রাত পোহালেই পহেলা বৈশাখ : স্বাগত ১৪২৬ বাংলা

প্রকাশিত : ১৩ এপ্রিল, ২০১৯     আপডেট : ১ বছর আগে  
  

তাসলিমা খানম বীথি: জীবনের পাওয়া না পাওয়ার আনন্দ-বেদনাকে মুছে দিতে আবারো নব উদ্যমে নতুন রূপে এসেছে প্রকৃতিতে পহেলা বৈশাখ। নতুন স্বপ্ন, নতুন আশা- ভরসার উদ্যম ও প্রত্যাশার আলোকিত করে তুলবে নতুন বাংলা বৎসর। স্বাগত ১৪২৬ বাংলা।
আর মাত্র কয়েক ঘন্টা পরই বাংলা বর্র্ষকে বরণ করে নেয়া হবে। বাঙালির জীবনে নতুন দিন, নতুন বারতা শুরু হবে রাত পোহালেই। সূর্যোদয়ের মধ্য দিয়ে সূচনা হবে বাংলা ১৪২৬ সালের প্রথম প্রহরটি। এলো পহেলা বৈশাখ। বাঙালি প্রাণে ঘরে বাইরে বর্ণিল রঙে রাঙাবে প্রতিটি প্রাণ। প্রাণে প্রাণ মিলে মেতে উঠবে বৈশাখী উৎসবে।
প্রভাতে নতুন সূর্য্যদয়ের সাথে সাথে সকল বাঙালিদের কণ্ঠে ধ্বনিত হবে-
“এসো, এসো, এসো হে বৈশাখ,
তাপস নিশ্বাস বায়ে, মুমূর্ষরে দাও উড়ায়ে,
বৎসরের আবর্জনা দূর হয়ে যাক,
যাক পুরাতন স্মৃতি, যাক ভুলে যাওয়া গীতি,
যাক অশ্রুবাষ্প সুদূরে মিলাক ”

সারাদেশে ন্যায় বর্ষ বরণের প্রস্তুত সিলেটও। সিলেট সিটি কর্পোরেশনে বাংলা নববর্ষ ১৪২৬ কে বরণ করতে নানা প্রস্তুতি নিয়েছে। প্রতিবারের মত সিসিক এবারও বছরের নতুন সূর্যকে বরণ করতে পহেলা বৈশাখ সকাল ৯ টায় নগরীতে আনন্দ শোভাযাত্রা বের করবে।
এছাড়া সকাল ১০ টায় নগর ভবনে শিশু কিশোরদের মধ্যে চিত্রাংকন প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হয়েছে। পহেলা বৈশাখ থেকে সপ্তাহব্যাপী ঐতিহাসিক সারদা হলের সামনে শুরু হবে বৈশাখী মেলা।
এসব অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করবেন সিটি মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী। এ সকল অনুষ্ঠানে নগরীর সকল শ্রেণী পেশার নাগরীকদের অংশ গ্রহন করতে অনুরোধ জানিয়েছেন সিটি মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী।

বর্ণিল রং উৎসবে গ্রাম থেকে শহর মেতে উঠবে বৈশাখ। মুড়ি মুড়কি, মন্ডা মিঠাইয়ের সঙ্গে নাচে-গানে, ঢাকে-ঢোলে, শোভাযাত্রায় পুরো জাতি বরণ করবে নতুন বছরকে। উৎসব হিসেবে পহেলা বৈশাখ বাংলাদেশে বাঙালিদের উৎসবের প্রতীক হয়ে উঠেছে।

বাংলা নববর্ষ বাঙালিদের ঐতিহ্যের নিজস্বতায় ধর্ম, বণে ঊর্ধ্বে ওঠা একমাত্র সার্বজনীন উৎসব। গ্রামীণ কৃষ্টি ও সংস্কৃতির পহেলা বৈশাখ এখন শহরের আঙিনায় আলোকিত প্রাণের উৎসব। গ্রাম থেকে শহরে আনন্দমুখর পরিবেশ ও নানান অনুষ্ঠানে বরণ করে নেওয়া হচ্ছে নতুন বাংলা বছর।

পাওয়া না পাওয়ার নিয়ে মানুষের জীবন। এই অপ্রাপ্তি, ব্যর্থতা ও ভুলের হিসাব বেশির ভাগ মানুষেরই মেলে না। বেচে থাকার স্বপ্ন-আশা আর আঙ্খাকাকে নিয়ে শুরু হবে নতুন একটি বছর। আজকের চৈত্রের শনিবার সূর্য্য ডোবার মধ্যে দিয়ে শেষ হয়ে যাবে ১৪২৫ বাংলা। রোববার প্রভাতে সূর্য্য ওঠার মধ্য দিয়ে শুরু হবে ১৪২৬ সালের প্রথম প্রহর।

আরও পড়ুন