মাইকেল মধুসুদন দত্তের ১৯৫তম জন্মজয়ন্তী আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত

,
প্রকাশিত : ২৬ জানুয়ারি, ২০১৯     আপডেট : ৩ বছর আগে
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সিলেট এক্সপ্রেস ডেস্ক: বাংলাদেশ মানবাধিকার সাংস্কৃতিক সোসাইটি’র উদ্যোগে আজ শুক্রবার সন্ধ্যায় তোপখানা রোডস্থ শিশু কল্যাণ পরিষদ মিলনায়তনে মহাকবি মাইকেল মধুসুদন দত্তের ১৯৩তম জন্মজয়ন্তী উপলক্ষে মাইকেল মধুসুদন দত্তের কর্মময় জীবন শীর্ষক আলোচনা সভা, কবিতা পাঠ, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও গুণীজন সংবর্ধনা অনুষ্ঠিত হয়।

সভায় সভাপতিত্ব করেন সংগঠনের উপদেষ্টা, বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোটের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক অরুন সরকার রানা। প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ সুপ্রীম কোর্ট আপীল বিভাগ চেয়ারম্যান (তদন্ত কমিশন) বিচারপতি শামসুল হুদা। বক্তব্য রাখেন সাবেক সংস্কৃতি ও তথ্য প্রতিমন্ত্রী সৈয়দ দিদার বখত, বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোটের চলচ্চিত্র বিষয়ক সম্পাদিকা চিত্রনায়িকা শাহনুর, বঙ্গবন্ধু গবেষণা পরিষদের সভাপতি লায়ন গনি মিয়া বাবুল, এইচ.এম ইব্রাহিম ভূইয়া, এম.এ মান্নান মনির, রাজিয়া সুলতানা বৃষ্টি, মো. হায়দার আলী, মাজহারুল ইসলাম খোকন, মো. মেহেদী হাসান, লায়ন জেবিন সুলতানা কান্তা।

সভায় মাইকেল মধুসুদন দত্তের কর্মময় জীবন তুলে ধরে বক্তারা বক্তব্য রাখেন। পরে গুণীজনদের মাইকেল মধুসুদন পদক প্রদান করেন চিত্রনায়িকা শাহনুর সহ সমাজের বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গদের।

প্রধান অতিথি বিচারপতি শামসুল হুদা বলেছেন, মাইকেল মধুসুদন দত্ত হচ্ছে আমাদের বাঙালির অহংকার। মাইকেল মধুসুদনের স্মৃতি বিজড়িত স্থানটি বর্তমান সরকার ব্যাপক উন্নয়ন সাধন করেছে। এই সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা হচ্ছেন সংস্কৃতি বান্ধব সরকার। তিনি সাংস্কৃতিক অঙ্গণের উন্নয়নের জন্যে ব্যাপক কাজ কর্ম করে যাচ্ছেন।

সভাপতির বক্তব্যে অরুন সরকার রানা বলেছেন, বাংলাদেশের সাহিত্যে মাইকেল মধুসুদন দত্তের অবদান অপরিসীম। তার সাহিত্যকর্মী বাঙালি জাতি চিরদিন শ্রদ্ধার সাথে স্মরণ করবেন। জননেত্রী শেখ হাসিনা মাইকেল মধুসুদনের স্মৃতি বিজড়িত স্থানটিকে সংরক্ষণের জন্য সংশ্লিস্টদেরকে নির্দেশ দিয়েছেন এবং সেই মোতাবেক কাজও চলছে। তিনি আরও বলেন, জননেত্রী শেখ হাসিনা শিল্পী, কবি, সাহিত্যিকরা সমাদর করেন এবং তাদের প্রাপ্য সম্মান দিতে জানেন। তিনি ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, আজ কিছু কিছু পত্রিকায় বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোটের নিবেদিতপ্রাণ সাংস্কৃতিক কর্মী যারা দুঃসময়ে-দুর্দিনে বঙ্গবন্ধুর কথা বলেছেন তাদের সম্পর্কে বিভ্রান্তিকর সংবাদ পরিবেশন করছেন। অরুনা বিশ^াস, নতুন, শমী কায়সার, রোকেয়া প্রাচী, তারিন, শাহনুর সহ অনেক সংস্কৃতি কর্মী বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোটের প্রতিষ্ঠাকালীন কর্মী হিসেবে আলমগীর কুমকুমের নেতৃত্বে দুঃসময়ে-দুর্দিনে কাজ করেছেন।

 


  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

আরও পড়ুন

মোমিন মেহেদীর জন্মদিনে সেভ দ্য রোডের শুভেচ্ছায়োজন

        সেভ দ্য রোড-এর প্রতিষ্ঠাতা ও...

বাংলাদেশ ব্যাংকের মহাব্যবস্থাপক পদে পদোন্নতি পেলেন শান্তনু কুমার রায়

        বাংলাদেশ ব্যাংকের উপমহাব্যবস্থাপক শান্তনু কুমার...

২৫ জুয়াড়িকে ধরলো মহানগর ডিবি

         সিলেট মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের...