সেদিন চমৎকার ছড়াগ্রন্থ তুলে দিলেন ছড়াকার বদরুল

,
প্রকাশিত : ০৬ নভেম্বর, ২০১৮     আপডেট : ২ বছর আগে
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সাঈদ চৌধুরী: সিলেট নগরির ভার্থখলা খান মন্জিল নিবাসী বদরুল আমার খালাত ভাই ও গণমানুষের কবি দিলওয়ারের ভাতিজা। সেই ছোটবেলা থেকে এক ধরণের সখ্যতা ছিল আমাদের। মানুষ হিসেবে তিনি ছিলেন একটু ব্যতিক্রম, একটু আলাদা। সব সময় নিরব ও নিরহংকার। এক কথায় সাদা মনের মানুষ। সিরাতুল মুস্তাকিম ছিল তার চলার পথ। বিশিষ্ট ছড়াকার অধ্যাপক বদরুল আলম খান চলে গেছেন না ফেরার দেশে। ইন্না- লিল্লা-হি ওয়া ইন্না- ইলাইহি রা-জিউ’ন।
বদরুল আলম খান ছিলেন একজন ভালো ছড়াকার। তার প্রতিটি লেখায় রয়েছে বিষয়বস্তুর অভিনবত্ব, সুশৃঙ্খল মাত্রাজ্ঞান, সাবলীল ছন্দবিন্যাস এবং চমৎকার অন্ত্যমিল।আমাদের জীবন বা পরিবেশের অনেক কঠিন বিষয় বস্তুকে সহজভাবে প্রকাশ করার দক্ষতা ছিল তার।
এই সেদিন চমৎকার ছড়াগ্রন্থ সমূহ আমার হাতে তুলে দিলেন। বদই বৃত্তান্ত, আয় ছেলেরা আয় মেয়েরা, জলের প্রাণী মৎস্য, সারার জন্য ছড়া, নিহার জন্য ছড়া, পাখি সব করে রব – সত্যিই মন ছুঁয়ে যাবার মতো।
বদরুল আলম খানের মত মহৎ মানুষকে হারানোর শোক সইবার নয়। তার পরিবার ও কর্মস্থলের সকলেই আমার মত নিরবে অশ্রুসিক্ত হবেন। মহান আল্লাহ তার এই কৃতি বান্দাকে জান্নাতুল ফেরদাউস দান করুন।


  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

আরও পড়ুন

আশকার আমিন রাব্বীকে ফটো জার্নালিস্টের অভিনন্দন

         বাংলাদেশ ফটো জার্নালিস্ট এসোসিয়েশন সিলেট...

চিন সফর শেষে দেশে ফিরেছেন কামরান,বিমান বন্দরে সংবর্ধনা

          বাংলাদেশ সরকারের প্রধানমন্ত্রী শেখ...

লিডিং ইউনিভার্সিটিতে ভার্চুয়াল সেমিনার অনুষ্ঠিত

         শিক্ষার্থী এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতি শিক্ষকদের...

ঐতিহ্যবাহী আলী আমজাদের ঘড়ি প্রায় এক বছর ধরে বিকল। সিলেট নগরের চাঁদনীঘাট এলাকায়।

থেমে গেছে আলী আমজদের ঘড়ির কাঁটা

         চাঁদনী ঘাটের সিঁড়ি/ আলী আমজদের...