বিশিষ্ট পার্লামেন্টারিয়ান সুরঞ্জিত সেনগুপ্তের ৩য় মৃত্যুবার্ষিকী আজ

প্রকাশিত : ০৫ ফেব্রুয়ারি, ২০২০     আপডেট : ৮ মাস আগে
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সিলেট ও দিরাইয়ে কর্মসূচি
মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক, বিশিষ্ট পার্লামেন্টারিয়ান, সাবেক মন্ত্রী, সংবিধান প্রণয়ন কমিটির অন্যতম সদস্য, সত্তরের প্রাদেশিক পরিষদের কনিষ্ঠতম সদস্য এবং স্বাধীন দেশের প্রথম সংসদের সদস্য, আওয়ামী লীগের প্রবীণ নেতা সুরঞ্জিত সেনগুপ্তের তৃতীয় মৃত্যুবাষিকী আজ ৫ ফেব্রুয়ারি বুধবার । ২০১৭ সালের এই দিনে তিনি মৃত্যুবরণ করেন। প্রবীণ এই নেতার মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে বিভন্ন স্থানে বিস্তারিত কর্মসূচি গ্রহণ করা হয়েছে।
সুরঞ্জিত সেনগুপ্ত সুনামগঞ্জ জেলার দিরাই উপজেলার আনোয়ারপুর গ্রামে ১৯৪৫ সালের ৫ মে জন্মগ্রহণ করেন। প্রবীণ এ পার্লামেন্টারিয়ান ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতক ও স্নাতকোত্তর ডিগ্রি অর্জন করেন। পরে ঢাকা সেন্ট্রাল ল’ কলেজ থেকে এলএলবি ডিগ্রি সম্পন্ন করে আইন পেশায় নিযুক্ত হন।
সুরঞ্জিত সেনগুপ্ত ছিলেন বর্ণাঢ্য রাজনৈতিক জীবনের অধিকারী। ছাত্রজীবনের প্রথমেই তিনি বামপন্থী আন্দোলনের সঙ্গে জড়িয়ে পড়েন। হাওরাঞ্চলের ‘জাল যার জলা তার’ আন্দোলনে দীর্ঘদিন তিনি নেতৃত্ব দিয়েছিলেন। তিনি সুনামগঞ্জ-২ আসন থেকে স্বাধীনতা-পরবর্তী সময়ে মোট সাতবার সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। এর আগে সত্তরের নির্বাচনেও তিনি প্রাদেশিক পরিষদের সর্বকনিষ্ঠ সদস্য নির্বাচিত হয়েছিলেন।
ছাত্রজীবনে ছাত্র ইউনিয়নের রাজনীতির সঙ্গে যুক্ত সুরঞ্জিত ১৯৭০ সালে আওয়ামী লীগের বিপুল বিজয়ের নির্বাচনে প্রাদেশিক পরিষদে ন্যাপ থেকে জয়ী হয়ে আলোচনার জন্ম দেন। এছাড়া, স্বাধীন দেশের প্রথম সাংসদসহ চার দশকের প্রায় সব সংসদেই নির্বাচিত হয়েছেন তিনি। সর্বশেষ সংসদে তিনি ছিলেন আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির সভাপতি। একাত্তরে তিনি মুক্তিযুদ্ধে অংশ নেন ৫ নম্বর সেক্টরের সাব কমান্ডার হিসেবে। সুরঞ্জিত সেনগুপ্ত ১৯৭৩ সালে স্বাধীন দেশের প্রথম সংসদের সদস্য নির্বাচিত হন ন্যাপ থেকে।
