স্টেইট ডিপার্টমেন্টে মুশফিক আনসারীর মুগ্ধতার ছোঁয়া মিলে

,
প্রকাশিত : ২৮ নভেম্বর, ২০২০     আপডেট : ১১ মাস আগে
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সাঈদ চৌধুরী :
জাতিসংঘ ও স্টেইট ডিপার্টমেন্টের প্রেস কোরের সদস্য, জাস্ট নিউজ বিডি ডটকমের সম্পাদক, সাংবাদিক ও সুবক্তা মুশফিকুল ফজল আনসারী করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। কোভিড-১৯ পজিটিভ হওয়ায় ওয়াশিংটনের বাসায় আইসোলেশনে রয়েছেন। কামনা করি, মহান আল্লাহ তাকে দ্রুত আরোগ্য দান করুন।
মুশফিকুল ফজল আনসারী সিলেটের নতুন প্রজন্মের তারকা লেখক। সাবেক প্রধানমন্ত্রীর সহকারী প্রেস সচিব হিসেবে তার রাজনৈতিক পরিচয় থাকলেও মূলত তিনি মেধাবী সাংবাদিক ও সুবক্তা। তিনি যখন তরুণ লেখক হিসেবে সিলেটে বিচরণ করতেন, তখনই সতীর্থদের দৃষ্টি আকর্ষণ করতে সক্ষম হন। নিজস্ব বলয়ে প্রতিদিনের সরবতা ও কর্মতৎপরতা রীতিমত উৎসবে পরিণত করেছিলেন। এই শহর টের পেত তার কোলাহল। এরপর রাজধানী ঢাকায় গিয়ে অর্জন করে নিয়েছিলেন একজন লেখকের নক্ষত্রলোক।
মুশফিকুল ফজল আনসারী ধাপুটে সাংবাদিক। রাজনীতির অন্দর মহলে ছিল তার বিচরণ। হয়েছেন আমলাতন্ত্রের অন্ত:পুরের ঘটনাপুঞ্জির প্রত্যক্ষদর্শী। রাষ্ট্রযন্ত্রের আদি সমালোচক হিসেবে সাড়া জাগিয়েছেন। আবার প্রিয়ভাজন হয়েছেন রাষ্ট্রের সর্বোচ্চ মহলের। হয়েছেন বেগম খালেদা জিয়ার আস্থাভাজন। এভাবেই এগিয়ে গেছেন স্বল্প দিনে, অল্প বয়সে।
মুশফিকুল ফজল আনসারী জীবনযাপনের ও লেখালেখির সমগ্রতায় দেখার যোগ্যতম মানুষ। রাজনীতির সমস্ত মানুষের সঙ্গে এত ঘনিষ্ঠতা, অথচ ভিতরে ভিতরে একজন পরিপূর্ণ লেখক ও গবেষক।
স্টেইট ডিপার্টমেন্টের প্রেস কন্ফারেন্সে তার প্রজ্ঞাবান প্রশ্নে জর্জরিত হন আমেরিকার জাদরেল সব রাজনীতিক। বিশ্বের বিভিন্ন দেশের বিখ্যাত সাংবাদিকদের সাথে থাকেন সামনের কাতারে। অনবদ্য এই কর্মবীরের দক্ষতায় মুগ্ধতার ছোঁয়া মিলে প্রতিদিন, প্রতিক্ষণ।
মুশফিকুল ফজল আনসারী সার্বক্ষণিক সৃজনশীল লেখালেখির সাথে যুক্ত। তার বই বেরিয়েছে। কাটতিও ভাল। একজন লেখকের কাছে এর চেয়ে বড় আনন্দের আর কি হতে পারে।
মুশফিকুল ফজল আনসারী জনপ্রিয় বক্তা। অডিয়েন্স বা দর্শক-শ্রোতাদের ধরণ ও মনোভাব বিবেচনায় পটু বলা যায়। শ্রোতাদের মনে হয়, তার মনের অব্যক্ত কথাগুলা বক্তার ভাবনায় আছে। অকপটে দূর্দান্ত বক্তব্য রাখেন তিনি। মুখের বাচন ভঙ্গি ও শারীরিক অঙ্গ ভঙ্গিতে তেজ আছে। জড়তা ও সংকোচ ছাড়া কথাবার্তা বলেন। আলোচনায় নিজের উপরে আত্ম বিশ্বাস রাখেন। জ্ঞানগর্ভ বিশ্লেষণ প্রদানের সুখ্যাতি আছে। তার বক্তব্য শ্রোতারা মুগ্ধ হয়ে শুনেন এবং উজ্জীবিত হন।
মুশফিক আমার বন্ধু গল্পকার সেলিম আউয়ালের শালা। তখন অনেক ছোট ছিলেন। বিয়ের সময় আয়োজনে ও প্রয়োজনে জড়িত ছিলাম। মুশিফক ছিলেন স্নেহভাজন, তারপর প্রিয়ভাজন আর এখন গর্বের। তার ভাই আবু সাঈদ আনসারী আরো ছোট। এখন জুমআর খুতবায় এবং টেলিভিশনে তার ইসলামিক আলোচনা বা উপস্থাপনায় মুগ্ধ হতে হয়। এটাই আমাদের সামাজিক অগ্রগতির দৃপ্ত প্রকাশ। একটি আলোকিত আনসারী পরিবারের বিকাশ। মহান আল্লাহ এই ক্রম বিকাশমান ধারাটি অব্যাহত রাখুন। আমীন।


  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

আরও পড়ুন

স্বাধীনতা দিবসে শহীদ মিনারে সিলেট মহানগর বিএনপির শ্রদ্ধা নিবেদন

        সিলেট এক্সপ্রেস ডেস্ক: মহান স্বাধীনতা...

মঞ্চে কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ

        সিলেট জেলা ও মহানগর আওয়ামী...

পানসি রেস্টুরেন্টকে সাড়ে ৩ লাখ টাকা জরিমানা

        খাবারে কাপড়ের রঙ মেশানো, পঁচা...

খোঁজ মিলেছে আবু ত্ব-হার

        প্রায় সপ্তাহখানেক নিখোঁজ থাকার পর...