রায়হান আহমদের মরদেহ উত্তোলন করে ওসমানী মেডিকেল কলেজ মর্গে

Alternative Text
,
প্রকাশিত : ১৫ অক্টোবর, ২০২০     আপডেট : ২ বছর আগে

নিজস্ব প্রতিবেদক :- বন্দরবাজার পুলিশ ফাঁড়িতে ‘নির্যাতনে’র নিহত নগরীর আখালিয়া এলাকার রায়হান আহমদের (৩৪) মরদেহ পুনরায় ময়না তদন্তের জন্য কবর থেকে উত্তোলন করে ওসমানী মেডিকেল কলেজ মর্গে নেওয়া হয়েছে।

আজ বৃহস্পতিবার (১৫ অক্টোবর) সকাল ৯টার দিকে পিবিআই পুলিশের একটি দল আখালিয়াস্থ এলাকার নবাবী মসজিদের পঞ্চায়েতের গোরস্থান থেকে লাশটি তোলার কাজ শুরু করেন।

প্রায় ২ঘণ্টা পর সকাল ১১টার দিকে জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট’র উপস্থিতিতে লাশ উত্তোলনের পর পুনরায় ময়নাতদন্তের জন্য সিলেট ওসমানী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পুলিশের পাহারায় নিয়ে যাওয়া হয়। এসময় উপস্থিত ছিলেন, পিবিআই তদন্ত কর্মকর্তা মাহিদুল হাসান, ৯ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মখলিছুর রহমান কামরানসহ পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনের (পিবিআই) একটি তদন্ত টিম ।

পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই) সিলেট জেলা পুলিশ সুপার খালেকুজ্জামান বলেন, জেলা প্রশাসনের ম্যাজিস্ট্রেটের উপস্থিতিতে রায়হান নামের এক যুবকের লাশ তোলা হয়েছে। লাশ তোলার পর সুরতহাল করে ওসমানী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের মর্গে লাশ পাঠানো হয়। সেখানে মেডিক্যাল বোর্ড গঠনের পর তার ময়নাতদন্ত করা হবে।

এর আগে পুণরায় ময়না তদন্তের জন্য রায়হানের মরদেহ কবর থেকে উত্তোলনের আবেদন করেছিলেন মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা কতোয়ালি থানার উপ পরিদর্শক (এসআই) আব্দুল বাতেন। পুলিশের আবেদনের প্রেক্ষিতে গতকাল বুধবার আদালত রায়হানের পুন:ময়না তদন্তের জন্য কবর থেকে লাশ তোলার নির্দেশ দেন ।

পুলিশ সদর দপ্তরের নির্দেশে বর্তমানে এই মামলাটির তদন্ত করেছে পিবিআই। মঙ্গলবার রাতেই এই মামলার নথি পিবিআই’র কাছে হস্তান্তর করে এসএমপি।

এই ঘটনায় বন্দর বাজার ফাঁড়ির ইনচার্জ এসআই আকবর হোসেন ভূঁইয়াসহ ৪জনকে সামিয়িক বরখাস্ত ও ৩ জনকে প্রত্যাহার করা হয়েছে ।


আরও পড়ুন