মানব রচিত ব্যবস্থা প্রতিষ্ঠিত রেখে শান্তি প্রতিষ্ঠা সম্ভব নয়

প্রকাশিত : ০৬ এপ্রিল, ২০১৯     আপডেট : ১ বছর আগে  
  

সিলেট এক্সপ্রেস ডেস্ক: “ইসলামী সমাজ” এর আমীর হযরত সৈয়দ হুমায়ূন কবীর বলেছেন, সমাজ ও রাষ্ট্র পরিচালনায় মানব রচিত ব্যবস্থা প্রতিষ্ঠিত থাকায় বাংলাদেশসহ বিশ্বের প্রতিটি রাষ্ট্রে অর্থ-সম্পদের মোহ ক্ষমতা ও আধিপত্য বিস্তার নিয়ে মানুষে মানুষে দন্দ, সংঘাত ও সংঘর্ষ মূলত আল্লাহ রাব্বুল আলামীনের আযাব-গজব। তিনি বলেন, মানব রচিত ব্যবস্থার মাধ্যমে মানুষ সমাজ ও রাষ্ট্র পরিচালনায় মানুষের সার্বভৌমত্ব, আইন-বিধান ও কর্তৃত্ব মেনে মানুষেরই আইনের আনুগত্য স্বীকার করে মানব রচিত ব্যবস্থার ভিত্তিতে নেতৃত্বদানকারী নেতাদের অধীনে বন্দি হয়ে আছে বিধায় বিশ্বের প্রতিটি রাষ্ট্রে চরম বিশৃংখলা ও অশান্তি বিরাজ করছে এবং তাদের আখীরাতের জীবন মহাক্ষতির সম্মূখীন, এটাই মানব রচিত ব্যবস্থা মেনে চলার ভয়াবহ পরিণতি। বিশ্বের এ নাজুক পরিস্থিতিতে সমাজ ও রাষ্ট্র পরিচালনায় সকল ধর্মের লোকদেরকে যার যার ধর্মীয় অনুশাসন মেনে চলার সুযোগ রেখে আল্লাহর রাসূল হযরত মুহাম্মাদ (সাঃ) এর প্রদর্শিত শান্তিপূর্ণ পদ্ধতিতে ইসলামের আইন-বিধান প্রতিষ্ঠিত হলেই মানুষের জীবনে সুশাসন ও ন্যায় বিচার প্রতিষ্ঠিত হবে, ফলে অশান্তি দূর হয়ে তাদের জীবনে শান্তি প্রতিষ্ঠিত হবে।
জনাব আকিক হাবিবুজ্জামানের সভাপতিত্বে এবং জনাব আজমুল হকের পরিচালনায় বাংলাদেশ ফটো জার্নালিষ্ট এশোশিয়েসন মিলনায়তনে আজ বিকাল ৪ টায় “মানব রচিত ব্যবস্থা মেনে চলার ভয়াবহ পরিণতি এবং এ অবস্থা থেকে উত্তরণের উপায়” শীর্ষক আলোচনা সভায় ইসলামী সমাজের আমীর সৈয়দ হুমায়ূন কবীর বলেন, গণতন্ত্রের অধীনে নির্বাচন কিংবা সশস্ত্র লড়াইয়ের মাধ্যমে রাষ্ট্রীয় শাসন ক্ষমতা লাভ করে ইসলাম প্রতিষ্ঠার প্রচেষ্টা মূলতঃ ইসলাম বিরোধী অপতৎপরতা। তিনি বলেন, এসব ভ্রান্ত পথে আল্লাহ রাব্বুল আলামীনের বিশেষ সাহায্য লাভ হবে না, এবং ইসলামের আইন-বিধানও প্রতিষ্ঠিত হবে না। তিনি আরও বলেন, একমাত্র আল্লাহর সার্বভৌমত্ব, আইন-বিধান ও নিরংকুশ কর্তৃত্বের প্রতি ঈমানের এবং তাঁরই দাসত্ব, তাঁরই আইনের আনুগত্য ও তাঁরই রাসূল হযরত মুহাম্মাদ (সাঃ) এর শর্তহীন অনুসরণ, অনুকরণের দাওয়াতের মাধ্যমে দাওয়াত কবুলকারীদেরকে নিয়ে মানুষের সার্বভৌমত্ব ও মানব রচিত ব্যবস্থার বিরুদ্ধে ঈমানদারগণের সমাজ গঠন আন্দোলনই সমাজ ও রাষ্ট্রে ইসলাম প্রতিষ্ঠার একমাত্র পথ, এটাই সমাজ ও রাষ্ট্রে ইসলাম প্রতিষ্ঠার আল্লাহর নির্দেশিত ও তাঁরই রাসূর হযরত মুহাম্মাদ (সাঃ) প্রদর্শিত একমাত্র পদ্ধতি। এ পদ্ধতিতেই ইসলামী সমাজ ইসলাম প্রতিষ্ঠার আন্তরিক প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। তাই তিনি মানব রচিত ব্যবস্থা মেনে চলার ভয়াবহ পরিণতি থেকে রক্ষা পেয়ে সার্বিক কল্যাণ লাভের লক্ষ্যে দল-মত নির্বিশেষে সকলকে আল্লাহর রাসূল হযরত মুহাম্মাদ (সাঃ) এর প্রদর্শিত শান্তিপূর্ন পদ্ধতিতে ‘ইসলামী সমাজ’ পরিচালিত ইসলাম প্রতিষ্ঠার প্রচেষ্ঠায় শামিল হওয়ার আহ্বাণ জানান। আরো বক্তব্য রাখেন মো. ইসমাঈল দাড়ীয়া, সাঈদুজ্জামান খান, সাদিকুজ্জামান, মো. সোহেল, বিলাল হোসেন, গুলজার আহমেদ, সাইফুল ইসলাম, মাও. নুরুদ্দীন, আসাদুজ্জামান বুলবুল, ইউসুফ আলী, মুহা. ইয়াছিন, আবু জাফর, মো. ইকবাল, সোলাইমান কবীর প্রমূখ।

আরও পড়ুন



পুণ্যভূমি সিলেটের মায়া কেউ ত্যাগ করতে পারেন না: কামরান

সিলেট এক্সপ্রেস ডেস্ক: বাংলাদেশ আওয়ামী...

সিলেটে ফিরছেন অধ্যাপক মুহম্মদ জাফর ইকবাল

সিলেট এক্সপ্রেস ডেস্ক: শাহজালাল বিজ্ঞান...

১০ প্রার্থীর ৬ জন মামলার আসামী

সিলেট এক্সপ্রেস ডেস্ক: সিলেট-৩ আসনের...

রেইন টেরেস রেষ্টুরেন্টের উদ্বোধন

সিলেট এক্সপ্রেস ডেস্ক : সিলেট...