সাহিত্য চর্চায় মানুষের হৃদয়ে শুদ্ধতা ও মননশীলতার বিকাশ ঘটায়

প্রকাশিত : ২৭ জানুয়ারি, ২০২০     আপডেট : ৮ মাস আগে
  • 55
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    55
    Shares

জননী সাহিত্য সংসদের সদস্য সচিব মোশাররফ হোসেন ও জননী ফাউন্ডেশনের সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ রিয়াজ উদ্দিন এর জন্মদিন উপলক্ষে আয়োজিত সাহিত্য আড্ডায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে সিলেট জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি এ টি এম ফয়েজ উপরোক্ত কথাগুলো বলেন।

জননী ফাউন্ডেশন এর সভাপতি ও জননী সাহিত্য সংসদের আহ্বায়ক কবি মোশাররফ হোসেন সুজাত এর সভাপতিত্বে আয়োজিত সাহিত্য আড্ডায় এ টি এম ফয়েজ বলেন- কবিতা, গান ও সাহিত্য চর্চা মানুষের অন্তর আত্মাকে বিকশিত করে। এধরণের অনুষ্ঠানের পরিধি ছোট হলেও তার আবেদন ব্যাপক। আমরা প্রোগ্রাম গুলোতে গিয়ে বক্তব্য দিয়েই চলে আসি কারও কথা শুনতে মন চায়না। কিন্তু জননী সাহিত্য সংসদের আজকের অনুষ্ঠান ব্যাতিক্রম এখানে দেশাত্মবোধক গান, স্বরচিত কবিতা আবৃত্তি ও উর্দু ফার্সি গজল শুনে আমি অভিভূত। এখানে সবাই আলোচক সবাই স্রোতা। জননী ফাউন্ডেশন এর সভাপতি মোশাররফ হোসেন সুজাতকে চিনি পারিবারিক ভাবে আমার ছোট ভাই হিসাবে। সে যে একজন সংগঠক ও প্রথিতযশা কবি তা জানতামনা। আজ তার কবিতা আবৃত্তি শুনে মনে হলো সত্যিকারের সে একজন বড় মাপের কবি। তিনি বলেন আমি কথা দিচ্ছি জননী ফাউন্ডেশন ও জননী সাহিত্য সংসদের কোন সদস্য যে কোন বিষয়ে আমার কাছে কোর্টে গেলে আমি সর্বাত্মক সহযোগিতা করবো।

জননী ফাউন্ডেশনের সেক্রেটারি এডভোকেট জাবেদ আহমেদ এর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ ব্যাংক এর যুগ্ম-পরিচালক ও সাইক্লোন কেন্দ্রীয় সংসদের সভাপতি জাবেদ আহমেদ, বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী ও সিলেট মেট্রোপলিটন’ল কলেজের অধ্যাপক সৈয়দ কাওসার আহমদ, জৈন্তাপুর ডিগ্রি কলেজের সহকারী অধ্যাপক আব্দুল ওয়াছে, অনুশীলন সাহিত্য পরিষদের সিলেট এর সভাপতি কলামিস্ট আব্দুল হক, রাজার গাঁও উচ্চ বিদ্যালয়ের সাবেক শিক্ষক মাষ্টার হাবিব আহমদ।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে ব্যাংকার জাবেদ আহমেদ বলেন আজকের অনুষ্ঠানের অতিথিদের বক্তব্যে আমাদের ছাত্রজীবনের ইতিহাস সামনে এসে গেছে। সে সময়কার অনেক ছাত্র নেতাদের আজকের অনুষ্ঠানের মঞ্চে দেখে আমার অনেক ভালো লাগছে। সুজাত ভাই এর সাথে অল্পদিনের পরিচয়ে আমি এধরণের একটি অনুষ্ঠানে উপস্থিত থাকতে পেরে নিজেকে ধন্য মনে করছি। বিশেষ করে আজকের প্রধান অতিথিকে পেয়ে অনেক আনন্দিত। তিনি ছিলেন সাবেক স্বৈরাচার বিরোধী আন্দোলনে সিলেটের রাজপথ কাঁপানো ছাত্র নেতা।

এডভোকেট কাওসার আহমদ বলেন সুজাত ভাই আমার প্রতিবেশী। কিন্তু জননী সাহিত্য সংসদের মতো এমন একটি সংগঠনের দায়িত্বে যে তিনি আছেন সেটা আমার জানা ছিলোনা। কাল উনি দাওয়াত দিলেন প্রোগ্রামের আজ আমি একটু পর ঢাকা যাবো তারপরও উনার ফোনে আসতে বাধ্য হলাম। কিন্তু এমন সুশৃঙ্খল একটি সংগঠনের প্রোগ্রামে বেশি সময় থাকতে পারছিনা বলে দুঃখিত। আমি জন্মদিনের বরনীয়দের শতত শুভেচ্ছা ও মোবারকবাদ জানাচ্ছি।

