সিলেটে ১২তম বিশ্ব অটিজম সচেতনতা দিবস পালিত

প্রকাশিত : ০২ এপ্রিল, ২০১৯     আপডেট : ১ বছর আগে
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

আব্দুস সোবহান ইমন :
বর্ণাঢ্য আয়োজনের মধ্যে দিয়ে ‘সহায়ক প্রযুক্তির ব্যবহার অটিজম বৈশিষ্ট্যসম্পন্ন ব্যাক্তির অধিকার’’ এ প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে সারা বিশ্বের ন্যায় সিলেটে ১২তম বিশ্ব অটিজম দিবস ২০১৯ উদযাপিত হয়েছে। জেলা প্রশাসন, জেলা সমাজসেবা কার্যালয় প্রতিবন্ধী সেবা ও সাহায্য কেন্দ্র এবং প্রতিবন্ধী ব্যাক্তিদের নিয়ে সিলেটে কর্মরত বেসরকারী সংগঠনসমূহের উদ্যোগে গতকাল মঙ্গলবার সিলেট জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সামনে থেকে এক বর্ণ্যঢ্য র‌্যালি বের হয়ে নগরীর প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে।পরে প্রধান অতিথি সিলেট জেলা পরিষদে প্রাঙ্গনে অটিস্টিক শিশুদের চিত্রাঙ্কন প্রদর্শনী উদ্বোধন করেন । দিবসটি পালন উপলক্ষ্যে সিলেট জেলা পরিষদ মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভা, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও অটিস্টিক শিশুদের চিত্রাঙ্কন প্রদর্শনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে সিলেট বিভাগের বিভাগীয় কমিশনার (অতিরিক্ত সচিব) মোহাম্মদ মেজবাহ্ উদ্দিন চৌধুরী বলেন, পৃথিবীতে অনেক জ্ঞানী লোক আছে যারা অটিস্টিক এই শিশুদের মতো। তারা তাদের জ্ঞানের আলোর ধারা সারা বিশ্বের মাঝে পরিচিত লাভ করেছে। ঠিক তাদের মতো এই অটিস্টিক শিশুদের মানসিক শক্তিকে বিকশিত করতে হবে। তাদেরকে কখনো সমাজের অমূল্যবান মনে করা যাবে না। তাদের সঠিক মূল্যয়ান করে তাদের মেধা ও জ্ঞানকে কাজে লাগিয়ে শুধু একটি দেশ নয় সারা বিশ্বের মধ্যে আলোকিত মূখ হিসেবে প্রতিষ্টিত করতে হবে।
সিলেটের জেলা প্রশাসক এম কাজী এমদাদুল ইসলামের সভাতিত্বে ও সমাজসেবা অফিসার মো. লুৎফুর রহমানের পরিচালনায় অনুষ্ঠানে মুখ্য আলোচক হিসাবে উপস্থিত ছিলেন ও বিশ্ব অটিজম দিবসের তাৎপর্য তুলে ধরে বক্তব্য উপস্থাপন করেন, সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের শিশু বিকাশ কেন্দ্রের কনসালট্যান্ট ডা.শ্যামজয় দাস। সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের সমাজসেবা কার্যক্রমের সমাজসেবা অফিসার মো.খলিলুর রহমানের পবিত্র কোরআন তেলাওয়াত ও সিলেট প্রতিবন্ধী সেবা ও সাহায্য কেন্দ্রের প্রতিবন্ধী বিষয়ক কর্মকর্তা সিদ্ধার্থ শংকর রায়ের গীতা পাঠের মাধ্যমে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন, জেলা পরিষদের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা দেবজিৎ সিংহ, প্রক্তন সংসদ সদস্য ও রোকেয়া পদক প্র্রাপ্ত বাংলাদেশ জাতীয় সমাজ কল্যাণ পরিষদের সদস্য সৈয়দা জেবুন্নেছা হক, সিলেটের সিভিল সার্জন ডা.হিমাংশু লাল রায়, সিলেট প্রেসক্লাবের সভাপতি ইকরামূল কবির।
অন্যান্যের অতিথিদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন ও বক্তব্য রাখেন, সিলেট জেলা সমাজসেবা কার্যালয়ের উপপরিচালক নিবাস রঞ্জন দাশ, বিশিষ্ট সাংবাদিক কলামিস্ট আফতাব চৌধুরী, সিলেট গ্রামীণ জনকল্যাণ সংসদের সভাপতি জামিল চৌধুরী,সিফডিয়ার নির্বাহী পরিচালক রোটারিয়ান আব্দুল মুহিত দিদার। প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের নিয়ে কর্মরত সংগঠনের পক্ষ থেকে বক্তব্য রাখেন সিলেট গ্রীন ডিসএবল্ড ফাউন্ডেশন(জিডিএফ) নির্বাহী পরিচালক মো. বায়োজিদ খান, সিলেট রহমানিয়া প্রতিবন্ধী কল্যাণ ফাউন্ডেশনের সভাপতি আতাউর রহমান খান শামসু।
মূখ্য আলোচকরে বক্তব্যে ডা. শ্যামজয় দাস বলেন, অটিস্টিক শিশুরা অনেক জ্ঞানী হয়। তারা অন্য দশজনের থেকে ভিন্ন। তাই অটিস্টিক শিশুদেরবে ঠিকমত পরিচর্যা করলে জ্ঞানী হয়ে গড়ে উঠবে।
সভাপতির বক্তব্যে এম কাজী এমদাদুল ইসলাম বলেন, অটিস্টিক শিশুরা হচ্ছে আমাদের দেশের সম্পদ। তাদের ধারা একটি সমাজ তথা একটি দেশ উন্নতি সম্ভব । আমরা কেউ তাদেরকে অবহেলা না করে তাদেরকে দেশের রতœ হিসেবে বিবেচিত করে গড়ে তুলতে হবে।
অনুষ্ঠানটি ইশারা ভাষায় উপস্থাপনা করেন, সিলেট শেখঘাট সরকারি বাক্-শ্রবণ প্রতিবন্ধী বিদ্যালয়ের শিক্ষক আবু তাহের মোহাম্মদ ও মোহাম্মদ ইবনে সাঈম খাঁন।
বিশ্ব অটিজম সচেতনা দিবস উদযাপন উপলক্ষ্যে ক্যন্সার, লিভার সিরোসিস, স্ট্রোক প্যারালাইজড ও জন্মগত হৃদরোগ আক্রান্ত ৬৭ জন রোগীদের মাঝে ৩৩ লক্ষ ৫০ হাজার টাকার চেক বিতরণ করেন।


  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

আরও পড়ুন