুরী রুনী
মাহবুবা সামসুদ
আমেনা আফতাব
ইছমত হানিফা চৌধুরী
মাছুমা আক্তার চৌধুরী রেহানা
নীলিমা আক্তার
সুফিয়া জমির ডেইজী
আমিনা শহীদ চৌধুরী মান্না
রওশন আরা চৌধুরী
রিমা বেগম পপি
সালমা বখ্ত্ চৌধুরী
জান্নাতুল শুভ্রা মনি
মাসুদা সিদ্দিকা রুহী
আলেয়া রহমান
মাজেদা বেগম মাজু
নাঈমা চৌধুরী
অয়েকপম অঞ্জু
শামসাদ হুসাম
নাদিরা নুসরাত মাশিয়াত
তাসলিমা খানম বীথি

সাহিত্য-সংস্কৃতি পাতার আলোচিত লিখা
.: 2 weeks ago : নারী অঙ্গন :.
অভিমানী গল্পকার (1426 বার পঠিত)
SylhetExpress.com

তাসলিমা খানম বীথি: ১. চকচকে ঝকঝকে হাসির অন্তরালে অভিমানী একটি মুখ লুকিয়ে থাকে তার হৃদয়ে। যার প্রচন্ড অভিমান করার ক্ষমতা রয়েছে। তাকে বাইরে থেকে গুছালো মনে হলোও ভেতরে ভেতরে সে খুবই অগুছালো। কারন সে যখনই ঘর থেকে বের হয় তখন মানিব্যাগ না হয়, হাত ঘড়ি ঘরে রেখে দৌড় দেয়। তার মাথার চুল দেখলে ম Details...


.: 4 weeks ago : :.
সব সাধ পূরণ হয়না (1062 বার পঠিত)
SylhetExpress.com

সেলিম আউয়াল: আবদুর রাহমান মারা যাবার কয়েকদিন আগে, ঈদের দু’দিন না তিনদিন পর আমি আর আমার স্ত্রী তাকে দেখতে গিয়েছি ওসমানি হাসপাতালে। আবদুর রাহমান খুব শুকিয়ে গেছে। তারপরও সেদিন অন্য এক আবদুর রাহমান দেখলাম। প্রচুর কথা বললো। বললো ওর পেটে জমে উঠা পানি বের করার পর খুব ভালো লাগছে। খাবার রুচ Details...


.: 4 weeks ago : :.
একদিন সে পাখি হয়ে গেলো (891 বার পঠিত)
SylhetExpress.com

সেলিম আউয়াল: আবদুর রাহমানের সাথে আমার কোন ছবি নেই। চাচা-ভাতিজা সম্পর্কের কারনে একটু দূরত্ব। অসুস্থ হবার পর কোনদিন বলিনি, চলো আবদুর রাহমান আমরা একটি ফটো তুলি। কারন সে ভাববে এ ফটো তোলার অর্থ তাকে বিদেয় জানানো। কিন্তু আমরা তো তাকে এতো তাড়াতাড়ি বিদেয় জানাতে চাই না। আর সেওতো আমাকে প্রতি Details...


.: 3 weeks ago : :.
কুঁড়িতেই সব স্বপ্ন যাদের (565 বার পঠিত)
SylhetExpress.com

লুৎফুর রহমান তোফায়েল: দুই হাতের কর্মতৎপরতা দৃষ্টি কাড়ে যে কারও। ছন্দের তালে যেন নাচছে তাদের দুই হাত। সমান তালে চলছে হাত দু’টি। মুঠো ভরে এলে পেছনে ঝুলানো ঝুলিতে পুরে নিচ্ছেন সবটুকু। চা শ্রমিকদের এমন শৈল্পিক চা পাতা সংগ্রহের দৃশ্য অনেকেই প্রত্যক্ষ করে থাকবেন বাগানে গেলে। চা পাতাক Details...


.: 4 weeks ago : :.
সরলার আলিঙ্গন (352 বার পঠিত)

মোহাম্মদ আব্দুল হক: পথ হারালেও থাকে পথের বাঁকে অন্যপথ। ইচ্ছেহারা পথিকের রুদ্ধদ্বার বৈঠক। সহজ চলার পথ হয়েছে সদ্য প্রয়াত।কঠিনের জাল ছড়ানো সুনেত্রার চারিদিকে। সবাই কঠিনেরে ভালোবেসে হয়েছে মরুময়। রুক্ষ শুষ্ক এক গিরগিটি জীবন। চঞ্চলা তুমিও সবুজ পত্র পল্লব ছিড়ে শুষ্ক কাষ্ঠের আবর্ত Details...


