সিলেটে কাউন্সিলর কার্যালয়ে বিএনপি-জামায়াতের অফিস

,
প্রকাশিত : ১৪ অক্টোবর, ২০২১     আপডেট : ১ সপ্তাহ আগে
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সিলেটে সিটি কর্পোরেশনের ৬নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর ফরহাদ চৌধুরী শামীম তার কাউন্সিলর অফিসে দীর্ঘদিন থেকে বিএনপি, স্বেচ্ছাসেবক দল, ছাত্রদল ও জামায়াতের অফিস হিসেবে ব্যবহার করে আসছেন। এতে স্থানীয় এলাকাবাসীর নিরাপত্তার পাশাপাশি ও সেবা নিয়ে শঙ্কা দেখা দিয়েছে। এ বিষয়ে ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য স্থানীয়রা স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের সচিব বরাবরে একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন। অভিযোগের অনুলিপি পররাষ্ট্রমন্ত্রী ও সিলেট-১ আসনের সংসদ সদস্য, সিটি কর্পোরেশনের মেয়র, সিলেট জেলা প্রশাসক, পুলিশ কমিশনার, দুর্নীতি দমন কমিশন বরাবরেও প্রেরণ করেছেন।
অভিযোগে স্বাক্ষর দেন এইচ এম ফারুকুজ্জামান, জাহিদুল হোসেন মাসুদ, আবুল বশর হোসেইন, সোহেল আহমদ, মখলিছুর রহমান, মনিরুল হক সাকিব, মুহিবুল হক শাওন, রাব্বি আহমদ তানভীর, সবুর আহমদ দিপু।
অভিযোগে তারা উল্লেখ করেন, কাউন্সিলর ফরহাদ চৌধুরী শামীম স্বেচ্ছাসেবক দলের কেন্দ্রীয় সহ-সভাপতি (সিলেট বিভাগ) ও সিলেট মহানগর বিএনপির যুগ্ম আহŸায়কের পদে রয়েছেন। তিনি বিএনপি থেকে নির্বাচন করে কাউন্সিলরও হয়েছেন। কিন্তু কাউন্সিলর নির্বাচিত হওয়ার পর থেকেই তিনি কাউন্সিলর অফিসকে বিএনপি, স্বেচ্ছাসেবক দল, ছাত্রদল ও জামায়াতের অফিস হিসেবে ব্যবহার করছেন। এ জন্য ওয়ার্ডেও সাধারণ নাগরিকে সেবা পেতে নানা প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি হয়েছে। সেবা প্রদানে বিলম্ব হলেও কোন সেবাগ্রহীতা ছাত্রদল, স্বেচ্ছাসেবক দল নেতা-কর্মীদের ভয়ে কিছু বলার সাহস পান না। প্রায়ই রাতে উক্ত অফিসে বিএনপি-জামায়াতের নেতাকর্মীদের সাথে গোপন মিটিং হয়।
তারা আরো উল্লেখ করেন, সব সময় বিএনপি-জামায়াতের নেতাকর্মীদের যাতায়াত থাকায় স্থানীয় নাগরিকরা কাউন্সিলর অফিসে যেতে ভয় পান। ওয়ার্ডের জনগণ সন্ত্রাসীদের ভয়ে দীর্ঘদিন কিছু বলতে পারেননি।
অভিযোগে উল্লেখ করা হয়, কাউন্সিলর ফরহাদ চৌধুরী শামীমের বিরুদ্ধে হতদরিদ্রের চাল আত্মসাত, দলীয় লোক দেখে দেখে ভাতা প্রদানসহ নানা অভিযোগ রয়েছে।
স্থানীয় এলাকাবাসী আর সহ্য করতে না পেরে এ ব্যাপারে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের সচিব বরাবরে এ অভিযোগ দায়ের করেন।
এ ব্যাপারে কাউন্সিলর ফরহাদ চৌধুরী শামীম বলেন, আমি বিএনপির রাজনীতি করি। প্রয়োজনে বিএনপি নেতার আসতেই পারেন আমার অফিসে। তবে, আমি জামায়াতের রাজনীতি করি না, জামায়াতের সাথে আমার কোন সংশ্লিষ্টতা নেই।
তিনি বলেন, নেতাকর্মীদের সাথে দেখা করলে ওয়ার্ডবাসীর সেবা ব্যাহত হবে কেন। সেবা ব্যাহত হলে একাধারে ৫ বার ওয়ার্ড কাউন্সিলর হতাম না।


  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

আরও পড়ুন

পরিবহন ধর্মঘট: রোববার বিভাগীয় কমিশনার ও জিআইজির সাথে বৈঠক

        সিলেট বিভাগ ও ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা...

সিলেটের ৫টি পয়েন্টে ছাত্রলীগের শীতবস্ত্র ও নগদ অর্থ বিতরণ

        নতুন বছরের শুরুতেই অসহায় শীতার্তদের...

ডেটিং স্পটে পরিণত হয়েছে শাহী ঈদগাহ ময়দান!

        সিলেট ডেস্ক: সিলেটের সবচেয়ে বড়...

সিলেট ফ্রেন্ডসশিপ সোসাইটির উদ্যোগে ত্রাণ বিতরণ

        সিলেট এক্সপ্রেস সিলেট ফ্রেন্ডসশিপ সোসাইটির...