অধ্যাপক আব্দুল ওয়াছে বলেন মোশাররফ হোসেন সুজাত আমার একান্ত ছোট ভাই তার স্বরচিত কবিতা আবৃত্তি শুনে হলো যেন আমি ফররুখ আহমদ এর কবিতা শুনছি। তার কবিতায় জাগরণ প্রেম ও আশার বানী সমান ভাবে উচ্চারিত। আমি মহান স্রষ্টার কাছে প্রার্থনা করি আল্লাহ যেন তাকে অনেক বড় করেন। সে যেন আগামীদিনের ফররুখ হতে পারে।

কলামিস্ট আব্দুল হক বলেন আমি কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছি জননী ফাউন্ডেশন ও জননী সাহিত্য সংসদকে এধরণের একটি প্রোগ্রামে আমাকে দাওয়াত দেয়ার জন্যে। শুভেচ্ছা জানাচ্ছি জন্মদিনের বরণীয় ব্যক্তিদের। দোয়া করি সাহিত্য চর্চার মাধ্যমে আগামীতে আপনারা অনেক বড় হোন। আমি গর্বিত আজকের অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি এককালের রাজপথ কাঁপানো ছাত্র নেতা এ টি এম ফয়েজ ভাইকে পেয়ে।

সভাপতির বক্তব্যে কবি মোশাররফ হোসেন সুজাত বলেন জননী ফাউন্ডেশন ও জননী সাহিত্য সংসদ মানবতার সেবা ও প্রতিভা বিকাশের পাঠশালা। আমাদের প্রত্যেক সদস্য যেন সেখান থেকে সমাজ ও ব্যক্তিজীবনে নিজেদের প্রতিষ্ঠিত করতে পারে। তিনি অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথিসহ অতিথিদের ও ফাউন্ডেশনের সকল সদস্যদেরকে অনুষ্ঠানে এসে অনুষ্ঠানকে প্রাণবন্ত করে তুলার জন্যে শতত শুভেচ্ছা ও মোবারকবাদ জানান।

জননী ফাউন্ডেশন সদস্য শেখ সাদ এর কোরআন তেলাওয়াতের মাধ্যমে অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন জননী ফাউন্ডেশন সহ-সাধারণ সম্পাদক মোস্তফা মারুফ, সাংগঠনিক সম্পাদক সুহেল মিয়া, আইন সম্পাদক এডভোকেট (শিক্ষানবিশ) ডলি আক্তার ও সদস্য নজরুল ইসলাম, মারুফ আহমেদ।
অনুষ্ঠানের সংবর্ধিত ব্যক্তি জননী সাহিত্য সংসদের সদস্য সচিব মোশাররফ হোসেন ও জননী ফাউন্ডেশন এর সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ রিয়াজ উদ্দিন।

অনুষ্ঠানে কবিতা আবৃত্তি করেন জননী ফাউন্ডেশন এর প্রচার সম্পাদক ও সাহিত্য সংসদের সদস্য ইফ্ফাত জাহান, প্রভাষক মোশাররফ হোসেন ও কবি মোশাররফ হোসেন সুজাত।
গান পরিবেশন করেন এডভোকেট (শিক্ষানবিশ) হাফিজ আহমেদ ও ফাউন্ডেশনের সদস্য শেখ সাদ।

পরে অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি ও অতিথিবৃন্দ বরণীয় ব্যক্তিদেরকে সাহিত্য সংসদের পক্ষ থেকে ক্রেষ্ট উপহার দেন ও তাদের নিয়ে কেক কাটেন। এবং সাহিত্য সংসদের পক্ষ থেকে প্রধান অতিথিকে ফুলেল শুভেচ্ছা জানানো হয়। পরিশেষে আপ্যায়ন পর্বের মধ্য দিয়ে অনুষ্ঠানের সমাপ্তি ঘোষণা করা হয়


  • 55
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    55
    Shares

আরও পড়ুন

পূবালী ব্যাংকের কর্মশালা অনুষ্ঠিত

         সিলেট এক্সপ্রেস ডেস্ক: বাংলাদেশ ব্যাংক,...

আওয়ামী দুঃশাসন প্রতিহত করতে যুবদল প্রস্তুত

         সিলেট এক্সপ্রেস ডেস্ক : বিএনপি চেয়ারপার্সন...

কুলাউড়ায় ছাত্রলীগের দু’গ্রুপে সংঘর্ষ, ৬ পুলিশসহ আহত ২০

          মৌলভীবাজারের কুলাউড়ায় আধিপত্য বিস্তারকে...

পনিটুলা মহাপ্রভুর আখড়ায় অষ্টপ্রহর হরিনাম সংকীর্ত্তন ৭ জুলাই রবিবার

         সিলেট এক্সপ্রেস ডেস্ক: শ্রীশ্রী বক্রেশ্বর...