যুক্তরাস্ট্রের বিভিন্ন রাজ্যে ঈদ জামাত অনুষ্টিত

প্রকাশিত : ২৫ মে, ২০২০     আপডেট : ২ মাস আগে

এমদাদ চৌধুরী দীপু(২৪মে,২০২০ইং নিউইয়র্ক)
যুক্তরাস্ট্রে কোথাও ঈদ জামাত অনুস্টিত হবেনা এমন খবর ছিল শনিবার রাত পর্যন্ত। তবে রোববার সকালে খবর আসতে থাকে বিভিন্ন রাজ্যে ঈদ জামাত অনুষ্টিত হয়েছে। মিশিগানে প্রতিটি মসজিদে একাধিক জামাত হয়েছে। নিউইয়র্কে একটি মসজিদে ৭০জন করে ২শ জন,কানেকটিকার একটি মসজিদে ৫০ জন করে একশো মুসল্লীর অংশ নেয়া বিস্ময়ের সৃস্টি করেছে।
শুক্রবার প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প হঠাৎ করে সব ধর্মীয় প্রতিষ্টান উম্মূক্ত করার ঘোষনা দেন। গত বুধবার নিউইয়র্ক এর গভর্নর ধর্মীয় আনুষ্টানিকতায় ১০ জন মানুষের উপস্থিতিকে অনুমোদন দেন। তবে তার অনুমোদন ছিল মরদেহ সমাহিত করার আনুষ্টানিকতার জন্য। নিউইয়র্ক গভর্নর কোমোর ১০জন অনুমোদনের সূত্র ধরে বিভিন্ন মসজিদ ১০জনের উপস্থিতিতে ভার্চুয়াল ঈদ জামাতের ঘোষনা দেয়। অধিকাংশ মসজিদ ঈদ জামাত থেকে বিরত থাকে। এদিকে সবাইকে অবাক করে মিশিগান অঙ্গরাজ্যে প্রতিটি মসজিদ একাধিক ঈদ জামাতের আয়োজন করে। মাস্ক,গ্লাবস,আর নিজ নিজ জায়নামাজ নিয়ে শত শত মুসল্লী অংশ নেন ঈদ জামাতে। নিউইয়র্ক এর কুইন্স বুরোতে উডসাইড বায়তুল জান্নাহ মসজিদে তিন দফায় ৭০জনের উপস্তিতিতে ৩টি জামাত অনুস্টিত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। অঙ্গরাজ্য কানেকটিকায় ৫০জন করে দুটি জামাতে অংশ নিয়েছেন একশো মুসল্লী। এই ঈদ জামাত অনুষ্টিত হয় ম্যানচেস্টার বায়তুল মামুর মসজিদে।
এদিকে বিভিন্ন মসজিদে ৮/১০ জনের উপস্থিতিতে ভার্চুয়াল ঈদ জামাতের খবর পাওয়া গেছে। এই তালিকায় রয়েছে জামাইকা মুসলিম সেন্টার,ম্যানহাটনের মদীনা মসজিদ,আব্দুর রহমান মসজিদসহ যুক্তরাস্ট্রের বিভিন্ন অঙ্গরাজ্যের অসংখ্য মসজিদ এই নিয়মে ঈদ জামাত আয়োজন করে। খুব অল্পসংখ্যক মানুষ এভাবে নামাজ আদায় করেছেন বাকী হাজার হাজার মুসলিম এক মাস রোজার পর ঈদ আনুষ্টানিকতা সম্পন্ন করেছেন বাসা-বাড়িতে স্ব স্ব গৃহে।
নিউইয়র্কে বাংলাদেশী চিকিৎসকদের সংগঠন এর সভাপতি ডাঃ তৌহিদ শিবলী প্রতি বছর জ্যাকসনহাইটসে নামাজ পড়তেন। এবার বাসায় পড়েছেন,বাইরে পড়ার সুযোগ নেই এবং বাইরে নামাজ পড়া নিরাপদ নয় এই বিবেচনায় তিনি বাসায় ঈদএর নামাজ আদায় করেছেন। এই অবস্থা নিউইয়র্ক বাংলাদেশ প্রেসক্লাবের সভাপতি ডাঃ ওয়াজেদ খানের। তিনি জামাইকা মসজিদে ঈদের নামাজ আদায় করেন প্রতি বছর। এবার ঈদ জামাতের আয়োজন না থাকায় বাসায় নামাজ আদায় করেছেন তিনি। নিউইয়র্ক কুইন্স ব্যাুরোর উডসাইড বায়তুল জান্নাহ মসজিদে নামাজ আদায় করেছেন বাংলাদেশ সোসাইটির সাধারন সম্পাদক রুহুল আমীন সিদ্দিকী। প্রথম জামাতে অংশ নেন তিনি। এই মসজিদে তিনটি জামাতে ৭০ জন করে মুসল্লী অংশ নিয়েছেন বলে জানান রুহুল আমীন সিদ্দিকী।
তিনি জানান সামাজিক দুরত্ববজায় রেখে নিরাপত্তাকর্মীদের তত্বাবধানে এসব ঈদ জামাত অনুষ্টিত হয়েছে। এদিকে জালালাবাদ এ্যাসোসিয়েশন অব ইউএসএ এর সভাপতি হেলাল চৌধুরী বসবাস করেন কানেকটিকা অঙ্গরাজ্যে। সেখানে ম্যানেচেস্টার মসজিদে দুটি জামাত অনুষ্টিত হয়েছে বলে তিনি জানান। দুই ঈদ জামাতে ৫০জন করে মুসল্লী অংশ নিয়েছেন বলে তিনি জানিয়েছেন। তবে হেলাল চৌধুরী নিজে নিরাপত্তা ঝুকি বিবেচনায় নিজ বাসায় ঈদের নামাজ পড়েছেন বলে জানিয়েছেন।
সিলেট চেম্বারের সাবেক পরিচালক লায়েছ উদ্দিন বসবাস করেন মিশিগানে। জানতে চেয়েছিলাম ঈদ জামাতে উপস্থিতি কেমন দেখেছেন। তিনি বলেন নিজে একটি মসজিদে গিয়ে ফিরে আসেন। কারন সামাজিক দুরত্বের কারনে বড় মসজিদেও অনেক লম্বা লাইন। মসজিদ পরিবর্তন করে অন্য একটি মসজিদে নামাজ আদায় করেন জামাতের সাথে।
পবিত্র ঈদুল ফিতর যুক্তরাস্ট্রে পালিত হচ্ছে শোকাবহ পরিবেশে। তারাবীর নামাজ হয়নি,মসজিদ ছিল বন্ধ,ব্যবসা প্রতিষ্টান বন্ধ শিশুদের কাপড় কিনা হয়নি।ঈদ শুভেচ্ছা বিনিময়ের পথ বন্ধ। শীর্ষ ধর্মীয় উৎসব শৃংখলিত বৈশ্বিক মহামারীর কাছে।

আরও পড়ুন

কামরানের মাগফেরাত কামনায় জেলা আ.লীগের মিলাদ ও দোয়া মাহফিল

বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির...

সিলেটের মানুষের জীবনযাত্রা লকডাউন

তাসলিমা খানম বীথি: সিলেটের মানুষের...