বেগম খালেদা জিয়া দীর্ঘ ৯ বছর আন্দোলন করে দেশকে স্বৈরশাসকমুক্ত করেছিলেন।

প্রকাশিত : 29 November, 2019     আপডেট : ২ সপ্তাহ আগে  
  

বদলের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক সুলতান সালাউদ্দিন টুকু বলেছেন, ‘বেগম খালেদা জিয়া দীর্ঘ ৯ বছর আন্দোলন করে দেশকে স্বৈরশাসকমুক্ত করেছিলেন। সেই নেত্রীর আজ মুক্তি হয় না। তার মুক্তির জন্য আমাদেরকে আন্দোলন করতে হয়! শুধু বেগম জিয়াই নয়, আজ সমগ্র দেশ হাসিনার কাছে বন্দি।’

শুক্রবার বিকালে সিলেট নগরীর সোবহানীঘাটস্থ একটি কমিউনিটি সেন্টারের সামনের প্রাঙ্গনে জেলা ও মহানগর যুবদলের কর্মী সমাবেশে প্রধান বক্তার বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

সমাবেশে সুলতান সালাউদ্দিন টুকু বলেন, ‘দেশ ও জাতি আজ ক্রান্তিলগ্ন অতিক্রম করছে। দেশের মানুষ এখন মুক্তি চায়, নিজেদের অধিকার চায়। যে স্বৈরশাসন দেশ ও জাতির ওপর জগদ্দল পাথরের মতো চেপে বসেছে, সেই স্বৈরশাসনকে হটাতে রাজপথে নামতে হবে। এখন আর ঘরে বসে থাকার সময় নেই, সবাইকে ঐক্যবদ্ধভাবে আন্দোলনে নামতে হবে।’

যারা দলের কার্যক্রম বাধাগ্রস্থ করতে চান, তাদের প্রতি হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করে টুকু আরো বলেন, ‘তারেক রহমানের নেতৃত্বের বাইরে গিয়ে কাউকে বিএনপি করার দরকার নেই। বাইরে থেকে খোঁচাখুঁচি করে দলের নেতৃত্বে আসা যাবে না। নেতৃত্বে আসতে হলে নিয়মশৃঙ্খলা মেনে চলতে হবে।’ তারেকের নেতৃত্বেই বর্তমান সরকারের পতন হবে উল্লেখ করে যুবদলের এই কেন্দ্রীয় নেতা বলেন, ‘অন্যায়ের প্রতিবাদ করাতেই লক্ষ কোটি মানুষের প্রিয় নেতা ইলিয়াস আলী নিখোঁজ হন।’

কর্মী সমাবেশে সিলেট মহানগর যুবদলের আহবায়ক নজিবুর রহমান নজিবের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি ছিলেন বিএনপি চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা খন্দকার আব্দুল মুক্তাদির। সমাবেশে স্বাগত বক্তব্য রাখেন জেলা যুবদলের আহবায়ক সিদ্দিকুর রহমান পাপলু।

কর্মী সমাবেশে যুবদলের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক সুলতান সালাউদ্দিন টুকু আরো বলেন, ‘আওয়ামী লীগের সভানেত্রী শেখ হাসিনা এক জনসভায় বলেছিলেন, যারা এরশাদের সাথে নির্বাচনে যাবে, তারা জাতীয় বেঈমান। কিন্তু সেই আওয়ামী লীগই এরশাদের সাথে হাত মিলিয়ে ক্ষমতায় এসেছে। এখন আওয়ামী লীগই জাতীয় বেঈমান।’

সমাবেশে বিএনপি চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা খন্দকার আব্দুল মুক্তাদির বলেন, ‘তৃণমূল নেতারাই সিলেট জেলা ও মহানগর যুবদলের আগামী দিনের নেতৃত্ব নির্ধারণ করবেন। নেতৃত্বে আসতে এখন থেকেই নিজেকে প্রস্তুত করতে হবে, ঐক্যবদ্ধ থাকতে হবে এবং দলের কেন্দ্রীয় সিদ্ধান্তের প্রতি অনুগত থাকতে হবে। যারা আন্দোলন-সংগ্রামে নিজেকে প্রমাণ করতে পারবেন, যারা কেন্দ্রীয় নেতৃত্বের প্রতি অনুগত থাকবেন, শৃঙ্খলা মেনে চলবেন, তারাই নেতৃত্বে আসবেন।’

মহানগর যুবদলের সদস্যসচিব শাহ নেওয়াজ বক্ত চৌধুরী তারেক ও জেলার সদস্যসচিব মকসুদ আহমদের যৌথ পরিচালনায় কর্মী সমাবেশে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন বিএনপির কেন্দ্রীয় নির্বাহী সদস্য ও জেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি আবুল কাহের চৌধুরী শামীম, বিশেষ বক্তার বক্তব্য রাখেন কেন্দ্রীয় যুবদলের সিনিয়র সহসভাপতি মোরতাজুল করিম বাদরু, সিনিয়র যুগ্ম সম্পাদক নুরুল ইসলাম নয়ন, সাংগঠনিক সম্পাদক মামুন হাসান। কর্মী সমাবেশে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন সিলেট মহানগর বিএনপির সভাপতি নাসিম হোসাইন, সিনিয়র সহসভাপতি আব্দুল কাইয়ুম জালালী পংকী, জেলা বিএনপির সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও আহবায়ক কমিটির সদস্য আলী আহমদ, মহানগর বিএনপির ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক শামীম সিদ্দিকী, মহানগর স্বেচ্ছাসেবক দলের আহবায়ক কাউন্সিলর ফরহাদ চৌধুরী শামীম, জেলা বিএনপির আহবায়ক কমিটির সদস্য আব্দুল আহাদ খান জামাল। শুরুতে কোরআন তেলাওয়াত করেন যুবদলের আহবায়ক কমিটির সদস্য কয়েস আহমদ।

সমাবেশে বক্তারা দীর্ঘ প্রায় দুই দশক পর সিলেট যুবদলে আহবায়ক কমিটি গঠন করায় কেন্দ্রীয় যুবদলের নেতাদের ধন্যবাদ জানান। তারা বলেন, ‘সিলেট যুবদল এখন ঐক্যবদ্ধ। সর্বস্তরের নেতাকর্মীদের সতেজ করতে নতুন কমিটি কাজ করছে। সারা সিলেটে যুবদলে এখন নতুন প্রাণের সঞ্চার হয়েছে। দলের ভেতর কিছু আগাছা আছে, সেই আগাছ পরিষ্কার করতে হবে। যারা দিনে বিএনপি করেন আর রাতে আওয়ামী লীগ, তাদেরকে বিতাড়িত করতে হবে।’

আরও পড়ুন



কানাইঘাটে ৮ দিন পর কবর থেকে মামুনের লাশ উত্তোলন

খাসিয়াদের গুলিতে নিহত লক্ষীপ্রসাদ পূর্ব...

সাংবাদিকতায় ৫ ক্যাটাগরিতে পুরস্কার দেবে সিলেট প্রেসক্লাব

সিলেট প্রেসক্লাব সদস্যদের পেশাগত কাজে...

খালিসুর রহমানের মৃত্যুতে সিলেট প্রেসক্লাবের শোক

সিলেট প্রেসক্লাবের প্রাক্তন সদস্য খালিসুর...