১সপ্তাহের মধ্যে পানির বিল পরিশোধ, সকল অবৈধ লাইন বৈধ করুন-মেয়র

প্রকাশিত : ০৫ মে, ২০১৮     আপডেট : ২ বছর আগে  
  

সিসিক মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী সাত দিনের মধ্যে সিলেট সিটি করপোরেশনের (সিসিক) পানির বকেয়া বিল পরিশোধ এবং সকল অবৈধ লাইন বৈধ করার সময় বেঁধে দিয়েছেন । না হলে কঠোর আইন প্রয়োগ করার হুঁশিয়ারি দিয়েছেন। ৫ মে, শনিবার সন্ধ্যায় নগর ভবনে এক জরুরি সংবাদ সম্মেলনে একথা বলেন।

সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, সিলেট সিটি করপোরেশন (সিসিক) এলাকায় আবাসিক, বাণিজ্যিক ও সরকারি প্রায় সাড়ে ১৪ হাজার বৈধ সংযোগ রয়েছে। এসব সংযোগের অধিকাংশ গ্রাহক ৭-৯ বছর ধরে বিল পরিশোধ করছেন না। ফলে সিসিকের পানির বকেয়া বিল দাঁড়িয়েছে ১০ কোটি ৮৬ লাখ ২৭১ টাকা। আর অবৈধ সংযোগের ফলে নগরীতে দেখা দিচ্ছে পানির সংকট।

সংবাদ সম্মেলনে সিসিক মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী অবৈধ সংযোগ বৈধ ও বকেয়া বিল পরিশোধের জন্য গ্রাহকদের সাত দিনের সময় বেঁধে দেন। তিন দিনের মধ্যে অবৈধ মোটর সরানোর জন্য অনুরোধ করেন তিনি। আবাসিক গ্রাহকরা বকেয়া বিল একসঙ্গে না পারলে কিস্তিতে পরিশোধের সুযোগও দেন মেয়র। এ সময়ের মধ্যে বিল পরিশোধ করলে আবাসিক গ্রাহকরা ৩০% ছাড় পাবেন। অন্যথায় অভিযান চালিয়ে জরিমানাসহ মালিকদের শাস্তি প্রদানের কঠোর হুঁশিয়ারি দেন মেয়র।

আরিফুল হক চৌধুরী জানান, এর আগে শনিবার সকালে পানির সমস্যার কারণ খুঁজতে গিয়ে তিনি দেখেন নগরীর পানির সংযোগের বেশিরভাগই অবৈধ। অত্যন্ত দুঃখজনক হলো, ১০-টি বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠান পরিদর্শন করলে মাত্র একটি বৈধ কাগজপত্র দেখাতে সক্ষম হয়। বাকিরা কোনো কিছুই দেখাতে পারেনি। তাদের মোটর জব্দ করা হয়েছে। তারা যদি রবিবারের মধ্যে কাগজপত্র দেখাতে না পারে তাদের ব্যাপারে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এ সম্পর্কে মেয়র আরিফ বলেন, ‘দেশের অন্যান্য শহরের তুলনায় মাত্র দুইশ’ টাকা পানির বিল সবচেয়ে কম। একটি অসাধু চক্রের ষড়যন্ত্রের কারণে সামান্য বিলটিও পরিশোধ করছেন না অধিকাংশরা। খোঁজখবর নিয়ে জানতে পারলাম, বিল পরিশোধ না করতেই রাতের আঁধারে বাইরের লোক দিয়ে রাস্তা কেটে কতিপয় অসাধু লোকজন এসব সংযোগ নিচ্ছেন। বিল তো দিচ্ছেন-ই না, বরং যার একটি বৈধ সংযোগ আছে, সে দুটি অবৈধ সংযোগ নিয়ে রাখছে। এসব ব্যাপারে নগরবাসী সচেতন না হলে পানির সমস্যা সমাধান করা সম্ভব নয়।’

মেয়র আরও বলেন, ‘নগরবাসী হোল্ডিং ট্যাক্স ও পানির বিল নিয়মিত পরিশোধ করলে আমরা উন্নয়নের ধারাবাহিকতা রক্ষা করতে পারব। পানির সমস্যা সমাধানে সিসিক আরেকটি প্রকল্প হাতে নিয়েছে। এখন থেকে সিসিকের তালিকাভুক্ত লোক ছাড়া পানির সংযোগ নেওয়া যাবে না।’

আরও পড়ুন



আওয়ামী লীগে যোগ দিলেন বিএনপির ইনাম চৌধুরী

আওয়ামী লীগে যোগ দিলেন বিএনপির...

কুলাউড়ায় রিকশা শ্রমিক ইউনিয়নের সভা

মৌলভীবাজার জেলা রিকশা শ্রমিক ইউনিয়ন...

সৃজনশীলতা অর্জন-বিকাশে অধ্যয়ন-পর্যবেক্ষণ লেখকের বড়ো হাতিয়ার

লেখকরা সৃজনশীল। তবে সৃজনশীলতা অর্জন-বিকাশের...