সিলেটে ৩টি করোনা আইসোলেশন সেন্টার স্থাপন করবে কিডনী ফাউন্ডেশন

প্রকাশিত : ১২ জুন, ২০২০     আপডেট : ৩ মাস আগে
  • 66
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    66
    Shares

মুহাম্মদ তাজ উদ্দিন ঃ- সিলেটে ৩টি করোনা আইসোলেশন সেন্টার স্থাপনের উদ্যোগ নিয়েছে সিলেট কিডনী ফাউন্ডেশন। সিলেট শাহপরানস্থ খাদিমপাড়া ৩১ শয্যা হাসপাতালে , দক্ষিণ সুরমা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও সিলেট নগরীর আবুল মাল আব্দুল মুহিত ক্রীড়া কমপ্লেক্সে এই ৩টি আইসোলেশন সেন্টার স্থাপন করা হবে। এর মধ্যে সিলেট শাহপরানস্থ খাদিমপাড়া ৩১ শয্যা হাসপাতাল আইসোলেশন সেন্টারের কার্যক্রম আগামী সপ্তাহ থেকেই শুরু করা হবে। এই আইসোলেশন সেন্টারগুলোতে ডাক্তার নার্সসহ প্রয়োজনীয় জনবল দেবে সরকার। আর অক্সিজেন সাপ্লাই, প্রয়োজনীয় ঔষদ এবং যাবতীয় চিকিৎসা সামগ্রী প্রদান করবে সিলেট কিডনী ফাউন্ডেশন।

সিলেট কিডনী ফাউন্ডেশনের কোষাধ্যক্ষ রোটারিয়ান জুবায়ের আহমদ চৌধুরী এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, মহান মুক্তিযুদ্ধে শহীদ ডা. শামসু্িদ্দনের পুত্র, সিলেট কিডনী ফাউন্ডেশনের সভাপতি, যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী বিশিষ্ট চিকিৎসক ডা. জিয়াউদ্দিন আহমদের একক প্রচেষ্টায় ইতোমধ্যে সরকারের উচ্চ পর্যায় থেকে সিলেটের এই ৩টি হাসপাতালে সিলেট কিডনী ফাউন্ডেশনের সহায়তায় আইসোলেশন সেন্টার স্থাপনের ব্যাপারে ইতিবাচক সম্পতি পাওয়া গেছে। বৃহস্পতিবার সিলেট কিডনী ফাউন্ডেশন ও সিলেট স্বাস্থ্য বিভাগের উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা সিলেট শাহপরানস্থ খাদিমপাড়া ৩১ শয্যা হাসপাতাল পরিদর্শণ করেছেন। তারা সিলেট শাহপরানস্থ খাদিমপাড়া ৩১ শয্যা হাসপাতালে করোনা আইসোলেশন সেন্টার স্থাপনে কি কি সরঞ্জাম লাগবে তার তালিকা প্রস্তুত করেছেন। আজ কালের মধ্যেই ঢাকা থেকে এসব সামগ্রী সংগ্রহ করে আগামী সপ্তাহেই সিলেট সদর উপজেলা স্বাস্থ্যকেন্দ্রকে করোনা আইসোলেশন সেন্টারে রূপান্তর করা সম্ভব হবে।

জুবায়ের আহমদ চৌধুরী জানান, সিলেট কিডনী ফাউন্ডেশনের সদস্য সচিব মেজর (অব.) আব্দুস সালাম ও সাবেক উর্ধ্বতন সরকারী কর্মকর্তা চৌধুরী মুফাদ আহমদের কাছে প্রয়োজনীয় সরঞ্জামের তালিকা পাঠানো হয়েছে। তারা দু’জনে সরকারের উর্ধ্বতন মহলে আলোচনা করে এই ৩টি আইসোলেশন সেন্টার স্থাপনের প্রাথমিক অনুমোদন নিয়েছেন এবং প্রয়োজনীয় সরঞ্জাম সংগ্রহ করে সিলেটে প্রেরণের ব্যবস্থা করছেন।
তিনি জানান, কিডনী ফাউন্ডেশনের মাধ্যমে ৩টি আইসোলেশন সেন্টার স্থাপন ও এগুলো পরিচালনার জন্য যুক্তরাষ্ট্রে ইতোমধ্যে তহবিল সংগ্রহ শুরু করেছেন ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান, শহীদ ডা. শামসুদ্দিন আহমদের পুত্র ডা.জিয়াউদ্দিন চৌধুরী। যুক্তরাষ্ট্রের দানশীল ব্যক্তিরা ইতোমধ্যে ১ লাখ ডলার আর্থিক সহায়তা প্রদান করেছেন। এর মধ্যে এক ব্যক্তিই দান করেছেন ৪০ হাজার ডলার। সিলেটে ও সিলেটের বাইরের দানশীল ব্যক্তিদের দেয়া দান-অনুদানে এ আইসোলেশন সেন্টারগুলো পরিচালিত হবে।

জুবায়ের আহমদ চৌধুরী আরো জানান, আগামী সপ্তাহে সিলেট শাহপরানস্থ খাদিমপাড়া ৩১ শয্যা হাসপাতালে পর পরই দক্ষিণ সুরমা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সকে করোনা আইসোলেশন সেন্টার হিসেবে রূপান্তর করা হবে। তৃতীয় পর্যায়ে সিলেট নগরীর মেন্দিবাগস্থ আব্দুল মাল আব্দুল মুহিত ক্রীড়া কমপ্লেক্সে করোনা আইসোলেশন সেন্টার হিসেবে গড়ে তোলার উদ্যোগ নেয়া হবে। আইসোলেশন সেন্টারগুলোতে করোনা রোগীদের প্রয়োজনীয় চিকিৎসা ও অক্সিজেন প্রদান করা হবে। আর যাদের ভেন্টিলেশন সাপোর্ট লাগবে তাদেরকে শহীদ ডা. শামসুদ্দিন হাসপতালে পাঠানো হবে।


  • 66
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    66
    Shares

আরও পড়ুন

এম. এ. হকের মৃত্যুতে সিলেট মহানগর কৃষকদলের শোক

         বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার...

গ্রাসরটস’র সাংবাদিক সম্মেলন ও ইফতার মাহফিল

         তৃণমূল নারী উদ্যোক্তা সোসাইটি গ্রাসরুটস...

করোনায় মুজিববর্ষের অতিথিদের সফরসূচি বাতিল হয়নি: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

          করোনার প্রভাবে মুজিববর্ষের অনুষ্ঠানে...

লাঞ্চ বিরতিতে জিম্বাবুয়ে

         আহমদ ইয়াসিন খান, সিলেট আন্তর্জাতিক...