সিলেটে নৃত্য-উৎসবের চতুর্থ দিন মাতিয়েছে মনিপুরী নৃত্য

,
প্রকাশিত : ২৫ মার্চ, ২০১৯     আপডেট : ৩ বছর আগে
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সিলেট এক্সপ্রেস ডেস্ক :  প্রথমবারের মতো সিলেটে চলছে ৫ দিনব্যাপী এপর বাংলা ওপার বাংলা নৃত্যেৎসব। নৃত্যশৈলীর আয়োজনে গত রবিবার ছিল অনুষ্ঠানের ৪র্থ দিন। এতে অংশগ্রহণ করেন এশিয়ান কনফ্লুয়েন্স অর্গানাইজেশন এর অন্তর্গত থৈইবী মনিপুরী ডান্স এন্ড কালচারেল রিসার্চ ইন্সিটিউট ইম্ফল, ভারতের শিলচরসহ দেশের কয়েকটি নাচের সংগঠন। দারুণ উপভোগ্য একটা দিন কাটালেন সিলেটের সংস্কৃতিপ্রেমীরা।

গত রবিবার উৎসবের চতুর্থদিন বিকেলের উদ্বোধনী পর্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ভারতের শিলচরের নৃত্যায়নের নৃত্য প্রশিক্ষক চন্দন মজুমদার, ঢাকার রিদমসের পরিচালক তাহনুন আহমেদী প্রমুখ।

রবিবার বিকেল সাড়ে ৪টায় নগরীর রিকাবিবাজারস্থ কবি নজরুল অডিটোরিয়ােমর মুক্তমঞ্চে ‘রাখাল ছেলে’ শীর্ষক গানের সাথে নৃত্য পরিবেশনের মাধ্যমে শুরু হয় অনুষ্ঠানের প্রথম পর্ব।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে চন্দন মজুমদার বলেন ভারত-বাংলাদশের সাম্প্রদায়িক সৌহার্দ্য অটুট রাখতে এ ধরনের অনুষ্ঠানের বিকল্প নেই।

সিলেট সিটি কর্পোরেশন, সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়, ভারতীয় সহকারী হাইকমিশন ও জেলা পরিষদসিলেট এবং সিলেট সিক্সার্সের সার্বিক সহযোগিতায় অনুষ্ঠানটির আয়োজন করেছে সিলেটের নৃত্যশৈলী।

শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন রিদমসের পরিচালক তাহনুন আহমেদী।

বক্ত্যবের শেষে ধারাবাহিকভাবে ‘হাট্টিমা টিম টিম’ এবং ‘বাবু রাম সাপুড়ে’ শীর্ষক ছড়া গানের সাথে নৃত্য পরিবেশন করেন নৃত্যশৈলীর শিল্পীরা।

এছাড়াও শ্রীমঙ্গল নৃত্যবীণার পরিচালনায় থাকে ‘মেঘ চিনি, রোদ চিনি’ শীর্ষক গানের সাথে নাচ।

প্রথম পর্ব শেষ হয় যথাক্রমে ফেঞ্চুগঞ্জ নৃত্যকনা পরিচালিত এসডি বর্মনের বিখ্যাত গান ‘নিটোল পায়ে’র সাথে ঢাকা রিদমসের ডুয়েট পরিবেশনা ‘সমসাময়িক নৃত্য’ দুটির মাধ্যমে।

সন্ধ্যা সাড়ে ছয়টায় প্রধান অতিথির বক্তব্যের মাধ্যমে শুরু হয় অনুষ্ঠানের দ্বিতীয় পর্ব। এতে সম্মানিত অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সিলেটে নিযুক্ত ভারতীয় হাইকমিশনের সহকারী হাইকমিশনার এল কৃষ্ণমূর্তি, মুক্তিযোদ্ধা নিজামুদ্দিন লস্কর, বাংলাদেশ মেডিকেল অ্যাসোসিয়েশনের মহাসচিব এহতেসামুল হক দুলাল, নৃত্যশিল্পী সংস্থার সাংস্কৃতিক সম্পাদক নিলুফার ওয়াহিদ পাপড়ি, বিএমএসএল ইনভেস্টমেন্ট লিমিটেডের চেয়ারম্যান মো. হাবিব আহসান।
অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন মুক্তিযোদ্ধা নিজামুদ্দিন লস্কর।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে ভারতীয় হাইকমিশনের সহকারী হাইকমিশনার কৃষ্ণমূর্তি বলেন, সাংস্কৃতিক চর্চার মাধ্যমে নতুন প্রজন্ম নিজ সংস্কৃতিকে বিশ্বের কাছে তুলে ধরতে পারে। অপসংস্কৃতি সর্বাবস্থায় বর্জনীয়।

নৃত্যশৈলীর ‘কত্থক’ নৃত্য পরিবেশনের মাধ্যমে শুরু হয় অনুষ্ঠানের পরিবেশনা। দ্বিতীয় পরিবেশনা ছিল নজরুলের ‘বেল ফুল এনে দাও’ নামক কালজয়ী গানের সাথে নৃত্য।

দলীয় নৃত্য পরিবেশনায় শ্রীমঙ্গল নৃত্যবীণা ‘রাগ সঙ্গীত’ নৃত্য পরিবেশন করেন। এর পরপরই নৃত্যকণা ফেঞ্চুগঞ্জ পরিবেশন করেন নজর কাড়া ‘উচ্চাঙ্গ নৃত্য’।

এশিয়ান কনফ্লুয়েন্স অর্গানাইজেশনের অন্তর্গত ভারতের থৈইবী মনিপুরী ডান্স এন্ড কালচারেল রিসার্চ ইন্সিটিউট ইম্ফলের পরিবেশিত ‌’খাউগাল জাগৈ’ শীর্ষক মনিপুরী গানের সাথে উপমহাদেশ বিখ্যাত মনিপুরী নৃত্য প্রায় ৩০ মিনিট ধরে আচ্ছন্ন করে রাখে সবাইকে।

এছাড়াও অনুষ্ঠানের অন্যতম আকর্ষণ ছিল ভারতের শিলচরের নৃত্যায়ন পরিবেশিত নৃত্যনাট্য ‘ফিরে এসো আগুন’ ও ঢাকার রিদমস নৃত্যগোষ্ঠির নৃত্যালেখ্য ‘দহন’।

চতুর্থ দিনের অনুষ্ঠান শেষ হয় নৃত্যশৈলী পরিচালিত ‘কালো জলে’ নামক গানের সাথে নৃত্য নাচের মাধ্যমে।

সোমবার (২৫ মার্চ) উৎসব শেষ হবে। এদিনের প্রধান আকর্ষণ দেশবিখ্যাত নৃত্যতারকা মুনমুন আহমেদ।


  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

আরও পড়ুন

এইচ টি ইমাম আর নেই

        প্রধানমন্ত্রীর রাজনৈতিক উপদেষ্টা এইচ টি...

সাংবাদিক রশিদ হেলালীর ৫ম মৃত্যূ বার্ষিকী পালিত

        গোয়াইনঘাট (সিলেট) থেকে নিজস্ব সংবাদদাতাঃ...