রেজিস্ট্রারি মাঠে বিএনপিকে বিভাগীয় সমাবেশের অনুমতি দেয়নি পুলিশ

প্রকাশিত : ২৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৯     আপডেট : ৭ মাস আগে  
  

সিলেট নগরীর রেজিস্ট্রারি মাঠে আজ মঙ্গলবারের বিভাগীয় সমাবেশের অনুমতি দেয়নি পুলিশ। গতকাল সোমবার রাতে রেজিস্ট্রারি মাঠে সমাবেশ করতে বারণ করে বিএনপিকে ঘরোয়া সমাবেশ করতে বলেছে পুলিশ। এদিকে, সমাবেশে পুলিশি বাধার অভিযোগ করেছেন বিএনপি নেতৃবৃন্দ।
বিএনপি’র পক্ষ থেকে বলা হয়, গতকাল সোমবার দুপুরে পুলিশ প্রথমে তাদেরকে মঞ্চ ছোট করতে বলে। পরে রাত ৮টা দিকে গিয়ে মঞ্চ ভেঙে নিয়ে যেতে বলে এবং এখানে সমাবেশ করা যাবে না বলে জানিয়ে দেয়।
সিলেট কোতোয়ালী মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ সেলিম মিয়া সিলেটের ডাককে বলেন, বিএনপিকে ঘরোয়া সমাবেশ করতে বলা হয়েছে। এদিকে, নির্দিষ্ট স্থানে নির্ধারিত সময়ে সমাবেশ আয়োজনে অনড় রয়েছে বিএনপি। গতকাল সোমবার রাতে জরুরি সভা শেষে সিলেট জেলা ও মহানগর বিএনপির নেতৃবৃন্দ নেতাকর্মীদের বিভ্রান্ত না হয়ে যথাসময়ে উপস্থিত হয়ে সমাবেশ সফল করার আহবান জানান। এক বিবৃতিতে তারা শেষ পর্যন্ত সরকারের কাছ থেকে প্রত্যাশিত সহযোগিতা পাবেন বলে আশা প্রকাশ করেন। সমাবেশে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরসহ নির্ধারিত কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ উপস্থিত হবেন বলে নিশ্চিত করেন বিএনপি’র সিলেট বিভাগীয় সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক ও সাবেক এমপি কলিম উদ্দিন আহমদ মিলন। তিনি বলেন, সমাবেশে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর এবং দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য খন্দকার মোশাররফ হোসেন, ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ, মির্জা আব্বাস ও গয়েশ্বর চন্দ্র রায় ছাড়াও দলের কেন্দ্রীয় নেতারা উপস্থিত থাকবেন।
সিলেট জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আলী আহমদ বলেন, সমাবেশের তারিখ নির্ধারিত হওয়ার পর স্থানীয় পুলিশ প্রশাসনকে বিষয়টি অবহিত করা হয়। কিন্তু তাদের পক্ষ থেকে কোনো বক্তব্য পাওয়া যায়নি, যা সম্মতির লক্ষণ। যদিও সমাবেশ আয়োজনে অবহিতকরণের নিয়ম রয়েছে সেখানে অনুমতি নেয়ার কোনো নিয়ম নেই। পরে সমাবেশ সফলে বিএনপি প্রচার কার্যক্রম শুরুর পর্যায়ে করলে পুলিশ তাদের মাইকিং করতে নিষেধ করলে তারা মাইকিং বন্ধ রাখেন। গত কিছুদিন থেকে বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দসহ স্থানীয় নেতৃবৃন্দ সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনারের সাথে দেখা করতে গেলেও তাঁর সাথে সাক্ষাৎ করতে পারেননি।
তিনি অভিযোগ করেন, গত রোববার প্রচারপত্র বিলি করার সময় বিএনপির নেতাকর্মীদের উপর পুলিশ হামলা চালিয়ে তাদের আহত ও গ্রেফতার করেছে। তিনি জানান, তাদের সমাবেশের মঞ্চটি ৫০ফুট বাই ২০ ফুট নির্মাণ করা হয়েছিল। গতকাল সোমবার দুপুরে পুলিশ এসে মঞ্চটি ছোট করতে বলে। পরে তাদের উপস্থিতিতে মঞ্চটি ২০ ফুট বাই ১০ ফুট করা হয়। মঞ্চ ও প্যান্ডেল প্রস্তুত করার সময় রাত ৮টার দিকে পুলিশ আবার এসে জানায়, এখানে সমাবেশ করা যাবে না। সমাবেশ করতে হলে ঘরোয়াভাবে করতে হবে। তারা মঞ্চ ও প্যান্ডেল তৈরির কাজে নিয়োজিত লোকজনকে দ্রুত তাদের সরঞ্জাম সরিয়ে নিতে বলে। এদিকে, সমাবেশে পুলিশের বাধা দেয়ার প্রেক্ষিতে রাতে সিলেট বিএনপি এক জরুরি সভায় মিলিত হয়। সভায় রেজিস্ট্রারি মাঠের আজকের সিলেট বিভাগীয় সমাবেশ অব্যাহত রাখার ঘোষণা দিয়েছেন সিলেট জেলা ও মহানগর বিএনপির নেতৃবৃন্দ। যথাসময়ে উপস্থিত থেকে সমাবেশ সফল করার জন্য দলীয় নেতাকর্মীদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন তাঁরা। শেষ পর্যন্ত সরকারের কাছ থেকে সমাবেশ সফলে প্রত্যাশিত সহযোগিতা পাবেন বলেও আশা প্রকাশ করেন তারা। গতকাল সোমবার রাতে এক জরুরি বিজ্ঞপ্তিতে সিলেট জেলা বিএনপির সভাপতি আবুল কাহের চৌধুরী শামীম, মহানগর সভাপতি নাসিম হোসাইন, জেলা সাধারণ সম্পাদক আলী আহমদ ও মহানগর ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট শামীম সিদ্দিকী বলেন, রেজিষ্টারি মাঠে বিএনপির সিলেট বিভাগীয় সমাবেশ নিয়ে বিভ্রান্ত হওয়ার অবকাশ নেই। আমাদের পূর্বঘোষিত সমাবেশ যথাসময়ে যথাস্থানে অনুষ্ঠিত হবে। সমাবেশ সফলে সরকারের পক্ষ থেকে প্রয়োজনীয় সহযোগিতারও আহ্বান জানান তারা।
সিলেটে সমাবেশস্থল পরিদর্শনে কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ ॥
২৪ সেপ্টেম্বর মঙ্গলবারের সিলেট বিভাগীয় সমাবেশস্থল ঐতিহাসিক রেজিস্ট্রারি মাঠ পরিদর্শন করেছেন কেন্দ্রীয় ও সিলেটের বিএনপি নেতৃবৃন্দ। গতকাল সোমবার দুপুরে বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান ও সিলেট বিভাগের দায়িত্বপ্রাপ্ত নেতা ডা: এজেডএম জাহিদ হোসেনের নেতৃত্বে রেজিস্ট্রারি মাঠ পরিদর্শন করেন তারা।
এসময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান ডা: এজেডএম জাহিদ হোসেন, বিএনপির কেন্দ্রীয় সিলেট বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক ডা: সাখাওয়াত হাসান জীবন, বিএনপি চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা আলহাজ¦ এম.এ হক ও ড. মোহাম্মদ এনামুল হক চৌধুরী, কেন্দ্রীয় সিলেট বিভাগীয় সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক সাবেক এমপি কলিম উদ্দিন মিলন, বিএনপির কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য ও সিলেট জেলা সভাপতি আবুল কাহের চৌধুরী শামীম, কেন্দ্রীয় সদস্য মিজানুর রহমান চৌধুরী মিজান, মহানগর বিএনপির সভাপতি নাসিম হোসাইন, জেলার সাধারণ সম্পাদক আলী আহমদ, মহানগর ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক এডভোকেট শামীম সিদ্দিকী, জেলা সহ-সভাপতি কামরুল হুদা জায়গীরদার, মহানগর সহ-সভাপতি কাউন্সিলর ফরহাদ চৌধুরী শামীম ও রেজাউল হাসান কয়েস লোদী, মহানগর যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক এমদাদ হোসেন চৌধুরী, জেলা সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুল আহাদ খান জামাল ও মহানগর সহ-দফতর সম্পাদক লোকমান আহমদ প্রমুখ।

আরও পড়ুন



নারীর অধিকার প্রতিষ্ঠায় সকলকে দায়িত্বশীল ভূমিকা পালন করতে হবে

সাইক্লোন কেন্দ্রীয় সংসদের উদ্যোগে আন্তর্জাতিক...

লন্ডন স্পোর্টিফের উদ্যোগে জমজমাট ক্রিকেট টুর্নামেন্ট সম্পন্ন

সিলেট এক্সপ্রেস ডেস্ক: বৃটেনে বাংলাদেশী...

‘ন্যাশনাল ডিবেট চ্যাম্পিয়নশীপ’ উদ্ভোধন

নর্থ ইস্ট ইউনিভার্সিটি বাংলাদেশ ডিবেটিং...