সিলেটে উৎসাহ উদ্দীপনায় পালিত হচ্ছে জন্মাষ্টমী

প্রকাশিত : ০২ সেপ্টেম্বর, ২০১৮     আপডেট : ২ বছর আগে  
  

বিপুল উৎসাহ উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে সিলেটে পালিত হচ্ছে সনাতন ধর্মের প্রাণপুরুষ ভগবান শ্রী কৃষ্ণের জন্মদিন জন্মাষ্টমী উৎসব।

দিবসটি উপলক্ষ্যে আজ রোববার সকাল ১০টায় সার্বজনীন জন্মাষ্টমী উদযাপন পরিষদের উদ্যোগে নগরীর মির্জাজাঙ্গালস্থ শ্রী শ্রী মহাপ্রভু জিউর মন্দির মুনিপুরী রাজবাড়ী থেকে শোভাযাত্রা বের হয়ে বিভিন্ন রাস্তা প্রদক্ষিণ শেষে শ্রী শ্রী লোকনাথ ব্রহ্মচারী আশ্রমে গিয়ে শেষ হয়।

ভোভাযাত্রায় ভক্তরা ঢাক-ঢোল,শঙ্খ,কাসা-ঘণ্টা নিয়ে অংশ গ্রহণ করেন। উলু ধ্বনীর মাধ্যমে পুরো নগরী মুখরিত করে তোলেন।

সকাল ১০টায় শোভাযাত্রা উদ্ভোধন করেন সিলেট সিটি করর্পোরেশনের মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী।

এসময় তিনি বলেন, বাংলাদেশে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির বন্ধন মজবুত। কোনো অপশক্তিই এ সম্প্রীতিকে নষ্ট করতে পারেনি। দেশে সকল ধর্মের মানুষ শান্তিপূর্ণভোবে ধর্ম পালন করবে। এ সম্প্রীতির বন্ধন অটুট রাখতে সবাইকে কাজ করতে হবে।

রজত কান্তি গুপ্তের পরিচালনায় এসময় বক্তব্য রাখেন সিলেট মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আসাদ উদ্দিন, উদযাপন পরিষদের আহ্বায়ক প্রবীণ শিক্ষাবিদ অধ্যাপক শ্রী বিজিত কুমার দে ও সদস্য সচিব শ্রী নির্মল কুমার সিনহা।
সার্বজনীন জন্মাষ্টমী পরিষদের আজকের দিনব্যাপী কর্মসুচির মধ্যে রয়েছে সকাল সাড়ে ১০টায় ভগবান শ্রী কৃষ্ণ শীর্ষক ধর্মালোচনা সভা। বেলা ২টায় মহাপ্রসাদ বিতরণ, রাত সাড়ে ৮টায় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও গীতি আলেখ্য, রাত সাড়ে ৯টায় সংগীত পরিবেশন করবেন প্রখ্যাত সংগীত শিল্পী অনিতা মুক্তি গোমেজ ও সহশিল্পীরা, রাত ১০ টায় শ্রী শ্রী কৃষ্ণের বিশেষ পূজানুষ্ঠান, অঞ্জলি প্রদান শেষে মহাপ্রসাদ বিতরণ। রাত ১২টা ১ মিনিটে ভগবান শ্রী শ্রী কৃষ্ণের আবির্ভাব স্মরণে উলুধ্বনি ও শঙ্খধ্বনি। নগরীর মণিপুরী রাজবাড়িস্থ শ্রী শ্রী লোকনাথ ব্রম্মচারী মন্দির ও আশ্রমে এসব কর্মসুচি পালিত হবে।
পরিষদের দুদিনব্যাপী আয়োজনের অংশ হিসাবে গতকাল শনিবার সকাল সাড়ে ৮ টায় শ্রী হট্ট অখন্ডমন্ডলীর পরিচালনায় সমবেত উপাসনা, ১০ টায় শ্রীমা সারদা সংঘের পরিবেশনায় সমবেত গীতা পাঠ, সাড়ে ১১টায় নিম্বার্ক গীতা শিক্ষা কেন্দ্রের পরিবেশনায় সমবেত গীতা পাঠ, বেলা ২টায় শিশু কিশোরদের সমবেত গীতা পাঠ প্রতিযোগিতা, বিকেল ৪টায় শিশু কিশোরদের একক চিত্রাংকন প্রতিযোগিতা, বিকেল সাড়ে ৫টায় শিশু কিশোরদের একক কীর্তন প্রতিযোগিতা ও রাতে লোকনাথ ভক্তবৃন্দ পরিষদের সমবেত উপাসনা অনুষ্ঠিত হয়।

আরও পড়ুন