সিলেট কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক সমিতির নির্বাচন অনুষ্ঠিত

,
প্রকাশিত : ২৪ ফেব্রুয়ারি, ২০২১     আপডেট : ৯ মাস আগে
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সিলেট কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতি কার্যনির্বাহী কমিটির নির্বাচন ২০২১ অনুষ্ঠিত হয়েছে। নির্বাচনে গণতান্ত্রিক শিক্ষক পরিষদের সকল প্রার্থী জয়ী হয়েছেন বলে জানিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয়ের জনসংযোগ ও প্রকাশনা দপ্তর। সভাপতি পদে জয়লাভ করেছেন প্রফেসর ড. মোঃ নজরুল ইসলাম এবং সাধারণ সম্পাদক পদে জয়লাভ করেছেন প্রফেসর ড. মোঃ বাশির উদ্দিন। সভাপতি ড. নজরুল ১৪৯ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হলেন, তাঁর নিকটতম প্রতিদ্বন্দী ছিলেন সাদা দলের প্রার্থী প্রফেসর ড. মোঃ ছিদ্দিকুল ইসলাম। সাধারণ সম্পাদক ড. বাশির পেয়েছেন ১৫০ ভোট, তাঁর নিকটতম প্রতিদ্বন্দী ছিলেন সাদা দলের প্রফেসর ড. মোহাম্মদ মাহবুব ইকবাল। এছাড়া সহসভাপতি পদে প্রফেসর ড. মোতাহার হোসেন, কোষাধ্যক্ষ পদে ড. মোহাম্মদ এনামুল কবির, যুগ্ম সম্পাদক পদে প্রনজিত কুমার দাশ এবং সদস্য পদে প্রফেসর ড. পীযুশ কান্তি সরকার, প্রফেসর ড. মোঃ শহীদুল ইসলাম, প্রফেসর ড. মৃত্যুঞ্জয় কুন্ড, প্রফেসর ড. সানজিদা পারভীন রিতু, পারসা সানজানা ও ঈশিতা দেব জয় পেয়েছেন। এবারের নির্বাচনে প্রধান নির্বাচন কমিশনারের দায়িত্ব পালন করেন প্রফেসর ডাঃ মোঃ জামাল উদ্দিন ভূঞা এবং নির্বাচন কমিশনারের দায়িত্ব পালন করেন প্রফেসর ড. মোঃ মোস্তফা সামছুজ্জামান ও প্রফেসর ড. মোজাম্মেল হক। প্রধান নির্বাচন কমিশনার প্রফেসর জামাল জানিয়েছেন, শিক্ষক সমিতির নির্বাচন অত্যন্ত শান্তিপূর্ণ ও উৎসবমূখর পরিবেশে অনুষ্ঠিত হয়েছে। নতুন সভাপতি কৃষিতত্ত্ব ও হাওর কৃষি বিভাগের প্রফেসর ড. মোঃ নজরুল ইসলাম বলেন, শিক্ষক সমাজের গৌরবোজ্জ্বল ঐতিহ্য দৃঢ়তার সাথে সমুন্নত রাখতে এবং পেশাগত সমস্যাদির সম্মানজনক সমাধানের প্রত্যয় নিয়ে এই কমিটি কাজ করবে। তিনি আরো বলেন, আমরা মহান মুক্তিযুদ্ধ, অসাম্প্রদায়িক চেতনা ও জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আদর্শে বিশ্বাসী প্রগতিশীল শিক্ষকদের মনোনীত প্যানেল। মুজিব জন্মশতবর্ষ, রূপকল্প ২০৪১ এবং বাংলাদেশ ডেল্টাপ্ল্যান ২১০০ বাস্তবায়নে কৃষিবান্ধব নীতির অনুসারে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ পরিচালিত সরকারের সাথে একাত্ম হয়ে কাজ করবে এই শিক্ষক সমিতি। প্রফেসর নজরুল সিলেট কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে গবেষণা ও শিক্ষার সৃষ্টি ও সম্প্রসারণে সকল শিক্ষকদের এক হয়ে কাজ করার আহ্বান জানিয়েছেন।


  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

আরও পড়ুন