সিলেটেও দাস কেনাবেচা হতো

প্রকাশিত : ২৩ জুন, ২০১৮     আপডেট : ২ বছর আগে

সেলিম আউয়াল: সিলেটে একসময় ক্রীতদাস কেনাবেচা হতো। মধ্যযুগের শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত সিলেটে ধারাবাহিকভাবে এ ব্যবসার প্রমাণ আছে। ইবনে বতুতার বিবরণে হাটবাজারে মানুষ কেনাবেচার কথা জানা যায়। বতুতা নিজেও একজন দাসী কিনেছিলেন।
আইন-ই-আকবরী গ্রন্থেও আছে, সিলেটে অনেক খোজা (ঊঁহঁপয) দাসদাসী পাওয়া যেতো। নবাবি আমলের শেষ দিকে এক টাকা কিংবা বারো আনা বেতনে একটি হৃষ্টপুষ্ট চাকর পাওয়ার সংবাদ পাওয়া যায়। মুগল হারেমে ও অভিজাত মহলে সিলেটী খোঁজাদের বেশ কদর ছিলো। সিলেটের সব ধরনের ব্যবসা বাণিজ্যের মধ্যে ‘খোঁজা ব্যবসা’ অত্যন্ত লাভজনক ছিলো। এ ছাড়া অনেকে নিজের ছেলেকেও খোঁজা করে রাজস্বেও বদলে সুবাদারকে প্রদান করতো। ১৮০৫ খ্রিস্টাব্দের একটি দলিলে দেখা যায়, মাত্র তিন রুপিতে শ্রীমতি আদরু দাসীকে তার মালিক বিক্রি করে দিচ্ছেন। মধ্যযুগে সিলেটে আত্মবিক্রয়ের কিছু দলিলও পাওয়া গেছে। এভাবে দাস ও খোঁজা ব্যবসা সিলেটে জেঁকে বসেছিলো।

আরও পড়ুন