২০ কোটি টাকা আত্মসাৎ মামলার আসামি গ্রেফতার

প্রকাশিত : 01 December, 2019     আপডেট : ২ সপ্তাহ আগে  
  

সিলেটে ১৭ পদাতিক ডিভিশনের সেনানিবাস স্থাপনের জন্য জেলা প্রশাসক কার্যালয় থেকে অধিগ্রহণকৃত জমির ২০ কোটি টাকা আত্মসাতের মামলার এক আসামিকে গ্রেফতার করেছে পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগের (সিআইডি) একটি দল।

রোববার বিকেলে নগরী থেকে আবিদ উদ্দিন (৫৫) নামের ওই ব্যক্তিকে গ্রেফতার করা হয় বলে জানান সিআইডি সিলেট জোনের সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার মো. এমরান আলী পিপিএম। গ্রেফতার আবিদ জেলার গোলাপগঞ্জ উপজেলার বাঘার রুস্তমপুর এলাকার ডা. আমিন উদ্দিনের ছেলে।

সূত্র জানায়, সেনানিবাসের জন্য অধিগ্রহণকৃত ভূমির ক্ষতিপূরণের টাকার মধ্যে ২০ কোটি টাকা প্রকৃত মালিকদের না দিয়েই আত্মসাৎ করে নেন আবিদ। এ ঘটনার পর ২০১৮ সালের ৩ আগস্ট কোতোয়ালী মডেল থানায় মামলা দায়ের করেন সিলেট সদর উপজেলা ভূমি অফিসের ভূমি অধিগ্রহণ কর্মকর্তা মামুনুর রহমান।

থানার এসআই (নিরস্ত্র) সাব্বির আরাফাত জনি প্রথমে এ মামলা তদন্তের দায়িত্ব পান। পরে তা গোয়েন্দা বিভাগের হাত হয়ে পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগের কাছে তদন্তের ভার পড়ে।

দীর্ঘ তদন্তের পর রোববার মামলার একমাত্র আসামি আবিদকে গ্রেফতার করা হয়।

মামলার এজহার সূত্রে জানা যায়, সিলেট জেলাধীন ১৭ পদাতিক ডিভিশনের ক্যান্টনমেন্ট নির্মাণের জন্য জেলা প্রশাসকের কার্যালয় এল. এ মামলা নং ০১/২০১৩-১৪ মূলে ভূমি অধিগ্রহণ করা হয়। অধিগ্রহণকৃত ভূমির ক্ষতিপূরণের জন্য ভূমির প্রকৃত মালিকদের নির্ধারিত পরিমাণ টাকা প্রদান করা হয়। কিন্তু দাবিদারদের মধ্যে আবিদ উদ্দিন বিভিন্ন ব্যক্তির জাতীয় পরিচয়পত্র, জালিয়াতির মাধ্যমে জাল আমমোক্তারনামা তৈরি করে এর সাথে জাল দলিলাদিসহ সংযুক্ত করে তা দাখিলের মাধ্যমে ২০ কোটি টাকা উত্তোলন করেন।

পরবর্তীতে সিলেটের অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার (রাজস্ব) মৃণাল কান্তি দেব ভূমি অধিগ্রহণ শাখা পরিদর্শন করলে বিষয়টি ধরা পড়ে। এরপর তিনি একটি প্রতিবেদনে জালিয়াতির বিষয়টি উল্লেখ করলে ভূমি অধিগ্রহণ কর্মকর্তা মামুনুর রহমান বাদী হয়ে মামলাটি দায়ের করেন।

এদিকে ক্ষতিপূরণের টাকা আদায়ে সম্প্রতি সিলেট সদর উপজেলার খাদিমপাড়া ইউনিয়নের মুরাদপুর বাজারস্থ হাজিরাই, আমধরপুর, হাতিমনগর মৌজার ক্ষতিগ্রস্ত ভুমি মালিকরা সংবাদ সম্মেলন করেছেন।

গত ২০ সেপ্টেম্বর এলাকার সর্বস্তরের বিশেষ করে ক্ষতিগ্রস্ত ভূমি মালিকদের নিয়ে হাজী মোঃ আজমল আলীকে সভাপতি, মোঃ নিজাম উদ্দিনকে সাধারণ সম্পাদক করে ১১ সদস্য বিশিষ্ট অধিগ্রহনকৃত ভূমির ক্ষতিপূরণ প্রাপ্তি ও অধিকার বাস্তবায়ন কমিটি গঠনও করেন।

বৃহত্তর দাবী আদায়ের লক্ষ্যে নবগঠিত কমিটির মাধ্যমে এলাকাভিত্তিক গণসংযোগ, মানববন্ধন, প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করে স্মারকলিপি প্রেরণ, ডিসি অফিস ঘেরাও সহ অনশন কর্মসূচি পালন করা হবে। অচিরেই ক্ষতিগ্রস্ত ভূমি মালিকদের সার্বিক পরিস্থিতি বিবেচনা করে ক্ষতিপূরনের টাকা প্রদানের জন্য সংশ্ল্ষ্টি কর্তৃপক্ষের নিকট জোর দাবী জানান তারা।

আরও পড়ুন