যুগের সাথে তাল মিলিয়ে সিলেট মিডিয়া এগিয়ে চলেছে ——আবুল মাল আবদুল মুহিত

,
প্রকাশিত : ২২ জুন, ২০১৯     আপডেট : ১ বছর আগে
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

যুগের সাথে তাল মিলিয়ে সিলেট মিডিয়া এগিয়ে চলেছে। দুই দশক অনেক ঘাত প্রতিঘাত মোকাবেলা করে সিলেট মিডিয়া তাদের সৃজনশীল কর্মকান্ডের মাধ্যমে নিজেকে টিকিয়ে রাখতে সক্ষম হয়েছে। এখন মিডিয়ার যুগ। মিডিয়ার কল্যাণেই দেশ ও জাতি অনেক কিছু জানতে পারে, বুঝতে পারে। মিডিয়াকে অস্বীকার করার কোন সুযোগ নেই । সিলেট মিডিয়া তাদের কঠোর মনোবল, দক্ষতার দ্বারা দীর্ঘ ২০ বছর ধরে তাদের রুচিশীলতার প্রমান রাখতে পেরেছে। আমি সিলেট মিডিয়া কার্যক্রমে সন্তোস প্রকাশ করছি । সিলেট মিডিয়াকে আমি ২০ বছর থেকে জানি । বিশেষ করে আহমেদ বকুল তার কর্মকান্ডের জন্য মানুষের কাছে দীর্ঘদিন বেঁচে থাকবে। সিলেট মিডিয়া এভাবেই তাদের লক্ষ্যে একদিন পৌঁছে যাবে এটা আমি বিশ্বাস করি। শুক্রবার সন্ধায় জেলা পরিষদ মিলনায়তনে সিলেট মিডিয়ার দুই দশক পূর্তি অনুষ্ঠানে সংবর্ধিত অতিথি হিসেবে সাবেক সফল মন্ত্রী জনাব আবুল মাল আবদুল মুহিত তাকে প্রদত্ত সংবর্ধনার প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করতে গিয়ে এ কথা বলেন।’লেখক মুহিত ও তাঁর সৃষ্টি কর্ম’নিয়ে নাতিদীর্ঘ আলোচনা করেন মদন মোহন কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ ডক্টর আবুল ফতেহ ফাত্তাহ। বিশেষ অতিথি হিসেবে ‘মুহিতের জীবন কর্ম, নিয়ে বক্তব্য রাখেন সাবেক সংরক্ষিত আসনের সংসদ সদস্য আমাতুল কিবরিয়া কেয়া চৌধুরী। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সিলেট টুডে সম্পাদক ও প্রকাশক বকসী ইকবাল,বক্তব্য রাখেন বালাগঞ্জ সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ লিয়াকত শাহ ফরিদী, কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার মোঃ বদরুল ইসলাম শোয়েব।
সিলেট মিডিয়ার সভাপতি আহমেদ বকুলের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন সৈয়দ সাইমুম আনজুম ইভান, আয়েশা রুনা।
সংবর্ধিত অতিথি আবুল মাল আবদুল মুহিত কে সিলেট মিডিয়ার পক্ষ থেকে ক্রেস্ট, মানপত্র,বিশেষভাবে তৈরি জুটের ব্যাগ, উত্তরীয় এবং বই উপহার প্রদান করা হয়। ফুলের তোড়া দিয়ে বরণ করে মিডিয়ার সভাপতি আহমেদ বকুল।
বর্ণাঢ্য এই আয়োজনের সমাজ ও রাষ্টীয় কাজে প্রশংসনীয় ভূমিকার জন্য সিলেট মিডিয়ার পক্ষ থেকে জনাব আবুল মাল আবদুল মুহিত ২০ জন গুণী ব্যক্তির হাতে সম্মাননা পদক তুলে দেন। পদকপ্রাপ্তরা হলেন-
জাতীয় অধ্যাপক ডাক্তার শাহেলা খাতুন, সফল নারী উদ্যোক্তা ফরিদা আলম, নাগরী লিপির গবেষক মোস্তফা সেলিম, হস্তশিল্পে ইফফাত শারমিন মজুমদার, চিকিৎসা সেবায় ডাক্তার জাকারিয়া হোসাইন, ব্যাংকিং সেবায় ইশতিয়াক আহমদ চৌধুরী, বঙ্গবন্ধু হত্যার প্রথম প্রতিবাদকারী কিশোর মুকির হোসেন চৌধুরী, শিক্ষা ও সফল সংগঠক হিসেবে চৌধুরী আতাউর রহমান আজাদ, শিক্ষা ও সমাজ সেবায় মোঃ বদরুল ইসলাম শোয়েব,সফল নারী উদ্যোক্তা মিনারা বেগম, সফল নারী উদ্যোক্তা গাজী লাইলী আক্তার স্বপ্না, শিক্ষায় দেওয়ান সামিয়া চৌধুরী,সফল শিক্ষক হিসেবে অধ্যক্ষ অরুন চন্দ্র দাস, সফল সংগঠক হাবিব আহসান বাবলু, সমাজসেবায় মো: আব্দুল আহাদ, নারী উদ্যোক্তা মিতালী দাস, শিক্ষায় মনজুর আহমদ চৌধুরী প্রমূখ। সাংস্কৃতিক আয়োজনে মনোজ্ঞ নৃত্য পরিবেশন করে বিপুল শর্মার দল। সংগীত পরিবেশন করেন শামীম আহমদ, আয়েশা রুনা দেওয়ান সামিনা চৌধুরী, মাহমুদা আক্তার প্রমুখ। বিকেল সাড়ে চারটা থেকে শুরু হওয়ায় অনুষ্ঠানটি শেষ হয় রাত সাড়ে আটটায় । অনুষ্ঠান শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত সাবেক অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত অনুষ্ঠান উপভোগ করেন


  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

আরও পড়ুন