যেকোনো ধর্মীয় উৎসবে যার স্মরণে বাঘের সড়কের আকাশ কাঁদে

,
প্রকাশিত : ২১ নভেম্বর, ২০২০     আপডেট : ১ বছর আগে

সম্রাট তারেক
লেখক কবি ও ইঞ্জিনিয়ার

আজ জামিয়া মোহাম্মদীয়া হাফিজিয়া দারুল হাদীস লাতু মাদ্রাসার এনামী জলসা।  জলসা ঈদ সহ যেকোনো ধর্মীয় উৎসবে যার শূন্যতা এলাকাবাসীকে কাতর করে তিনি
হযরত মাওলানা রহিমুদ্দীন( রহঃ)।  এই মাদ্রাসার
মুহতামিম হিসেবে পবিত্র দায়িত্ব পালন করেছেন দীর্ঘ ২৬ বছর।

পৃথিবীতে খুব অল্প মানুষ আছেন যারা অন্যের সুখ বুঝতে পারেন। দুঃখ বুঝতে পারা লোকের পরিমাণ আরো অল্প। ইংরেজি সাহিত্যের বিখ্যাত ঔপন্যাসিক জেন অস্টিনের একটা কথা আছে –
” One half of the world can not understand the
pleasures of the other ”

বাঘের সড়ক মাঠির ভাগ্য এখানে মাওলানা রহিমুদ্দীন ক্বাসিমী( রহঃ)এর জন্ম। আমার কাছে একজন প্রকৃত বিখ্যাত মানুষের সংজ্ঞা  হচ্ছে যিনি নিজ জন্মস্থানে বিখ্যাত।  কয়েক মাস আগে তাঁর শোকসভার অনুষ্ঠানে মূল প্রবন্ধ পাঠ করতে গিয়ে,
হাজারো লোকের উপস্থিতি আমাকে যতোটা মুগ্ধ করেছে
তারচেয়ে অনেকগুণ বেশি আপ্লুত হয়েছি পরদিন সকালে। এক রিকশা ড্রাইভারের আহাজারি কন্ঠে।

তাঁর কন্ঠে শোক কারণ দুঃখ শোনার এক মানুষ সে হারিয়েছে । এক বটবৃক্ষ সে হারিয়েছে যার উদারতার ডাল ছুঁয়ে যায় আকাশ।  সকলধর্ম  সকলশ্রেণির মানুষ তার জন্য কেঁদেছে।

আমাদের প্রত্যেকের উচিত তাঁর আদর্শে অনুপ্রাণিত হয়ে সকলধর্ম সকল মতের মানুষের কষ্টের কারণ না হয়ে,
আপন আদর্শে উজ্জ্বল থাকা।


আরও পড়ুন