ব্যবসায়ী উবেদ চৌধুরী মৃত্যুতে সাবেক মন্ত্রী নাহিদের শোক

প্রকাশিত : ১৬ জুন, ২০২০     আপডেট : ৩ মাস আগে
  • 18
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    18
    Shares

নিজস্ব প্রতিবেদক:করোনা উপসগ নিয়ে মৃত্যুবরণকারীর কবর খনন কাজে অংশ নেয়ায় ৪ দিনমজুরকে ঘরে আটকে রাখার মতো অমানবিক ঘটনার নিস্পত্তি হয়েছে। গোলাপগঞ্জ উপজেলার শেরপুর গ্রামের মরহুম ফৈয়াজ উদ্দিন চৌধুরীর পুত্র তরুন ব্যবসায়ী উবেদ আহমদ চৌধুরী করোনা উপসগ নিয়ে ইন্তেকাল করেন। স্বাস্থ্যবিধি মেনে তার দাফন সম্পন্ন করা হলেও খলাগ্রাম শেরপুর গ্রামের ইসমাইল মেম্বার কবর খনন কাজে অংশগ্রহনকারী দিনমজুরদেরকে ঘরে আটকে রাখে। এমনকি মরহুমের করোনা ভাইরাস পরীক্ষা নেগেটিভ আসা সত্বেও মেম্বার মজুরদের উপর নিযাতন অব্যাহত রাখে। বিষয়টি বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যমে প্রকাশ পেলে সিলেটের পুলিশ সুপার মো. ফরিদ উদ্দিন এর নির্দেশে গোলাপগঞ্জ পুলিশ বিষয়টিতে হস্তক্ষেপ করলে দিনমজুররা রবিবার থেকে কাজে যাবার অনুমতি পায়। ঘটনার মুল হোতা গোলাপগঞ্জ সদর ইউনিয়নের মেম্বার ইসমাইল আলী চেয়ারম্যান হাজী আশফাক আহমদ চৌধুরীর কাছে এসে মরহুমের ভাই বাংলাদেশ ব্যাংকের যুগ্ম পরিচালক জাবেদ আহমদের কাছে টেলিফোনে এ ঘটনার জন্য ক্ষমা প্রাথনা করে ভবিষ্যতে এ ধরনের ঘটনার পুনরাবৃত্তি না হবার অংগীকার করেন।
উল্লেখ্য তরুন ব্যবসায়ী উবেদ আহমদ চৌধুরী ৭জুন শহীদ শামসুদ্দিন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ইন্তেকাল করেন।করোনা উপসগ থাকায় সতকতা হিসেবে মরহুমের পরিবারের পক্ষ থেকে কোয়ান্টাম ফাউন্ডেশনের স্বেচ্ছাসেবকদের তত্ত্বাবধানে নগরীর মানিকপীরের টিলায় লাশের গোসলসহ কাফন পরানো হয়। এমনকি স্বেচ্ছাসেবকরা পিপিই পরে লাশ দাফনও সম্পন্ন করেন। তাঁরা দাফন শেষে কবর খননকারীসহ দাফন কাজে অংশগ্রহণকারীদের জীবানুনাশক স্প্রে করে। এমনকি সতকতা হিসেবে স্বেচ্ছাসেবকরা তাদের ব্যবহৃত পিপিই দাফনস্থলে মাটিচাপা দিয়ে যায়। কিন্তু স্থানীয় ইউপি মেম্বার ইসমাইল সস্তা জনপ্রিয়তা অজনের জন্য লাশ দাফনকারী এম্বুলেন্স শহরে ফেরার পথে পথিবন্ধকতা সৃষ্টি করে।ফলে স্বেচ্ছাসেবক বহনকারী এম্বুলেন্স ফাড়ি পথ দিয়ে শহরে ফিরে। শুধু তাই নয় উক্ত মেম্বার স্থানীয় কয়েকজন যুবককে উত্তেজিত করে কবর খননকারীদের সুরমা নদীতে ফেলে নির্যাতন, তাদের কাপড় চোপড় নদীতে নিক্ষেপেরও অভিযোগ পাওয়া যায়। এমনকি কবর খনন কাজে অংশগ্রহণকারী সফর আলী, সুনাম উদ্দিন, আব্দুস শহীদ, জনৈক ফকিরের ভাইকে কোয়ারেন্টাইনের নামে ৭জুন থেকে তাদের ঘরে আটকে রাখা হয়। পরবর্তীতে ১০জুন মৃতের নমুনা পরীক্ষার ফল নিগেটিভ আসলেও ইসমাইল মেম্বারের নির্দেশে কোয়ারাইনটাইনের নামে তাদেরকে ঘরে আটকে রাখা হয়। তাদের সবার বাড়ি গোলাপগঞ্জের শেরপুর খলাগ্রামে। দিনমজুর এসব লোক কাজ করতে না পেরে দুর্বিষহ দিন পার করছিলেন।
এদিকে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য, সাবেক মন্ত্রী জননেতা নুরুল ইসলাম নাহিদ এম,পি আজ সকালে মরহুম উবেদ আহমদ চৌধুরীর বড়ো ভাই বাংলাদেশ ব্যাংকের যুগ্ম পরিচালক সাংবাদিক জাবেদ আহমদের সাথে ফোনে আলাপ করে তার মৃতু্তে গভীর দু:খ প্রকাশ করে মরহুমের পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানান। তিনি লাশ দাফন পরবর্তী অনাকাঙখিত ঘটনার নিন্দা করে এধরনের ঘটনার যাতে পুনরাবৃত্তি না হয় এ ব্যাপারে সংশ্লিষ্টদেরকে সতর্ক থাকার আহবান জানান।
বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক, প্রতিষ্ঠালগ্ন হতে সাইক্লোন এর সাথে সম্পৃক্ত শফিউল আলম চৌধুরী নাদেল এক বিবৃতিতে সাইক্লোন সভাপতি ব্যাংকার ও সাংবাদিক জাবেদ আহমদ এর ছোট ভাই ব্যবসায়ী উবেদ চৌধুরীর দাফন শেষে এম্বুলেন্স ফিরতে বাঁধাদান ও কবর খননকারীদের নির্যাতনের ঘটনার নিন্দা জানিয়েছেন। তিনি এখন হতে মহামারীতে আক্রান্তদের পরিবহণ ও নিহতদের দাফনকাজে প্রশাসনের পাশাপাশি রাজনৈতিক ও সামাজিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দকে সহায়তা করার আহবান জানান। তিনি বলেন কোন ধরণের হয়রানি বরদাশত করা হবে না।


  • 18
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    18
    Shares

আরও পড়ুন

ওসমান মনিবের সমর্থনে প্যারিসে প্রচারণা সভা

         আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে...

পাজী

         বেলাল মনজু: গাছের ডালে ঝুলেথেকে...

বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকি ও জাতিয় শিশু দিবস উদযাপন

         মুজিববর্ষের ক্ষনগননা শেষে সূর্যোদয়ের সাথে...