শ্রদ্ধা-ভালোবাসায় আ ন ম শফিককে বিদায় দাফন সম্পন্ন

Alternative Text
,
প্রকাশিত : ১৫ আগস্ট, ২০১৯     আপডেট : ২ বছর আগে
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

আওয়ামী লীগের জাতীয় পরিষদ সদস্য ও সিলেট জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি বর্ষীয়ান রাজনীতিবিদ ও কেন্দ্রীয় মুসলিম সাহিত্য সংসদের সভাপতি ডায়াবেটিক সমিতি সিলেটের কার্য্যকরী কমিটির সদস্যসহ বিভিন্ন সামাজিক সাংস্কৃতিক সংগঠনের সাথে সম্পৃক্ত আ ন ম শফিকুল হক বাদ আছর দরগাহ হযরত শাহজালাল (র:) মসজিদে জানাযা শেষে মসজিদ সংলগ্ন কবরন্থানে দাঢন সম্পন্ন হয়েছে।
বৃহস্পতিবার বাদ যোহর উপজেলার দৌলতপুর ইউনিয়নের মৌলভীরগাঁও গ্রামস্থ নিজ বাড়িতে অনুষ্ঠিত মরহুমের প্রথম জানাযার নামাজে মানুষের ঢল নামে। আর প্রিয় মানুষটিকে বিদায় জানাতে বৃষ্টিতে ভিজেও জানাযার নামাজ আদায় করেন এলাকাবাসী। জানাযার নামাজের ইমামতি করেন মরহুমের মামাত ভাই মাওলানা রওনক আহমদ।

উপজেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র যুগ্ম সম্পাদক ও দৌলতপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আমির আলীর পরিচালনায় জানাযার নামাজ পূর্ব আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন পরিকল্পনা মন্ত্রী এম এ মান্নান এমপি, সিলেট-২ আসনের এমপি মোকাব্বির খান, খেলাফত মজলিসের কেন্দ্রীয় যুগ্ম মহাসচিব মুহাম্মদ মুনতাসির আলী, বিশ্বনাথ উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি আলহাজ্ব মজম্মিল আলী, বর্তমান সহ সভাপতি সমছু মিয়া, মোহাম্মদ আসাদুজ্জামান, ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক ফারুক আহমদ, যুগ্ম সম্পাদক মকদ্দছ আলী, সাংগঠনিক সম্পাদক আবদুল আজিজ সুমন, সাবেক যুগ্ম সম্পাদক এ এইচ এম ফিরুজ আলী, মহানগর যুবলীগের সাবেক যুগ্ম আহবায়ক সেলিম আহমদ, উপজেলা যুবলীগের যুগ্ম আহবায়ক আলতাব হোসেন এবং পরিবারের পক্ষে বক্তব্য রাখেন মরহুমের ভাই নজরুল হক।
বিকাল ৩টায় সিলেট কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারের তাঁর লাশ আনা হলে সেখানে শ্রদ্বা জানান সিলেটের সর্বস্বরের মানুষ। পরে সিলেট কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার থেকে বিকেলে কেন্দ্রীয় মুসলিম সাহিত্য সাহিত্য সংসদে নিয়ে আসা হয়। সাহিত্য সংসদের সাধারণ সম্পাদক দেওয়ান মাহমুদ রাজা চৌধুরী সাহিত্য সংসদের কর্মকর্তা-সদস্যদেরকে নিয়ে মরহুমের লাশ গ্রহণ করেন। সাহিত্য সংসদের পক্ষ থেকে লাশে পুস্পস্তবক দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন করা হয়।বাদ আসর দরগাহে হযরত শাহজালাল (রহ:) মাজার মসজিদে মরহুমের দ্বিতীয় নামাজে জানাজা শেষে তাঁকে দরগাহে হযরত শাহজালাল (রহ:) মাজার সংলগ্ন কবরস্থানে দাফন করা হয়।


বুধবার বিকেল ৩টা৪০ মিনিটে তিনি নগরীর সোবহানীঘাটস্থ আল হারমাইন হাসপাতালে ইন্তেকাল করেন (ইন্নালিল্লাহি… রাজেউন)।
পরিচ্ছন্ন রাজনীতিবিদ আ ন ম শফিকের মৃত্যুতে সিলেটের রাজনীতি ও সামাজিক অঙ্গনে শোকের ছায়া নেমে আসে। মৃত্যু সংবাদ শোনার পর তাঁর উপশহরের বাসায় রাজনীতিক নেতাকর্মী ও শুভানুধ্যায়ীরা ভীড় জমান।

তিনি দীর্ঘদিন ধরে দুরারোগ্য ক্যান্সার রোগে ভুগছিলেন। এর আগে তিনি ভারতে গিয়ে লিভার ট্রান্সপ্ল্যান্ট করে এসেছিলেন। মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিলো ৭৪ বছর। তিনি স্ত্রী, ২ পুত্র ও ৩ কন্যাসহ অসংখ্য রাজনীতিক কর্মী , গুনগ্রাহী ও আত্মীয়স্বজন রেখে গেছেন।

আ ন ম শফিক ১৯৬৫ সালে সিলেট জেলা ছাত্রলীগের সদস্য হিসেবে রাজনীতিতে পা রাখেন। ১৯৬৯ সালের গণ-অভ্যুত্থানে সক্রিয় ভূমিকা রাখেন। ১৯৭০ সালে অনুষ্ঠিত সাধারণ নির্বাচনে জনমত গঠনে ঝাঁপিয়ে পড়েছিলেন। ১৯৭১ সালের ২৬ মার্চ জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নির্দেশে মুক্তিযুদ্ধের সংগঠক হিসেবে কাজ করেছেন।
১৯৭৫ সালে ১৫ই আগস্টের কালো রাতে জাতির জনক বঙ্গবন্ধুকে সপরিবারে হত্যার পর আ ন ম শফিকুল হক প্রতিবাদ-প্রতিরোধ আন্দোলনে ঝাঁপিয়ে পড়েন। খন্দকার মোশতাক, মেজর জেনারেল জিয়াউর রহমান, জেনারেল এরশাদ এবং বেগম খালেদা জিয়ার শাসনামলে আন্দোলনে ১৫ দল, ৮ দল ও ১৪ দলে সিলেট জেলা আওয়ামী লীগের প্রতিনিধিত্ব করেন এবং রাজনৈতিক মাঠে সক্রিয় ভূমিকা পালন করেন।


  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

আরও পড়ুন

How-to Enhance Skills for Sixth Graders

         In case your subject has...

স্পেনে ভয়েস অব বার্সেলোনার ইফতার অনুষ্ঠিত

         কবির আল মাহমুদ, স্পেন :স্পেনের...

আন্তর্জাতিক হাঁটা দিবসে লিডিং ইউনিভার্সিটির পদযাত্রা

         সিলেট এক্সপ্রেস ডেস্ক: এক বর্ণাঢ্য...