রমজান : দোয়া কবুলের মাস

,
প্রকাশিত : ৩০ এপ্রিল, ২০২১     আপডেট : ৭ মাস আগে
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

কানিজ আমেনা : রমজান মাস দোয়া কবুলের মাস। আর দোয়া তো কমবেশি সব মুসলমানরাই করে থাকেন। দোয়া করার সময় শুরুতে কি বলবেন মাঝে কি বলবেন আর শেষ করবেনই বা কিভাবে তা একান্তই যার যার বিষয় হলেও অন্যান্য কাজ যেভাবে স্টেপ বাই স্টেপ করেন সেভাবে দোয়াতেও কিছু বিষয় ধারাবাহিকভাবে মেইনটেইন করলে দোয়াটা সর্বাঙ্গীন সুন্দর হয় ও কবুল হওয়ার সম্ভাবনাও বেড়ে যায়।

অবশ্য সাজিয়ে গুছিয়ে সুন্দরভাবে বলতে না পারলেও আল্লাহ তায়ালা তার বান্দার মনের খবর তো জানেন ও দোয়ার ভাষা ঠিকই বুঝে নেন। আমার ক্ষুদ্র জ্ঞান থেকে যেসব পয়েন্টস মনে হলো তাই তুলে ধরার চেষ্টা করলাম-

১) দোয়ার শুরুতে যার কাছে দোয়া করছেন তার প্রশংসা করা। আগেকার দিনে রাজা বাদশাহর দরবারে তাদের প্রজারা কোন আর্জি পেশ করতে হলেও প্রথমে কুর্নিশ করে হে রাজাধিরাজ, শাহানশাহ, জাঁহাপনা, হেনতেন নানান শব্দ ব্যবহার করত যার অধিকাংশই ছিল শিরক মিশ্রিত। নিজেদেরকে বাদশাহর বান্দা বলে পরিচয় দিত। তো আপনি বিশ্বজাহানের প্রভুর কাছে কিছু চাইবেন। তার প্রশংসা না করে শুরুতেই নিজের দাবী দাওয়া পেশ করা দোয়ার আদব বা সৌন্দর্যের কিছুটা পরিপন্থী দেখায়। আর এমনিতেও মহান আল্লাহর হামদ বা প্রশংসা করা তাসবীহ পাঠ করা তো সব সময়ই উচিত। তার ৯৯ নামের অধিকাংশ মুখস্থ করে নিতে পারলে এই কাজটা সহজ হয়ে যায়।
২) আল্লাহ আপনাকে জীবনে আজ পর্যন্ত যা কিছু দিয়েছেন তার জন্য কৃতজ্ঞতা বা শোকরিয়া আদায় করা। আল্লাহ বলেছেন যারা শোকরিয়া আদায় করে তিনি তাদেরকে আরো বেশি করে দেন।
৩) বিগত দিনগুলোর গুনাহের জন্য ক্ষমা চাওয়া।
৪) দুনিয়া ও আখেরাত উভয় জাহানের কল্যাণের জন্য দোয়া করা। এক্ষেত্রে রাব্বানা আতিনা সহ আরবি যে দোয়াগুলো আপনি জানেন তা করতে পারেন।
৫) এবার বিশেষ কি চান তা বলার পালা। তবে বর্তমান সিচুয়েশনে আমি মনে করি অন্য কিছু চাওয়ার আগে সবচেয়ে প্রথমে এই করোনা মহামারী থেকে সুরক্ষিত থাকার দোয়াটাই করা উচিত। নিজের জন্য ও সবার জন্য। বেঁচে থাকলে সবই পাওয়ার সম্ভাবনা থাকবে। যতক্ষণ শ্বাস ততক্ষণ আশ (আশা)। মরে গেলে শ্বাসই যদি একজন মানুষ নিতে না পারে তো বাড়ি গাড়ি আর অন্য সবকিছু চেয়ে কি হবে? তাই আগে সুস্থভাবে বাঁচার শ্বাস নিতে পারার দোয়া করতে হবে। যারা অলরেডি অসুস্থ, যারা হাসপাতালে আছেন, যারা ইতিমধ্যে পরপারে চলে গেছেন সবার জন্য দোয়া করবেন।
৬) বিশেষ কি চাচ্ছেন এবার সেটা বলুন মন খুলে! তাড়াহুড়া না করে সময় নিয়ে নিজের ভাষায় আবেগ দিয়ে বলুন। বলার সময় চোখের অশ্রু ঝরলে কবুল হবার সম্ভাবনা বেড়ে যায়।
৭) সবশেষে অন্যদের জন্যেও দোয়া করুন। অনেক সময় অনেকেই আমাদের কাছে দোয়া চায়। দোয়া করার সময় আমাদের মনে থাকে না। অন্যের জন্য দোয়া করলে দোয়াতে অন্যের জন্য যা বলবেন সেটা নিজের জন্য পাওয়ার সম্ভাবনাও বেড়ে যায়। তাই যার যার নাম মনে পড়ে উপস্থিত মুহূর্তে অমুক ভাই তমুক বোন দোয়া চেয়েছিল তাদের নাম উল্লেখ করে দোয়া করুন। সবার নাম মনে না পড়লেও এভাবে বলতে পারেন, ‘হে আল্লাহ, দোয়া চেয়েছেন অনেকে। এ মুহূর্তে সবার নাম মনে আসছে না। যারাই দোয়া চেয়েছেন তাদেরকে ক্ষমা করে দাও, তাদের কারো কোন বিপদ পেরেশানি সমস্যা থাকলে তা দূর করে দাও, তাদের মনের নেক আশা পূরণ করে দাও’।
আল্লাহ তায়ালা আমাদের সবাইকে সুন্দরভাবে দোয়া করার তৌফিক দান করুন। সেই সাথে দোয়া কবুলের তৌফিক দান করুন। আমিন।


  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

আরও পড়ুন

সাহিত্য সংসদ সমৃদ্ধ ও আলোকিত মানুষ গড়ার লক্ষ্যে কাজ করছে প্রফেসর ড. শিবলী

        লেখক-পাঠক-প্রকাশকদের মিলনমেলা দেশের প্রাচীন সাহিত্য...

দক্ষিণ সুরমা সাহিত্য পরিষদের সাহিত্য আড্ডা অনুষ্ঠিত

14       ভাষা আন্দোলনের মাসে ভাষা শহিদের...

খেলাফত মজলিসের শোক

        সিলেট পৌরসভার সাবেক চেয়ারম্যান আ...

সিলেটে ডা. বিকর্ণ কুমার ঘোষের সাথে বিসিএস সিলেট জেলা নেতৃবৃন্দের সাক্ষাত

        বাংলাদেশ হাইটেক পার্ক কর্তৃপক্ষের (বিএইচটিপিএ)...