বিশেষ চাহিদা সম্পন্ন শিশুদের সমাজের উন্নয়নে কাজে লাগাতে হবে–দানবীর ড. রাগীব আলী

প্রকাশিত : ২০ ফেব্রুয়ারি, ২০২০     আপডেট : ৫ মাস আগে

প্রতিবছরের মত বর্ণাঢ্য আয়োজনের মধ্য দিয়ে প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালন করলো সিলেটের শাহজালাল রাগীব-রাবেয়া প্রতিবন্ধী ইনস্টিটিউট। গতকাল বুধবার এ উপলক্ষে সবুজের সা¤্রাজ্য দেশের প্রাচীনতম চা বাগান মালনীছড়ায় দিনভর নানা কর্মসূচির মধ্য দিয়ে দিনটি পালন করেন ইনস্টিটিউটের শিক্ষক- শিক্ষার্থীরা। এ উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে ইনস্টিটিউটের প্রতিষ্ঠাতা ও রাগীব-রাবেয়া ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান উপমহাদেশের প্রখ্যাত দানবীর ড. রাগীব আলী বলেন, বিশেষ চাহিদাসম্পন্ন শিশুরা আমাদের সমাজেরই অংশ। সঠিক পরিচর্যা ও ভালোবাসা পেলে তাদের সুপ্ত মেধার বিকাশ ঘটতে পারে। তাদের সমাজের জন্য বোঝা না ভেবে, সমাজের উন্নয়নে কিভাবে কাজে লাগানো যায়, সেই বিষয়ে মনযোগী হতে হবে। এক্ষেত্রে শাহজালাল রাগীব-রাবেয়া ইনস্টিটিউট অনন্য ভূমিকা পালন করছে।
মালনীছড়া চা বাগানের টেনিস গ্রাউন্ডে আয়োজিত বনভোজন ও প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন রাগীব-রাবেয়া ইনস্টিটিউট এর ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ হেপী রানী দে। বিশেষ অতিথি ছিলেন রাগীব-রাবেয়া ফাউন্ডেশনের ট্রেজারার ও দৈনিক সিলেটের ডাক এর সম্পাদক আব্দুল হাই, ফাউন্ডেশনের ট্রাস্টি বোর্ডের সদস্য সাদিকা জান্নাত চৌধুরী, লিডিং ইউনিভার্সিটির ট্রেজারার বনমালী ভৌমিক, রাগীব-রাবেয়া ফাউন্ডেশনের সচিব মেজর (অবঃ) শায়েখুল হক চৌধুরী, জালালাবাদ রাগীব-রাবেয়া মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ অধ্যাপক ডাঃ আবেদ হোসেন, রাগীব-রাবেয়া মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক অধ্যাপক ডাঃ মোঃ তারেক আজাদ, রহমানীয়া প্রতিবন্ধী ফাউন্ডেশনের সভাপতি আলতাজ্ব আতাউর রহমান খান শামসু। অনুষ্ঠান উপস্থাপনা করেন ইনস্টিটিউটের শাহনাজ আক্তার তুলি। পরে ইনস্টিটিউটের শিক্ষার্থীরা খেলাধুলা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করে।
অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে ড. রাগীব আলী আরো বলেন, প্রতিবন্ধকতাকে জয় করে নিজেকে তুলে ধরার মতো বিজ্ঞানী ও দার্শনিক পৃথিবীতে অনেক রয়েছেন। শিশুদের বিষয়ে অভিভাবকদেরও একটু মানসিকতার পরিবর্তন হলে বিজ্ঞানী ও দার্শনিক হতে পারে আপনার শিশুও। বিশেষ শিশুটাকে বিকাশের জন্য সুযোগ করে দিলে-আপনার শিশুও সমাজের মূল ধারায় ফিরে আসবে। তারা দেশ ও জাতির উন্নয়নে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতে পারে।
দানবীর ড. রাগীব আলী বলেন, আর অবহেলা নয়, বিশেষ শিশুদের বিকাশে শাহজালাল রাগীব-রাবেয়া ফাউন্ডেশন পাশে রয়েছে। এই ইনস্টিটিউটের উন্নয়নে যা যা করা প্রয়োজন সব করা হবে। দানবীর ড. রাগীব আলী অভিভাবকদের নিয়মিত শিশুদের স্কুলে নিয়ে আসার আহবান জানান।
বিশেষ অতিথির বক্তব্যে রাগীব-রাবেয়া ফাউন্ডেশনের ট্রেজারার ও দৈনিক সিলেটের ডাক এর সম্পাদক আব্দুল হাই বলেন, বিশেষ শিশুরা আমাদের জন্য আল্লাহ পাকের নিদর্শন। এর মাধ্যমে মহান আল্লাহ আমাদের বোঝাতে চেয়েছেন-চাইলে আমি তোমাকেও অনুরূপভাবে সৃষ্টি করতে পারতাম। সুতরাং তোমরা এ থেকে শিক্ষা গ্রহণ করো। এই বাণী থেকে শিক্ষা নিয়ে আমাদের মানসিকতার পরিবর্তন ঘটানোর চেষ্টা চালাতে হবে।
জালালাবাদ রাগীব-রাবেয়া মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর ডাঃ আবেদ হোসেন বলেন, সমাজের অবহেলিতদের জন্য কিছু করার মানসিকতা নিয়ে দানবীর ড. রাগীব আলী বিশেষ শিশুদের জন্য ইনস্টিটিউট গড়ে তুলেছেন। এর একটি মাত্র উদ্দেশ্য শিক্ষা, চিকিৎসা ও প্রযুক্তির বিকাশের মাধ্যমে যেন বিশেষ শিশুরা সমাজের অংশ হিসেবে গণ্য হয়। আমাদের বিশ্বাস দানবীরের এই উদ্যোগ আল্লাহ রাব্বুল আলামিন কবুল করবেন।
লিডিং ইউনিভার্সিটির ট্রেজারার বনমালী ভৌমিক বলেন, বিশেষ শিশুকে নিয়ে হীনমন্যতায় ভোগার দিন এখন আর নেই। একটু সচেতন হলে সেই শিশুটি বাবা- মা ও সমাজের কাজে লাগতে পারে। তিনি বলেন, সমাজ হিতৈষী দানবীর ড. রাগীব আলী সিলেটে বিশেষ শিশুদের শিক্ষাকে প্রাতিষ্ঠানিক রূপ দিয়েছেন। প্রতিবন্ধীদের উন্নয়নে শাহজালাল রাগীব-রাবেয়া প্রতিবন্ধী ইনস্টিটিউট একদিন অনন্য ভূমিকা পালন করবে।

আরও পড়ুন