শাল্লায় পন্যবাহী নৌকায় আগুন তিন বাজারের মালামাল পুড়ে ছাই

,
প্রকাশিত : ২০ এপ্রিল, ২০১৯     আপডেট : ২ বছর আগে
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

শাল্লা প্রতিনিধি-

সুনামগঞ্জের শাল্লা উপজেলার মামুদনগর বাজারে মরা সুরমা নদীতে কিশোরগঞ্জ জেলার ভৈরব বাজার নদীবন্দর থেকে আসা একটি পন্যবাহী নৌকায় আগুন লেগে তিনটি বাজারের বিভিন্ন মালামাল পুড়ে ছাই হওয়ার খবর পাওয়া গেছে।
জানা যায় ১৯ এপ্রিল শুক্রবার আসরের নামাজের পর পরই ওই নৌকাটি মামুদনগর বাজার ঘাটে পৌঁছা মাত্রই এ ঘটনা ঘটে।
স্থানীয় লোকজন জানান নৌকাটি দীর্ঘ চল্লিশ বছর ধরে বি-বাড়িয়া জেলার নাসিরনগর উপজেলার ফকিরদিয়া গ্রামের শাহেদ আলী মাঝি শ্যামারচর, আনন্দপুর ও মামুদনগর বাজারের মালামাল ভৈরব থেকে নিয়মিত পরিবহন করে আসছে। তারা আরো জানান শাহেদ আলী মাঝি বার্ধক্য জনিত কারণে এখন আসেননি।
তবে তার পুত্র আবু তাহের নিয়মিতভাবে ওই তিন বাজারের মালামাল পরিবহন করে আসছেন।
নৌকার শ্রমিক শহিদুল ইসলাম স্থানীয় মিডিয়া কর্মীদের জানান- নৌকায় আগুন লাগার সময় তিনি নৌকার বাইরে ছিলেন।
তিনি আরো বলেন, নৌকার ভিতরে একটি শব্দ শুনতে পান এবং সাথে সথে আগুনও দেখতে পান। এসময় তিনি চিৎকার করে লোকজনকে ডাকতে থাকেন। তিনি আরো জানান এ নৌকাটির পন্য ধারণ ক্ষমতা প্রায় ৩ হাজার মণ।
স্থানীয় মামুদনগর বাজারের মেসার্স কাজী এন্টারপ্রাইজের পরিচালক কাজী আব্দুল কুদ্দুছের সাথে কথা হলে তিনি বলেন, নৌকাটি আসরের আযানের সাথে সাথে আমাদের বাজার ঘাটে পৌঁছে। আমরা মসজিদ থেকে নামাজ পড়ে এসেই দেখতে পাই নৌকায় আগুন লেগেছে। তিনি আরো বলেন, আগুন নৌকার গুদামে লেগেছিল। এসময় নৌকায় লাগা আগুন এতই বিশাল রূপ ধরেছিল যে, মানুষ পাশে যেতে পারছিল না।
শ্যামারচর বাজারের ব্যবসায়ী ধন মিয়া মাস্টার ও ইউসুফ আলী জানান আমরা নৌকার লোকজনের কাছ থেকে মোবাইলে গ্যাস সিলিন্ডারের মাধ্যমে নৌকায় আগুন লাগার বিষয়ে জানতে পেরে ছুটে এসেছি। তারা বলেন, নৌকাটিতে প্রায় ২শ’টি কোরোসিনের ড্রাম, দেড়শটি গ্যাস সিলিন্ডারসহ প্রায় ২কোটি টাকার মালামাল ছিল। সব পুড়ে গেছে।
মামুদনগর গ্রামের বাদশা মিয়া বলেন, নৌকাটি আমাদের ঘাটে আসামাত্রই আগুন লাগার ঘটনা ঘটে। ওই আগুন কেরোসিনের ড্রাম ও গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরিত হয়ে দ্রুত ছড়িয়ে পড়ে। মানুষ সাহস করতে পারছিল না আগুন নেভাতে। কারণ গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরিত হওয়ায় লোকজন পাশে যেতে পারেনি।
শ্যামারচর বাজার ব্যবসায়ী সমিতির সাধারণ সম্পাদক সজল কান্তি দাস বলেন, নৌকাটিতে আমাদের বাজারের প্রায় সব ব্যবসায়ীর মালামাল ছিল। যার সঠিক হিসাব করা এখন সম্ভব নয়। আমরা আগামিকাল তিন বাজারের ব্যবসায়ীগণ বসে হিসাব করে জানতে পারবো কত টাকার মালামাল ক্ষতি হয়েছে। তিনি আরো বলেন, নৌকাটিতে আগুন লেগে সব মালামাল পুড়ে ছাই হওয়ায় নৌকার পরিচালক আবু তাহের জ্ঞান হারিয়ে ফেলে। সাথে সাথে আমরা তাকে আমার বাড়িতে নিয়ে যাই এবং প্রাথমিক সেবা দিই।


  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

আরও পড়ুন

বাংলাদেশে দুই করোনারোগী সুস্থ: আইইডিসিআর

         দেশে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত তিনজন...

সাবেক এমপি অ্যাডভোকেট আব্দুল মজিদ মাস্টার এর ইন্তেকাল

        সিলেট এক্সপ্রেস ডেস্ক: সুনামগঞ্জ-৫ (ছাতক-দোয়ারাবাজার)...