মধ্যম আয়ের দেশে উত্তরণের পর পরিস্থিতি মোকাবেলায় এখন থেকে প্রস্তুতি গ্রহণ করতে হবে

প্রকাশিত : ১৮ অক্টোবর, ২০১৮     আপডেট : ১ বছর আগে  
  

সিলেট এক্সপ্রেস ডেস্ক: বাংলাদেশ ব্যাংক প্রশিক্ষণ একাডেমি, ঢাকা ও বাংলাদেশ ব্যাংক, সিলেট এর যৌথ উদ্যোগে ‘‘কারেন্ট ইস্যুজ এন্ড চ্যালেঞ্জেস ইন ব্যাংকিং’’ শীর্ষক সেমিনার ১৮ অক্টোবর ২০১৮ বৃহস্পতিবার বাংলাদেশ ব্যাংকের প্রশিক্ষণ হলে অনুষ্ঠিত হয়। বাংলাদেশ ব্যাংকের মহাব্যবস্থাপক মোঃ সাজ্জাদ হোসেন এর সভাপতিত্বে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসাবে সেমিনারের উদ্বোধন করেন নির্বাহী পরিচালক সৈয়দ তারিকুজ্জামান। স্বাগত বক্তব্য রাখেন সেমিনারের মূখ্য আলোচক বাংলাদেশ ব্যাংক প্রশিক্ষণ একাডেমির নির্বাহী পরিচালক লায়লা বিলকিস আরা। সিলেট অঞ্চলে কার্যরত সরকারী ও বেসরকারী বাণিজ্যিক ব্যাংকসমুহের আঞ্চলিক ও শাখা প্রধানদের উপস্থিতিতে অনুষ্ঠিত এ সেমিনারে ‘কারেন্ট ইস্যুজ এন্ড চ্যালেঞ্জেস ইন ব্যাংকিং’ শীর্ষক বিষয়ে বাংলাদেশ ব্যাংক প্রশিক্ষণ একাডেমির নির্বাহী পরিচালক লাইলা বিলকিস আরা, ‘কারেন্ট ইস্যুজ এন্ড চ্যালেঞ্জেস ইন ফরেন এক্সচেঞ্জ’ শীর্ষক বিষয়ে বাংলাদেশ ব্যাংক সিলেট অফিসের নির্বাহী পরিচালক সৈয়দ তারিকুজ্জামান ও ‘মানি লন্ডরিং প্রিভেনশন ইস্যুজ এন্ড ট্রেড বেস মানি’ শীর্ষক বিষয়ে বাংলাদেশ ব্যাংক সিলেট অফিসের মহাব্যবস্থাপক মোঃ সাজ্জাদ হোসেন বক্তব্য উপস্থাপন করেন।
‘কারেন্ট ইস্যুজ এন্ড চ্যালেঞ্জেস ইন ব্যাংকিং’ শীর্ষক বিষয়ে বাংলাদেশ ব্যাংক প্রশিক্ষণ একাডেমির নির্বাহী পরিচালক লাইলা বিলকিস আরা বলেন সরকার দেশকে ২০২১ সালে মধ্যম আয়ের এবং ২০৪১ সালে উন্নত দেশের কাতারে উন্নিত করার লক্ষ নিয়ে কাজ করে যাচ্ছে। ২০২১ সালে মধ্যম আয়ের দেশের সূচকে পদার্পনের পর ২০২৪ পর্যন্ত সূচকের ধারাবাহিকতা বজায় রাখতে হবে। ২০২৭ সাল থেকে মধ্যম আয়ের স্থায়ী দেশ হিসাবে বাংলাদেশকে কোটাসহ দেয়া সকল সুবিধা তুলে নেয়া হবে। সরকারের লক্ষ্য বাস্তবায়নে ব্যাংকিং সেক্টর শুরু থেকে নিষ্টার সাথে কাজ করে যাচ্ছে। এজন্য সে সময়ের পরিস্থিতি মোকাবেলায় আমাদেরকে এখন থেকে প্রস্তুতি নিতে হবে। আর্থিক খাত পরিচালনায় ব্যাংকারগণই মূখ্য ভূমিকা পালন করছেন উল্লেখ করে তিনি বলেন আমাদের স্ব স্ব ক্ষেত্রে দূর্ণীতি প্রতিরোধ ও সুশাসন প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে পূর্ব থেকে প্রস্তুতি নিলে যে কোন পরিস্থিতি মোকাবেলা করা সম্ভব হবে। সেমিনারে তিনি বলেন সাসটেনেবল ডেভলপমেন্ট গোল (এসডিজি) ২০১৬-২০৩০ সালের মধ্যে ১৭টি গোল, ১৬৯ টি টার্গেট ও ২৩২টি ইন্ডিকেটরস বাস্তবায়নের মাধ্যমে অর্জিত হবে। নির্বাহী পরিচালক সৈয়দ তারিক্জ্জুামান বলেন ব্যাংকিং সেক্টরে এখন একটি ক্রান্তিকাল অতিক্রম করছে। এ পরিস্থিতি উত্তরনে ব্যাংকারগণকেই এগিয়ে আসতে হবে। তাঁদের কর্মদক্ষতা ও সততার মাধ্যমেই এ সেক্টরের ভাবমুর্তি সংকট দূর করে অর্থনীতিতে গতিশীলতা আনয়ন এবং যো কোন চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা সম্ভব হবে। মহাব্যবস্থাপক মোঃ সাজ্জাদ হোসেন মানিলন্ডারিং প্রতিরোধে ব্যাংকারদের আরো কার্যকর ভূমিকা রাখার আহবান জানান। শাখার সকল কর্মকর্তাদের এ বিষয়ে যথাযথ প্রশিক্ষণ প্রদান এবং গ্রাহকদের লেনদেন নিয়মিত মনিটরিং করার ব্যবস্থা নিতে তিনি শাখা ব্যবস্থাপকদের প্রতি আহবান জানান। বাংলাদেশ ব্যাংকের যুগ্ম পরিচালক মোজতবা রুম্মান চৌধুরীর পরিচালনায় সেমিনারে অগ্রণী ব্যাংক লিমিটেডের মহাব্যবস্থাপক জাকিয়া বেগম, বাংলাদেশ ব্যাংকের উপমহাবস্থাপক মোঃ হারুনুর রশীদ, মোঃ আব্দুল হাছিব, মোঃ দিদারুল ইসলাম, শামীমা নার্গিস, মোঃ কমর উদ্দিন, যুগ্ম পরিচালক মোঃ জাবেদ আহমদ, উপ পরিচালক রতেœশ্বর ভট্টাচার্য্য, জনতা ব্যাংক লিঃ এর ডিজিএম মোঃ আব্দুল ওয়াহিদ, বাংলাদেশ কৃষি ব্যাংকের ডিজিএম চৌধুরী মোঃ শোয়েব রেজা, রূপালী ব্যাংক লিঃ এর এজিএম মোহাম্মদ আশরাফ হোসেন, ইসলামী ব্যাংক বাংলাদেশ লিঃ এর এসভিপি সায়ীদ ইউ মোহম্মদ, উত্তরা ব্যাংক লিঃ এর ডিজিএম মোঃ ইব্রাহিম উদ্দিন, এবি ব্যাংক লিঃ এসভিপি মোঃ আব্দুস সালাম, প্রাইম ব্যাংক লিঃ এর এসইভিপি আবু আশরাফ সিদ্দিকী, ট্রাস্ট ব্যাংক লিঃ এর এসভিপি মসুদ চৌধুরী, পূবালী ব্যাংক লিঃ এর উপ মহাব্যবস্থাপক মশিউর রহমান খান, ঢাকা ব্যাংক লিঃ এর এফভিপি সুমন বণিক, শাহজালাল ইসলামী ব্যাংক লিঃ এর এসএভিপি মোঃ খোরশেদ আলম,মিউচ্যুয়াল ট্রাস্ট ব্যাংকের এসভিপি সৈয়দ গোলাম ফারুক, ইউসিবির আঞ্চলিক প্রধান আমিনুল হক চৌধুরী, এনসিসি ব্যাংকের শাখা প্রধান মোহাম্মদ আলতাফ, দি সিটি ব্যাংক লিঃ এর ভিপি মোঃ হুমায়ুন কবির,আইএফআইসি ব্যাংকের এফএভিপি মোঃ হারুন অর রশিদ, ফাস্ট সিকিউরিটি ইসলামী ব্যাংকের ভিপি শফিকুল ইসলাম, আল আরাফাহ ইসলামী ব্যাংকের এফএভিপি নুরুল আম্বিয়া চৌধুরী, বেসিক ব্যাংক লিঃ এর ব্যবস্থাপক আব্দুল বাছিত মোঃ শোয়েব, সাউথ ইষ্ট ব্যাংকের এসইও মোঃ মামুনুর রশীদ, ওয়ান ব্যাংকের বিএসএম আর,কে,মোস্তাক চৌধুরী, বিডিবিএল এর প্রিন্সিপাল অফিসার মোঃ মিজানুর রহমান খান, স্ট্যান্ডার্ড ব্যাংক লিঃ এর এফএভিপি কামাল আহমদ, ব্যাংক এশিয়ার এফভিপি মাশিরুল বর চৌধুরী, মিডল্যান্ড ব্যাংকের এভিপি আহবাব আহমদ জায়গীরদার, প্রিমিয়ার ব্যাংকের শাখা প্রধান হাবিবুর রহমান, ব্যাংক আল ফালাহ’র শাখা প্রধান কামরান আহমদ,স্যোসাল ব্যাংক লিঃ ভিপি মোঃ ফজলুর রহমান, আইসিবি ইসলামী ব্যাংকের বিওএম কে,এম,এম মুশফিক, মেঘনা ব্যাংক লিঃ এর এসভিপি আব্দুল আহাদ মিয়া, এক্সিম ব্যাংক লিঃ এর এফএভিপি জুনেল হোসেন চৌধুরী, ইষ্টার্ণ ব্যাংকের শাখা প্রধান সাহেদ মাহমুদ, স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড ব্যাংকের শাখা প্রধান গালিব শওকত,যমুনা ব্যাংকের এভিপি সামছুল আলম চৌধুরী, ব্রাক ব্যাংকের শাখা প্রধান আব্দুল হক সরদার, এনআরবিসির এভিপি সাদী উল বারী, ব্যাংক অব সিলোন’র শাখা প্রধান সাদ আহমদ চৌধুরী প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

আরও পড়ুন