সারা বছরই অরক্ষিত থাকে বানিয়াচঙ্গের শহীদ মিনার

প্রকাশিত : ১৭ ফেব্রুয়ারি, ২০২০     আপডেট : ৫ মাস আগে

মখলিছ মিয়া, বানিয়াচং থেকে \ আর ক’দিন পরই পালিত হবে মহান ২১শে ফেব্রæয়ারী আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস। ১৯৫২ সালে এ দিনে পাকিস্তানী শাসকগোষ্ঠি নির্বিচারে গুলি চালিয়ে শহীদ করেছিল বাংলার দামাল ছেলে সালাম, বরকত, রফিক, জব্বার ও শফিউরকে। আহত হয়েছিলেন নাম না জানা আরো অনেক। প্রাণের বিনিময়ে বিশ্বের বুকে স্থান করে নেয় মাতৃভাষা বাংলা। ভাষা শহীদদের স্মরণে জায়গায় জায়গায় নির্মিত হয় শহীদ মিনার। কিন্তু দুঃখজনক হলেও সত্য বানিয়াচং বড় বাজারস্থ শহীদ মিনার দীর্ঘদিন যাবত অরক্ষিত। ২১শে ফেব্রæয়ারি আসলেই কদর বাড়ে শহীদ মিনারের। এরপর আর যেন দায় নেই সংশ্লিষ্ট কতৃপক্ষের। সারা বছরই পবিত্র শহীদ মিনারের প্রাঙ্গন থেকে অরক্ষিত। শহীদ মিনারের পবিত্রতা বজায় রাখুন মর্মে সাইনবোর্ড সাঁটানো হয়েছে। কে শোনে কার কথা ! শহীদ মিনার অরক্ষিত থাকায় সারা বছর মলমূত্র ত্যাগ করছে বাজারে আগত একশ্রেণির মানুষ। ফলে শহীদ মিনারের পবিত্রতা নষ্ট হচ্ছে। এ নিয়ে জনসাধারণের মধ্যে ক্ষোভ বিরাজ করছে। এ ব্যাপারে বানিয়াচং উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ মামুন খন্দকার জানান, শহীদ মিনারের কেউ যেন পবিত্রতা নষ্ট না করে সে ক্ষেত্রে সেখানে সাইন বোর্ড সাঁটানো হয়েছে। এ পবিত্রতম স্থানের মর্যাদা যেভাবেই হোক রক্ষা করতে হবে। প্রয়োজনে মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করা হবে। তা ছাড়া উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে প্রাচীর দেওয়ার চেষ্টা চলছে। এ ক্ষেত্রে স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ও সেখানকার ব্যবসায়ীরা এগিয়ে আসতে হবে।

আরও পড়ুন