হবিগঞ্জের কৃতি পুরষ ও শহীদ পরিবারের সন্তান প্রফেসর মারফ যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামীলীগের জয়েন্ট-সেক্রেটারীতে

,
প্রকাশিত : ০৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৯     আপডেট : ১ বছর আগে
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

অন্তর্ভুক্ত, এবং কিছু কথা ঘরে স্ত্রী ও সন্তানদের তোয়াক্ষা না করে,মাতৃভুমিকে শত্রুমুক্ত করতে দেশকেস্বাধীন করার লক্ষ্যে জীবন ও সংসারের মায়া ত্যাগ দিয়ে সেদিন ১৯৭১ সালে যুদ্ধে ঝাঁপিয়ে পড়েছিলেন হবিগঞ্জের মাধবপুরের বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল কাদিম মিয়া শুধু একা যুদ্ধ করেননি, একটা ক্যাম্পের ম্যানেজারের দায়িত্বেও ছিলেন তিনি। কাতলামারা ক্যাম্পে তাঁর দায়িত্ব ইতিহাস হয়ে থাকবে যুগ যুগ ধরে সেদিন দেশ স্বাধীন করে লাল সবুজের পতাকা হাতে বিজয়ের হাসি নিয়ে বিজয়ী বীরের বেশে ঘরে ফিরলেন বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল কাদিম মিয়া। কিন্তু তাঁর সেই হাসি দীর্ঘস্থায়ী হলোনা। এলাকার কুখ্যাত রাজাকার সৈয়দ কায়সার ও পাকিস্তানি বাহিনী মিলে কাদিম মিয়ার বাড়ীতে আক্রমণ করে তাঁহাকে না পেয়ে তাঁর ১৪ বছরের বালিকা মোছা. হুন্দাতুন্নেছাকে ধরে নির্মম ভাবে অমানষিক নির্যাতন করে হত্যা করে এবং তার বাড়ীর ঘরে আগুন দিয়ে পোড়ে ছারকার করে দিয়েছিলো। সেদিন দেশকে রক্ষা করলেও, নিজের ঘর ও মেয়েকে রক্ষা করতে পারেননি, সেই যন্ত্রণা ও কষ্টে তাঁর বিজয়ের হাসি থেমে গিয়েছিল। অন্যদিকে তাঁর স্ত্রী দুই মাস বাকশক্তি হারিয়ে বোবা হয়েছিলেন। মায়ের চোখের সামনে মেয়েকে নির্যাতন করে হত্যার নির্মম স্মৃতি তিনি ভুলতে পারেননি, মেয়েকে হারানোর প্রায় ৩৪ বছর পর বিগত ২০০৫ সালে সেই জননী ইহকাল ত্যাগ করেছেন। মৃত্যুর আগ পর্যন্তও মেয়ের জন্য কান্না করেছেন। কুখ্যাত সৈয়দ কায়সার যুদ্ধাপরাধী মামলায় বর্তমানে কারাবরণে রয়েছেন। তবে, তার সর্বোচ্চ শাস্তি মৃত্যুদন্ড হলেই শহীদ হুন্দাতুন্নেছার পরিবার খুশী হতো এবং সেই আশায় তারা আছেন। বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল কাদিম মিয়ার কনিষ্ঠ সন্তান ও শহীদ হুজাতুন্নেছার ভ্রাতা এবং নিউইয়র্ক ডিব্রাই বিশ্ব বিদ্যালয়ের প্রফেসর মোহাম্মদ মারুফ মিয়া দীর্ঘ প্রায় পঁচিশ বছর যাবত যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কে বসবাস করছেন প্রবাাসে থেকেও দেশের প্রতি ও দেশের মানুষের প্রতি তাঁর ভালবাসার টানের কমতি নেই শেখ কামাল স্মৃতি পরিষদ যুক্তরাষ্ট্র শাখার সিনিয়র ভাইস-প্রেসিডেন্ট,হবিগঞ্জ জেলা কল্যাণ সমিতি যুক্তরাষ্ট্র ইনকের কনভেনার, বাংলাদেশ অন-লাইন আওয়ামী টিমের চিপ-এ্যাডভাইজর সহ সামাজিক ও রাজনৈতিক সংগঠনে তিনি যথেষ্ট ভুমিকা পালন করে আসছেন নিরলস ভাবে। গত জুলাই মাসে প্রফেসর মারুফ মিয়াকে মুক্তিযুদ্ধের স্বপক্ষের দল বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের যুক্তরাষ্ট্র শাখার জয়েন্ট সেক্রেটারী হিসেবে অন্তর্ভুক্তি করে এই শহীদ পরিবারের প্রতি সম্মান প্রদর্শন করার জন্য সংগঠনের প্রেসিডেন্ট ড. সিদ্দিকুর রহমান ও সংস্লিষ্ট সবাইকে শহীদ পরিবার ও তাঁর গুনগ্রাহী সবাই অসংখ্য ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানিয়েছেন।


  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

আরও পড়ুন

বিশ্বকাপের ট্রফি দেখলো সিলেটবাসী

          আগামী বছরের ৩০ মে...

সিলেট কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে কৃষক লীগের সভাপতি

         সিলেট কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় পরিদর্শনে এসেছেন...

তরুণ তরুণীদের সচেতনের লক্ষ্যে উন্নয়ন মেলায় মাদকদ্রব্য অধিদপ্তর

         ‘উন্নয়নের অভিযাত্রায় অদম্য বাংলাদেশ’ এই...

মোজতবা রুম্মান চৌধুরীর ইন্তেকালঃআজ জানাজা

15        15Shares জাবেদ আহমদ করোনাকালের শুরু...