ভাইয়ের পাঠানো বোনের গিফট

প্রকাশিত : ২৭ মার্চ, ২০১৮     আপডেট : ২ বছর আগে  
  
তাসলিমা খানম বীথি:
১.যে কোন ভাইয়ের ভালোবাসা, স্নেহ আর আন্তরিকতা আমাকে আবেগাপ্লুত করে, আনন্দিত করে, উচ্ছাসিত করে। কেন জানেন। কারন আমার তো কোন ভাই নেই। ভাই যে বোনের কী অমূল্য ধন। তা শুধু যার ভাই নেই সেই জানে এ কষ্ট কতটুকু যন্ত্রণাদায়ক, কতটুকু গভীর। জন্ম থেকে মৃত্যু পর্যন্ত যে কষ্ট আমাকে তাড়া করবে সেটি হলো একটি ভাইয়ের অভাব।
২.কেমুসাসের বইমেলার প্রথম দিনের কথা। বাসায় যাবার কিছুক্ষণ আগে মেলার কেন্টিনের সামনে দাঁড়িয়ে কথা বলছিলাম কবি ইসতাইন আহমদের সাথে। ঠিক সেই সময় হঠাৎ একজন লোক এসে বলল- আপু আপনার জন্য একটি গিফট আছে। আমার কাছে। লোকটির চেহারা দেখে পরিচিত মনে হচ্ছে না বলে বললাম-আপনাকে ঠিক চিনতে পারছি না। আর কিসের গিফট, কে দিলো, কার নামে? আপনি মনে হয় ভুল করছেন। লোকটি আমার কথা শুনে বলল-আপনি তো বীথি আপু তাই না। হ্যাঁ। তখন লোকটি বলল-জুয়েল ভাই আপনার জন্য একটা গিফট রেখে গিয়েছেন। তাকে বললাম- কোন জুয়েল ভাই? তিনি বললেন-লেখক সাংবাদিক গোলাম সাদত জুয়েল। তিনি বিদেশ যাবার আগে আমার কাছে দিয়ে গেছেন গিফট।
৩. লোকটির কথা শুনে শুধু অবাক হয়নি, আশ্চর্য্য হয়েছি! কারন যিনি আমার জন্য গিফট পাঠিয়েছেন। তাকে ফেইসবুকে পরিচয় থাকলেও সরাসরি দেখা হলেও কখনো কথা হয়। ২০১৮ ফেব্রুয়ারিতে তিনি দেশে এসেছিলেন। প্রথম দেখা হয় তার ‘ব্ল্যাক অ্যান্ড হোয়াইট’গ্রন্থ প্রকাশনায়। পিছনে বসলেও মনে করেছিলাম তিনি আমাকে দেখতে পাননি। কিন্তু না। তার বক্তব্যে আমার কথা বলছিলো। আমি তার গ্রন্থ প্রকাশনা অনুষ্ঠানে উপস্থাপনা করলে খুশি হতেন। তিনি আমেরিকা বাস করলেও আমার ফেইসবুকের মাধ্যমে সিলেটের সাহিত্য অনুষ্ঠানের ছবি দেখতে পান। খুব মিস করেন। ভেবেছিলাম প্রকাশনা শেষ হলে তার সাথে কথা হবে। কিন্তু সেদিনও কথা হয়নি।
৪. কবি আব্দুল মুকিত অপি’র আমন্ত্রনে কেন্দ্রীয় মুসলিম সাহিত্য সংসদের সাহিত্য আসরে সংবর্ধিত অতিথি হয়ে একদিন এসেছিলেন তিনি। কেমুসাসের প্রতি বৃস্পতিবার সাহিত্য আসরের উপস্থাপনা আমাকে করতে হয়। সেদিন সাহিত্য আসরে তার নাম ঘোষণা দেবার পর। মাইকে এসে বক্তব্য ফাঁকে আবারও তিনি আমার কথা বলছিলেন, যে ‘আমার প্রিয় বোন বীথি…। সেদিন খুব অবাক হয়েছিলাম। কারন তার সাথে দেখার হবার পরও কথা না হলেও ভুলে যাননি। অথচ তিনি কত আন্তরিকভাবে আমার লেখার কথা, কাজের কথা, উপস্থাপনার কথা বলছিলেন।
৫.কেন্দ্রীয় মুসলিম সাহিত্য সংসদের বইমেলা দ্বিতীয় দিনে গিফট হাতে পাই। গিফটটি পেয়ে খুব আবেগাপ্লুত হয়েছিলাম। সবশেষে শ্রদ্ধেয় বড় ভাই লেখক সাংবাদিক গোলাম সাদত জুয়েলকে আন্তরিক ধন্যবাদ। প্রবাসী জীবন প্রতিটি দিন সুন্দর আর সফল হোক। আপনার প্রতি রইল অনেক শুভ কামনা।
২৭ ফেব্রুয়ারি ২০১৮

আরও পড়ুন



হক নগর হবে আকর্ষণীয় একটি পর্যটনকেন্দ্র –বিমান ও পর্যটনমন্ত্রী

মুক্তিযুদ্ধে ৫ নম্বর সেক্টরের সদরদপ্তর...

সিলেটে জোড়া খুন: ৩ আসামী গ্রেপ্তার

এসএমপির মোগলাবাজার থানা এলাকার লালমাটিয়ায়...

যেভাবে উন্মোচন হলো জোড়া খুনের রহস্য

দক্ষিণ সুরমার লালমাটিয়ায় ট্রাক থেকে...