১১৬ জনের নমুনা নিয়ে প্রবাসী অধ্যুষিত সিলেটে কোভিড-১৯ ল্যাব চালু

প্রকাশিত : ০৭ এপ্রিল, ২০২০     আপডেট : ২ মাস আগে  
  

নিজস্ব প্রতিবেদক ঃ- ১১৬ জনের নমুনা নিয়ে সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজে প্রাণঘাতি করোনাভাইরাস (কোভিড-১৯) সনাক্তকরণ মেশিন পিসিআর-এর কার্যক্রম শুরু হয়েছে। মঙ্গলবার দুপুরে এর কার্যক্রম চালু করা হয়।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে ওই ল্যাবের জন্য প্রয়োজনীয় সহযোগিতার আশ্বাস প্রদান করেছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন। আজ মঙ্গলবার (৭ এপ্রিল) উদ্বোধনী অনুষ্ঠান চলাকালীন তিনি মোবাইল ফোনে ভিডিওকলের মাধ্যমে বক্তৃতা প্রদানকালে এ সহযোগিতার আশ্বাস দেন।

এসময় পররাষ্ট্রমন্ত্রী সিলেটের জেলা প্রশাসন, সিটি করপোরেশন ও চিকিৎসকদের অশেষ ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানিয়েছেন।

সিলেট ওসমানী হাসাপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল ইউনুসুর রহমান ও মেডিকেল কলজের অধ্যক্ষ ডা. ময়নুল হক এসময় পররাষ্ট্রমন্ত্রীর প্রতিও কৃতজ্ঞতা জানিয়ে বলেন, আপনার প্রচেষ্টায়ই আমরা সিলেটে করোনা পরীক্ষার ব্যবস্থা পেয়েছি।

পরে হাসপাতাল পরিচালক ল্যাবের সরঞ্জাম চাহিদা তুলে ধরে পররাষ্ট্রমন্ত্রীকে তারা বলন, আমাদের কাছে এখন ১ হাজারের উপর কিট মজুদ আছে। তবে আমাদের এন-৯৫ মাস্কের কিছুটা সঙ্কট রয়েছে।

চাহিদা শুনে পররাষ্ট্রমন্ত্রী স্বাস্থ্য মন্ত্রণালায়ের সঙ্গে আলোচনা করে দ্রুত সেগুলো পূরণের আশ্বাস প্রদান করেন। পাশাপাশি করোনার এই দু:সময়ে স্থানীয় সকল আওয়ামী লীগ নেতা, স্বাস্থ্যসেবায় নিয়োজিত সকল শ্রেণির লোক ও প্রশাসনের ব্যক্তিবর্গের প্রশংসা করেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী।

 

এ প্রসঙ্গে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ এবং মাইক্রোবায়োলজি ও ভাইরোলজি বিভাগের বিভাগীয় প্রধান অধ্যাপক ডা.মো. ময়নুল হক জানান, সিলেটে করোনা শনাক্তকরণ পরীক্ষা হলেও পরীক্ষার ফলাফল সিলেট থেকে দেওয়া হবে না। পরীক্ষার ফলাফল পাঠানো হবে মহাপরিচালক স্বাস্থ্য ও জাতীয় রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠানের (আইইডিসিআর)-এ। তারা প্রাত্যহিক ব্রিফিং এই রিপোর্টগুলো প্রকাশ করবেন বলে জানান তিনি।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে  সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ অধ্যাপক ডাঃ মঈনুল হক  জানান, সিলেট সিটি করপোরেশনের মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী আজ সিলেটে করোনাভাইরাসে শনাক্তের ল্যাবের জন্য ২০ জোড়া জুতা প্রদান করেছেন, যা আমাদের ল্যাবের জন্য খুবই দরকারি ছিল।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠান শেষে সিলেট এক্সপ্রেসকে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ অধ্যাপক ডাঃ মঈনুল হক  জানান, এই পরীক্ষা করাতে কোনো ফি দেওয়া লাগবে না।তবে এই পরীক্ষা সর্বসাধারণের জন্য উন্মুক্ত নয়। চিকিৎসকরা যাদের পরীক্ষার প্রয়োজন মনে করবেন এবং সিলেট বিভাগের ৪টি জেলার বিভিন্ন উপজেলা থেকে যে নমুনাগুলো আসবে সেগুলো এখানে পরীক্ষা করা হবে।

সংশ্লিষ্টরা জানান, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার(ডাব্লিউএইচও) গাইড লাইন অনুযায়ী কোভিড-১৯ পরীক্ষার জন্য ওসমানী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল ইউনুছুর রহমানকে উপদেষ্টা ও ওসমানী মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ ডা. মঈনুল ইসলামকে সভাপতি, সহকারী অধ্যাপক সৈয়দ আনোয়ারুল হক-কে সদস্য সচিব করে ৩১ সদস্য বিশিষ্ট একটি কমিটিও গঠন করা হয়েছে।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠান শেষে  ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল ইউনুছুর রহমান জানান, দেশের অন্য স্থানে করোনাভাইরাস (কোভিড-১৯) পরীক্ষার ল্যাব স্থাপনে যে সময় লেগেছে-এর চেয়ে কম সময়ে এ মেডিকেল ল্যাব স্থাপিত এবং কার্যক্রম শুরু করা হয়েছে। তিনি ল্যাব স্থাপনে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের উপ-পরিচালক ডাঃ হিমাংশু লাল রায়এর পরিশ্রমের জন্য ধন্যবাদ জানান। সকলের সম্মিলিত প্রচেষ্টার ফলে এক সপ্তাহের মধ্যে ল্যাব স্থাপনের কাজ শেষে আজ মঙ্গলবার থেকে এটি চালু করা সম্ভব হয়েছে ।গত ৩০ মার্চ মেশিনটি সিলেট এসে পৌঁছে। এরপর থেকে শুরু হয় ল্যাব এর কাজ।

সিলেটের সিভিল সার্জন ডা. প্রেমানন্দ মণ্ডল বলেছেন, ইতিমধ্যে চার ঘন্টায় আমাদের কাছে করোনাভাইরাসের পরীক্ষা করার জন্য প্রচুর নমুনা এসেছে। প্রথমে তিনটি লেভেলের প্রসেস শেষে পিসিআর মেশিনে দেওয়ার পর ১৪৫ মিনিট সময় লাগবে এই টেস্ট করতে। সবমিলিয়ে চার ঘন্টা লাগবে এই টেস্ট সম্পন্ন করতে। এক সাথে ৯৬টি নমুনা পরীক্ষা করা যাবে। চার ঘন্টা পর পরীক্ষার রিপোর্ট পাওয়া যাবে।

 

আরও পড়ুন



মাদকের বিরুদ্ধে তরুণদেরকে আরো সচেতন করতে হবে

সিলেট এক্সপ্রেস ডেস্ক: আমাদের তরুণ...

মে দিবসে স্ববেতনে ছুটি কার্যকর করুন

সিলেট এক্সপ্রেস ডেস্ক: সমাজতান্ত্রিক শ্রমিক...