.: 3 weeks ago : :.
বেঁধে জুটি (333 বার পঠিত)

মিজানুর রহমান মিজান:
ঈদের দিনে শিশুরা আনমনে
কে কার আগে হবে পরিপাঠি
প্রতিযোগিতায় সুন্দরতা নাকি?
ওর চেয়ে নিজ ভালো
যদিও তা হয় কালো
আমি সবার বড় সমবয়সী থাকি।
এঘর ওঘর যাবে খাবে
উচছ্বলতায় দিনেক চার যাবে
ভ্রমর আকুল বাগানে ফুল ফুটি।
গল্প গুজব অনেক দিন বন্ধের সনে
Details...


.: 3 weeks ago : :.
জসীম উদ্ দীন কেন আধুনিক (333 বার পঠিত)
SylhetExpress.com

হুসাইন মুহাম্মদ ফাহিম: নাগরিক জীবনের অস্থিরতা, ক্লান্তি, অবসাদ, যন্ত্রণা ও বেদনাকে ছাপিয়ে জসীম উদ্ দীনের গ্রামকেন্দ্রীক ‘নকশী কাঁথার মাঠ’ সোজন বাদিয়ার ঘাট, এক পয়সার বাঁশি, রাখালী, বালুচর, ধানখেত, রঙিলা নায়ের মাঝি, রূপবতি, মাটির কান্না, এক পয়সার বাঁশী, কাফনের মিছিল ইত্যাদি গ্রন্থগুল Details...


.: 4 weeks ago : :.
অনুগল্প: আত্মভোলা জামাই (303 বার পঠিত)
SylhetExpress.com

মুনশি আলিম: সকাল বেলা। এমরান বাড়ির পাশেই গরু দিয়ে হাল জুড়েছে। প্রায় ঘণ্টা দেড়েক পর তার স্ত্রী হেম তার জন্য ভাত নিয়ে যায়। ভাত খেয়ে বউয়ের আঁচল দিয়ে হাত মুছে। হেমও তখন পানের খিলিটা এগিয়ে দেয়। পান খেতে খেতে তখন সে মনের সুখে গান ধরে। এমরান অবশ্য উপস্থিত গান রচনা করতে পারত। গলার অবস্তা বে Details...


.: 7 days ago : :.
পিতৃহারা জাতি (296 বার পঠিত)
SylhetExpress.com

ফাহমিদা খান ঊর্মি: তখন ক্লাস নাইনে পড়ি। সেবছর থেকে আমাদের স্কুলে এবং উপজেলা পরিষদে জাতির জনকের প্রয়াণ দিবস উপলক্ষে অনুষ্ঠান আয়োজন শুরু হয়। আমি আবৃত্তি প্রতিযোগিতায় নাম দিই। কিন্তু কি কবিতা আবৃত্তি করব খুঁজে পাই না। পরে গভীর রাতে নিজেই একটা কবিতা লিখে নিলাম এবং পরদিন আবৃত্তি করলা Details...


.: 1 week ago : :.
টোল তিল জাল (278 বার পঠিত)

সরওয়ার ফারুকী:
যে-আনারে ভর করে তিলের অলি
টোলপড়া গাল দিও তারে
হও যদি মনোখেদি ইশকের বন
ডাকিও টোলেল পরি যখনতখন।
ভেজা ভেজা প্রাণ যার দিলের কুমে
তারেই ভাবিও সারাক্ষণ
রক্তকরবী ঠোঁটে চুম দিও কুমে
কাঁপায়ো অধর প্রিয় অধরের উমে।
চঙ্গল পুরা যার চোখের কুটে
মাতালামি করো তার Details...



www.SylhetExpress.com - First Online NEWS Paper in Sylhet, Bangladesh.

Editor: Abdul Baten Foisal Cell : 01711-334641 e-mail : news@SylhetExpress.com
Editorial Manager : Abdul Muhit Didar Cell : 01730-122051 e-mail : syfdianews@gmail.com
Photographer : Abdul Mumin Imran Cell : 01733083999 e-mail : news@sylhetexpress.com
Reporter : Mahmud Parvez Staff Reporter : Taslima Khanom Bithee

Designed and Developed by : A.S.H. Imranul Islam. e-mail : imranul.zyl@gmail.com

Best View on Internet Explore, Mozilla Firefox, Google Chrome
This site is owned by Sylhet Sifdia www.sylhetexpress.com
copyright © 2006-2013 SylhetExpress.com, All Rights Reserved