সিকৃবিতে ৩ দিনব্যাপী প্রশিক্ষণ কর্মশালা

প্রকাশিত : ১৮ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯     আপডেট : ১২ মাস আগে  
  

সিলেট এক্সপ্রেস ডেস্ক: সিলেট কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে (সিকৃবি) ইনস্টিটিউশনাল কোয়ালিটি অ্যাস্যুরেন্স সেলের (আইকিউএসি) উদ্যোগে ৩ দিন ব্যাপী “ঞযবংরং ধহফ ঞবপযহরপধষ জবঢ়ড়ৎঃ ডৎরঃরহম” শীর্ষক প্রশিক্ষণ কর্মশালা সোমবার শুরু হয়েছে। ভেটেরিনারি, এনিম্যাল ও বায়োমেডিক্যাল সায়েন্সেস অনুষদের কনফারেন্স রুমে অনুষ্ঠিত প্রশিক্ষণ কর্মশালায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস-চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. মো: মতিয়ার রহমান হাওলাদার। আইকিউএসি-এর পরিচালক প্রফেসর ড. এ.এফ.এম. সাইফুল ইসলামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন কোর্স কোর্ডিনেটর প্রফেসর ড. মো: আবু সাঈদ। এ সময় ভেটেরিনারি, এনিম্যাল ও বায়োমেডিক্যাল সায়েন্সেস অনুষদের সকল বিভাগীয় চেয়ারম্যানগন উপস্থিত ছিলেন। অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করে ড. মো: মতিয়ার রহমান বলেন ছাত্র-ছাত্রীদেরকে হাতে কলমে শিক্ষা গ্রহণ করতে হবে। তবেই তারা মাঠ পর্যায়ে অর্জিত জ্ঞান কাজে লাগাতে পারবে। প্রশিক্ষণে ভেটেরিনারি, এনিম্যাল ও বায়োমেডিক্যাল সায়েন্সেস অনুষদের এম.এস. পর্যায়ে অধ্যয়নরত ছাত্র-ছাত্রীরা অংশগ্রহণ করছেন।

দ১২ ঘটিকায় ক্যাম্পাসে স্বাধীন বাংলাদেশের স্থপতি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষে সিকৃবি’র অফিসার পরিষদের উদ্যোগে এক র‌্যালী অনুষ্ঠিত হয়। র‌্যালী শেষে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধাজ্ঞাপন করা হয়। পরে জাতির জনক ও তাঁর পরিবার বর্গ সহ ৭১ এর বীর শহীদদের আত্মার মাগফেরাত কামনা করে দোয়া করা হয়। এ সময় উপস্থিত ছিলেন সিকৃবি’র রেজিস্ট্রার মো: বদরুল ইসলাম শোয়েব, শিক্ষক সমিতির সভাপতি মো: সাজেদুল ইসলাম, বিভিন্ন বিভাগের দপ্তর প্রধানগণসহ বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল স্তরের কর্মকর্তাবৃন্দ।

আর এক মেধাবী মুখ আবিদার ৫ ভাই ও ১ বোনের দরিদ্র পরিবারে যখন পড়ালেখা চালিয়ে যাওয়াটা কঠিন হয়ে পড়েছিল তখন পাঠশালা ২১ এর সদস্যরা তার সহযোগীতায় এগিয়ে আসে। আবিদা ২০১৮ সালে মাধ্যমিকে জিপিএ ৫ পেয়ে উত্তীর্ন হয়েছে। এখন সে সিলেট পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটের কম্পিউটার বিজ্ঞান ও প্রকৌশল বিভাগের ছাত্রী।
নানান চরাই উৎরাই পেড়িয়েই সাফল্যের পথে এগিয়ে যাচ্ছে পাঠশালা ২১ এর কার্যক্রম। এই কার্যক্রমকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছে বিশ্ববিদ্যালয় পরিবারের অনেকেই। পাঠশালা ২১ এর উপদেষ্ঠা সহযোগী প্রফেসর ড. ফুয়াদ মন্ডল জানান শিক্ষার্থীদের পড়াশুনা ঠিকঠাকমত হচ্ছে কিনা তা জানার জন্য নিয়মিত হোম ভিজিট করা হয়ে থাকে। তিনি বলেন সরকারি বেসরকারি পর্যায়ে পৃষ্ঠপোষকতা পেলে পাঠশালা ২১ এর মাধ্যমে আরও মেধাবী মুখ তৈরি করা যাবে। সিকৃবি’র রেজিস্ট্রার মো: বদরুল ইসলাম শোয়েব বলেন, সিকৃবি শিক্ষার্থীদের একটি মহতি উদ্যোগ পাঠশালা ২১। এর মাধ্যমে ইতোমধ্যে ৩৫০ জনের অধিক শিক্ষার্থী উপকৃত হয়েছে। তিনি বলেন এসব সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের বাদ দিয়ে জাতির সামগ্রিক উন্নয়ন সম্ভব নয়। সকলের সার্বিক সহযোগীতায় পাঠশালা ২১ আলোর পথের কান্ডারী হিসেবে কাজ করবে বলে তিনি আশা প্রকাশ করেন।

আরও পড়ুন