সিলেটে করোনা বিপদ ডেকে আনছেন ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ-গাজীপুর থেকে আসা লোকজন

Alternative Text
,
প্রকাশিত : ২৩ এপ্রিল, ২০২০     আপডেট : ২ বছর আগে
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

প্রবাসীরা নয়,ঢাকা,নারায়ণগঞ্জ,গাজীপুর থেকে আগতরা সিলেটের চার জেলায় করোনাভাইরাস বিপদ ডেকে আনছেন। সিলেটের চার জেলায় ২২ এপ্রিল পর্যন্ত যে ৩৩ জনের করোনা পজেটিভ এসেছে। তাদের বেশিরভাগ নারায়নঞ্জ, গাজীপুর ও ঢাকা থেকে বাড়ি এসেছেন বলে জানা গেছে। সেখানে তারা গার্মেন্টস, শিল্প কারখানায় শ্রমিক হিসেবে কাজ করতেন। কোভিড-১৯ শনাক্তদের মধ্যে গাজিপুর থেকে আসা একজন চিকিৎসকও রয়েছেন।বিশ্বের বিভিন্ন অঞ্চলে করোনাভাইরাস প্রাদুর্ভাব দেখা দেওয়ার পর প্রবাসী অধ্যুষিত সিলেট অঞ্চলের বিদেশে থাকা লোকজন দেশে আসতে থাকেন। ফলে প্রবাসীদের মাধ্যমে করোনাভাইরাস সিলেটে ছড়িয়ে পড়ার আশঙ্কা দেখা দেয়। ১০ মার্চ থেকে সিলেটে আসা প্রবাসীদের হিসাব রাখা শুরু করে প্রশাসন। তাদের প্রত্যেকে ১৪দিনের হোমকোয়ারেন্টিনে থাকতে বাধ্য করা হয়। হোমকোয়ারেন্টিন না মানায় অনেক প্রবাসীকে জরিমানাও করা হয়। সিলেটের অনেকে মনে করছেন, প্রবাসীদের হোমকোয়ারেন্টিনের বিষয়ে প্রশাসন যেভাবে কড়াকড়ি ছিলো সেরকম ঢাকা,নারায়ণগঞ্জ, গাজিপুর থেকে আসাদের হোমকোয়ারেন্টিন পালনে গুরুত্ব দেওয়া হয়নি। অনেকে প্রশ্ন তুলেছেন, বাংলাদেশের যে কয়টি অঞ্চল করোনাভাইরাস আক্রান্তের হটস্পট এসব অঞ্চল থেকে স্টেহোম এর সময়ে এত লোক সিলেট আসলেন কি করে। এদেরকে বাড়ি আসার সুযোগ করে দেওয়ার মাধ্যমে নিজেদের বিপদ ডেকে আনা হয়েছে। তবে প্রশাসনের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, বাইরের অঞ্চল থেকে কেউ বাড়ি আসছে খবর পেলে ১৪ দিনের হোমকোয়ারেন্টিন পালনে বাধ্য করা হচ্ছে। সিলেট বিভাগীয় স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের দেয়া তথ্য থেকে জানা যায়, সিলেট বিভাগের চার জেলায় ২২ এপ্রিল পর্যন্ত মোট ৩৩ জন করোনা আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয়েছেন। এর মধ্যে সিলেট জেলার ৬ জন, হবিগঞ্জের ১৮ জন, মৌলভীবাজারের ৩ জন ও সুনামগঞ্জের ৬ জন রয়েছেন।হবিগঞ্জে গত দুদিন আগে ১০ জন করোনাভাইরাস আক্রান্ত শনাক্ত হন। এই ১০ জনের মধ্যে ৮ জনই ছিলেন নারায়ণগঞ্জ ও ঢাকা থেকে আসা। এপ্রিল সিলেট ওসমানী হাসপাতালের ল্যাবে ৪ জেলার ১৩ জনের করোনাভাইরাস পজেটিভ ধরা পড়ে ।আক্রান্তদের মধ্যে সিলেট ওসমানী হাপাতালের ইন্টার্নি চিকিৎসক যিনি সম্প্রতি গাজীপুর থেকে সিলেটের কর্মস্থলে এসেছেন। জগন্নাথপুরের করোনা পজেটিভ শনাক্ত ১৮ বছর বয়সী তরুণ গত ১৭ এপ্রিল নারায়নগঞ্জ থেকে পরিবারের ১৩ সদস্য নিয়ে জগন্নাথপুর উপজেলার নিজ গ্রামে এসেছেন। দিরাইয়ের যুবক নারায়ণগঞ্জ থেকে ও দক্ষিণ সুনামগঞ্জের তরুণী ঢাকা থেকে বাড়ি আসেন।


  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

আরও পড়ুন

সিলাম ৮নং ওয়ার্ড প্রিমিয়ার লিগের উদ্বোধন

        দক্ষিণ সুরমাস্থ ঐতিহ্যবাহী সিলাম ৮নং...

খেলাধূলা ও সংস্কৃতি চর্চার মাধ্যমে শারিরীক মানসিকতার বিকাশ ঘঠায়

        সিলেট এক্সপ্রেস ডেস্ক : সিলেটের জেলা...

বন্দরবাজার সিটি মার্কেট কমিটির নির্বাচন পরিদর্শনে সিলেট মহানগর বিএনপি নেতৃবৃন্দ

        নগরীর প্রাণকেন্দ্র বন্দরবাজারের ঐতিহ্যবাহী সিটি...