লকডাউনে রাতে কৈ মাছ কিনার আনন্দ

,
প্রকাশিত : ১৯ এপ্রিল, ২০২১     আপডেট : ১০ মাস আগে
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

তাসলিমা খানম বীথি :
লকডাউনে রাত তখন সাড়ে নয়টা হলেও দেখে মনে হয় মধ্যরাত। হসপিটালে ডিউটি শেষে হেঁটে আসছি। দোকানপাঠ বন্ধ থাকলেও কয়েকটি সবজি আর মাছ বিক্রেতা রাস্তার পাশে বসে আছে। হেঁটে আসতে দেখে ডাক দিলেন -আপা মাছ নিবেন। লোকটি আবার বিনীয় করে বলছে- দেখে মায়া হলো। নিশ্চিয় আজ মাছ বিক্রি করতে পারিনি। আমি কিনলে হয়তো তার ঘরে বাজার যাবে। সেই ভেবে মাছের কাছে গিয়ে দেখি থালা ভর্তি কৈ মাছ লাফাচ্ছে। দেখেই ভালো লাগলো। কারন আম্মা আব্বা মাছ খুব পছন্দ করে। ঘরের সব বাজার করলেও মাছ সবজি বাজার হঠাতে করি। মাছ কিনে নিলেও আম্মা ভাবে বেশি টাকা দিয়ে পচা মাছ নিয়ে আসি। তাই মাছ কিনতে গেলেই জিতা না মরা।দাম জিজ্ঞাসা করতে বলল ৫০০টাকা। আমি ১০০ টাকা বলে চলে আসি। লোকটি বলল আপা ১৫০ দিলে হবে। মাছ বিক্রেতা সাথে কথা বলার ফাঁকে সে জিজ্জাসা করে আমি কি ফ্রিডম হসপিটালে জব করি জি- কেন বলুন তো। আপনি মানুষের সেবা করছেন। আমাকে ১০০ দিলে হবে। আমি অবাক হই। জোর করে ১৩০ দিয়ে আসি। লোকটিকে বলি-চিকিৎসা প্রয়োজনে হসপিটালে আসবেন।
বাসা এসে দেখি সবাই নামাজে। আমি ফ্রেশ হয়ে চোখ বন্ধ করে একটু রেস্ট নেই। কিছুক্ষণ পর নামাজ শেষে রান্না ঘরে মাছ দেখে আম্মা জিজ্ঞাসা করেন কত নিছে। কৈ মাছের লাফালাফি দেখে আর দাম শুনে আম্মা তো মহাখুশি। যাক তাহলে আজকে মাছ কিনা সার্থক হয়েছে। পছন্দের মাছ আম্মা আব্বা খুশি দেখে ভিষণ ভালো লাগছিল।


  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

আরও পড়ুন

বিশ্বনাথ থেকে চুরি হওয়া ৮ মোবাইলসহ নারী গ্রেপ্তার

         সিলেটের বিশ্বনাথে জুয়েল মোবাইল...

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ব্যবহারে শিক্ষকদের প্রতি কঠোর নির্দেশনা

        রাষ্ট্র, ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানের ভাবমূর্তি...

সিলেটে প্রাথমিক সহকারি শিক্ষক সমিতির আলোচনা সভা, ইফতার ও দোয়া মাহফিল

        সিলেট এক্সপ্রেস ডেস্ক: বাংলাদেশ প্রাথমিক...