শ্রীমঙ্গলে সেন্ট মার্থাস স্কুলের প্রধান শিক্ষিকার এ কেমন অমানবিক আচরণ!

প্রকাশিত : ০৬ এপ্রিল, ২০১৮     আপডেট : ২ বছর আগে  
  

শ্রীমঙ্গল (মৌলভীবাজার) প্রতিনিধি: মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গলে সেন্ট মার্থাস উচ্চ বিদ্যালয়ের বেতন বকেয়া থাকায় ২ ছাত্রের পরীক্ষায় বাঁধা প্রদান করার অভিযোগ পাওয়া গেছে স্কুলের প্রধান শিক্ষিকার বিরুদ্ধে। গত বৃহস্পতিবার রাতে শ্রীমঙ্গল শহরের সাতগাওঁ টাওয়ারের বাসিন্দা মৃত আলকাছ আলীর ছেলে সাপ্তাহিক হলি সিলেট পত্রিকার নির্বাহী সম্পাদক সাংবাদিক এস এম জহুরুল ইসলাম এ অভিযোগ প্রদান করেন। শহরের দেববাড়ী লেনে অবস্থিত স্কুলের পঞ্চম শ্রেণীর ছাত্র এস এম তাওহিদ আল হাসাইন ও পিইসি পরীক্ষায় টেলেন্টপুলে বৃত্তি প্রাপ্ত ৬ষ্ঠ শ্রেণীর ছাত্র তাওফিক আল হোসাইনকে গত ৩ এপ্রিল মঙ্গলবার সকাল ৯টায় টেস্ট পরীক্ষার জন্য যথারীতি স্কুলের হলে প্রবেশ করতে গেলে স্কুলের প্রধান শিক্ষিকা মিস মেরি মার্গেট রিবেরু ওই দুই ছাত্রের বেতন বাকি থাকায় পরীক্ষা বন্ধ রেখে বাহিরে বাইরে দাঁড় করিয়ে রাখেন। এ সময় তারা কান্নাকাটি করলে লোকজন জড়ো হতে থাকে। পরে স্থানীয় লোকজন ও শিক্ষার্থীদের অভিভাবকদের ক্ষোভের মুখে পড়েন প্রধান শিক্ষিকা। বিপদ টের পেয়ে প্রধান শিক্ষিকা দুই শিক্ষার্থীকে আবেদন করতে বলেন। আবেদন করে পরীক্ষায় অংশ নিতে ততক্ষণে ৩০ মিনিট শেষ হয়ে যায়। ৯ম মিনিটের পরীক্ষায় ৩০ মিনিট চলে যাওয়ার পর তারা ভয় আর ভীতিকর পরিস্থিতিতে পরীক্ষা দিয়ে বাড়ি ফিরে। এ ঘটনায় দুই ছাত্রের অভিভাবক এম জহুরুল ইসলাম সিলেট বিভাগীয় কমিশনার, মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক বরাবর একটি লিখিত অভিযোগ প্রদান করেছেন ।
শ্রীমঙ্গলের উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও মৌলভীবাজার জেলা শিক্ষা কর্মকর্তাকে বিষয়টি অবগত করলে তারা তা ‘দেখছেন’ বলে জানান। এবিষয়ে ফোনে জানতে চাইলে স্কুলের প্রধান শিক্ষিকা মিস মেরি মার্গেট রিবেরু বলেন, ‘আমি ফোনে কথা বলতে চাচ্ছি না। আমাদের সভাপতি সিলেটে থাকেন, তার সাথে কথা বলে আপনাকে জানাব। আগামীকাল সকালে আসেন (স্কুলে) বসে কথা বলবো’ বলে ফোন রেখে দেন।
কোমলমতি ছাত্রদের প্রতি একজন প্রধান শিক্ষিকার অমানবিক আচরণের এ বিষয়টি নিয়ে শহরের সাধারণ মানুষের মধ্যে তীব্র ক্ষোভের সৃষ্টি করেছে।

আরও পড়ুন



দক্ষিণ সুরমায় মাদক ও অস্ত্রসহ আটক ২

সিলেটের দক্ষিণ সুরমায় মাদকদ্রব্য ও...

উপজেলাবাসী উন্নয়নের পক্ষে ভোট দিয়েছেন

সিলেট এক্সপ্রেস ডেস্ক: সিলেট জেলা...

কর্মচঞ্চল সিকৃবি

সিলেট এক্সপ্রেস ডেস্ক: নতুন বছরের...