নব্বই দশকে সুরঞ্জিত সেনগুপ্ত আওয়ামী লীগে যোগ দেন। এর আগে তিনি ন্যাশনাল আওয়ামী পার্টি ও একতা পার্টির সঙ্গে যুক্ত ছিলেন। তিনি ২০০৮ সালে আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসার পর রেলমন্ত্রী নিযুক্ত হন। যদিও সহকারীর অর্থ কেলেঙ্কারির ঘটনার পর তিনি পদত্যাগ করেন। তবে প্রধানমন্ত্রী সেই পদত্যাগপত্র গ্রহণ না করে তাকে দফতরবিহীন মন্ত্রী হিসেবে মন্ত্রিপরিষদে রাখেন। এর আগে ১৯৯৬ সালে তিনি প্রধানমন্ত্রীর সংসদবিষয়ক উপদেষ্টা হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। সংসদে সব সময় সরব এ সংসদ সদস্য একজন অভিজ্ঞ সংবিধান বিশেষজ্ঞ হিসেবে সুপরিচিত ছিলেন। প্রবীণ নেতা সুরঞ্জিত সেনগুপ্ত নবম সংসদে পঞ্চদশ সংবিধান সংশোধন কমিটির কো-চেয়ারম্যান ছিলেন।
২০১৭ সালের ৩ ফেব্রুয়ারি ফুসফুসের সমস্যার জন্য রাজধানীর ল্যাবএইড হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছিল সুরঞ্জিত সেনগুপ্তকে। এরপর ৪ ফেব্রুয়ারি শনিবার রাতে শারীরিক অবস্থার অবনতি ঘটায় তাকে প্রথমে করোনারি কেয়ার ইউনিটে (সিসিইউ) নেয়া হয়। পরে রাতেই তাকে লাইফ সাপোর্টে রাখা হয়। ৫ ফেব্রুয়ারি রাতে রাজধানীর ল্যাবএইড হাসপাতালে তিনি শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন।
বিভিন্ন কর্মসূচি গ্রহণ:
সুরঞ্জিত সেনগুপ্তের তৃতীয় মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে সিলেটস্থ দিরাই ছাত্রকল্যাণ পরিষদের উদ্যোগে সিলেট জেলা পরিষদ মিলনায়তনে আজ বুধবার বিকেল ৩টায় এক স্মরণসভার আয়োজন করা হয়েছে। এতে রাজনীতিবিদ, জনপ্রতিনিধি এবং পেশাজীবী নেতৃবৃন্দ বক্তব্য রাখবেন। আয়োজক সংগঠনের পক্ষ থেকে স্মরণসভাকে সফল করার লক্ষ্যে সকল শ্রেণি-পেশার ব্যক্তিবর্গের উপস্থিতি কামনা করা হয়েছে।
দিরাই থেকে আমাদের নিজস্ব সংবাদদাতা জানান, জাতীয় নেতা বিশিষ্ট পার্লামেন্টারিয়ান, সংবিধান প্রণেতা সুরঞ্জিত সেন গুপ্তের তৃতীয় প্রয়াণ দিবস উপলক্ষে দিরাই উপজেলা আওয়ামী লীগ, বিভিন্ন সামাজিক সাংস্কৃতিক সংগঠন ও দিরাই প্রেসক্লাব ব্যাপক কর্মসূচি গ্রহণ করেছে। কর্মসূচির মধ্যে রয়েছে- প্রয়াত নেতার সমাধিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ, শোক র‌্যালি আলোচনা সভা, বিভিন্ন ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানে বিশেষ প্রার্থনা ও কাঙ্গালী ভোজ।


  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

আরও পড়ুন

সাংবাদিকদের কল্যাণে ৫০ হাজার টাকার তহবিল

         সিলেট এক্সপ্রেস ডেস্ক :  সিলেট...

দক্ষিণ সুরমার কদমতলী এলাকায় সিসিক মেয়রের অভিযান

         সিলেটে সরকারি-বেসরকারি হাসপাতালগুলোতে ডেঙ্গু আক্রান্তের...

মাদরাসাছাত্রকে বলাৎকার করে ভিডিও, গ্রেফতার ১

         সিলেটের জকিগঞ্জে মাদরাসা ছাত্রকে বলাৎকার...

জামান মাহবুবের নন্দিনী সাহিত্য সম্মাননা পদক লাভ

         সিলেট এক্সপ্রেস ডেস্ক: আন্তর্জাতিক সাহিত্য...