লিডিং ইউনিভার্সিটিতে শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস ২০২০ পালিত

,
প্রকাশিত : ১৪ ডিসেম্বর, ২০২০     আপডেট : ১ বছর আগে

সিলেট এক্সপ্রেস ডেস্ক শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবসে লিডিং ইউনিভার্সিটি গভীর শ্রদ্ধার সাথে স্মরণ করে ১৯৭১ সালের এই দিনে বিজয়ের ঠিক প্রাক্কালে পাকিস্তানি হানাদার বাহিনী কর্তৃক নৃশংসভাবে নিহত বাংলাদেশের সূর্যসন্তান এবং সংবেদনশীল বুদ্ধিজীবীদের।
এ উপলক্ষে সোমবার (১৪ ডিসেম্বর ২০২০) সকাল ১১:০০টায় বিশ্ববিদ্যালয় প্রাঙ্গণে অবস্থিত শহীদ মিনারে শ্রদ্ধাঞ্জলি প্রদান করেন লিডিং ইউনিভার্সিটির প্রতিষ্ঠাতা ও বোর্ড অব ট্রাস্টিজের চেয়ারম্যান দানবীর ড. সৈয়দ রাগীব আলী, ভারপ্রাপ্ত উপাচার্য শ্রীযুক্ত বনমালী ভৌমিক, বোর্ড অব ট্রাস্টিজের সদস্য সৈয়দ আব্দুল হাই, বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক, কর্মকর্তা ও কর্মচারীবৃন্দ।

পরবর্তীতে বিশ্ববিদ্যালয়ের দ্বিতীয় একাডেমির ভবনের গ‍্যালারি-১এ শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস, ২০২০ উপলক্ষে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।
শহীদদের আত্মার মাগফিরাত কামনা করে এক মিনিট নিরবতা পালন করে শহীদ বুদ্ধিজীবী হত‍্যার খন্ড ভিডিও চিত্র দেখানো হয়।

শহীদ বুদ্ধিজীবীদের নৃশংসভাবে হত‍্যার দিনের কথা স্মরণ করে এবং সিলেটের অসংখ্য বুদ্ধিজীবীদের নাম উল্লেখ করে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে ড. রাগীব আলী বলেন, ঐদিনের ঘটনা ছিল খুবই বেদনাদায়ক। তা বুকে ধারণ করে এ দেশকে এগিয়ে নিতে আমাদের কাজ করতে হবে। সঠিকভাবে দায়িত্ব পালন করতে হবে।

সভাপতির বক্তব্যে বনমালী ভৌমিক বলেন, শহীদদের রক্তের বিনিময়ে অর্জিত বাংলাদেশের আজকের এ উন্নয়নই বলে দিচ্ছে তাদের রক্ত বৃথা যায়নি। আমাদেরকে এ উন্নয়নের ধারাবাহিকতা ধরে রাখতে হবে।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে সৈয়দ আব্দুল হাই বলেন, পাকিস্তানি হানাদারদের ঐ দিনের বর্বরতা ছিল খুবই দুঃখজনক। কিন্তু তা আমাদেরকে রুখে রাখতে পারেনি। আজ বাংলাদেশ উন্নয়নের পথে তাদের চেয়ে অনেক এগিয়ে।

অনুষ্ঠান আয়োজন কমিটির আহবায়ক ও বিশ্ববিদ্যালয়ের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক ড. মোস্তাক আহমাদ দীনের স্বাগত বক্তব্যের পর বুদ্ধিজীবী হত‍্যার ফলে এদেশ যে কতটুকু ক্ষতবিক্ষত হয়ে পরে, এবং তা আজেকের এ বাংলাদেশ হিসেবে প্রতিষ্ঠা করায় বাঙালি জাতি যে কত কষ্ট করেছে তার চিত্র তোলে ধরে বক্তব্য রাখেন বিশ্ববিদ্যালয়ের আধুনিক বিজ্ঞান অনুষদের ডিন অধ‍্যাপক ড. এম. রকিব উদ্দিন, কলা ও আধুনিক ভাষা অনুষদের ডিন অধ‍্যাপক নাসির উদ্দিন, রেজিস্ট্রার মেজর (অব.) মো. শাহ আলম. পিএসসি, প্রক্টর ও আইন বিভাগের বিভাগীয় প্রধান মো. রাশেদুল ইসলাম, ইংরেজি বিভাগের বিভাগীয় প্রধান মো. রেজাউল করিম, আর্কিটেকচার বিভাগের বিভাগীয় প্রধান স্থগিত রাজন দাস, ইলেকট্রিক‍েল এন্ড ইলেকট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের বিভাগীয় প্রধান রুমেল এমএস রহমান পীর, ব‍্যবসায় প্রশাসন বিভাগের বিভাগীয় প্রধান ড. মোহাম্মদ শাহানশাহ মোল্লা, কম্পিউটার সায়েন্স এন্ড ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের ভারপ্রাপ্ত বিভাগীয় প্রধান আরিফ আহমেদ, ট‍্যুরিজম এন্ড হসপিটালিটি ম‍্যানেজমেন্ট বিভাগের ভারপ্রাপ্ত বিভাগীয় প্রধান মো মাহবুবুর রহমান, সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগীয় প্রধান সৈয়দা জিয়ান ফারজানা, পাবলিক হেলথ বিভাগের ভারপ্রাপ্ত বিভাগীয় প্রধান কেএমে শফিক, ইসলামিক স্টাডিজ বিভাগের ভারপ্রাপ্ত বিভাগীয় প্রধান ফজলে এলাহি মামুন। অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনায় ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের ডেপুটি রেজিস্ট্রার (এডমিশন) মো. কাওসার হাওলাদার।


আরও পড়ুন