বিপাশার বিয়েতে তিন লাখেরও বেশি ব্যয় হচ্ছে

,
প্রকাশিত : ২৫ এপ্রিল, ২০১৮     আপডেট : ৩ বছর আগে
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

তাসলিমা খানম বীথি: রায়নগর শিশু পরিবারের নিবাসী বিপাশার বিয়েতে তিন লাখেরও বেশি টাকা ব্যয় হবে। আর এটি কোন সরকারি টাকা নয়। সমাজহিতৈষীরাই ব্যয় করছেন এই টাকা। আগামী শুক্রবার রায়নগরস্থ শিশু পরিবারে এ বিয়ে অনুষ্ঠিত হবে।
মেয়ে বড় হলে প্রতিটি পরিবারে মা বাবা বিয়ে দেবার কথা ভাবেন। বিয়ের জন্য পাত্র খোঁজতে হবে। ভালো একটি পরিবারের হাতে তাকে তুলে দিতে পারাই যেন মা-বাবার পরম আনন্দ। ঠিক তেমনি করে বিপাশার বিয়ে ভাবনায় পড়েন শিশু পরিবারের উপ-তত্ত্বাবধায়ক জয়তি দত্তের। নিজের মেয়ের মতই ভালোবাসেন তাকে। তাই মেয়ের বিয়ে নিয়ে কথা বলেন সিলেটের সমাজসেবা অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক নিবাস রঞ্জনের সঙ্গেও। তার সাথে কথা বলেই বিয়ে দেবার সিন্ধান্ত নিলেন। তার পর থেকে শুরু হয় পাত্র খোঁজা। পাত্র পেয়ে বিয়ে ঠিক করে শুরু করেন বিয়ের দাওয়াত কার্ড এর বিতরন।
বিপাশার বিয়ে নিয়ে সিলেটে এখন শিশু পরিবারের আনন্দ ধুম। সেই বিয়ে নিয়ে প্রশাসনের কর্মকর্তারাও রয়েছেন ব্যস্ত। বিপাশার বিয়েতে অনেকেই দিচ্ছে বিভিন্ন উপহার। সিলেটের রায়নগরের সরকারি বালিকা শিশু পরিবারে এখন বিয়ে নিয়ে চলছে সকল আনন্দের ধুম। বিপাশার বিয়েকে কেন্দ্র করে সব আয়োজন।
বোনের বিয়েতে আনন্দের কোন কমতি নেই শিশু পরিবারে থাকা ছোটবোনদেরও। বিপাশাও নিজের বোনদের মত ভালোবাসে শিশু পরিবারে বেড়ে ওঠা তার ছোটবোনদেরকেও। আগামী শুক্রবার বিপাশার বিয়ে এই আনন্দে ব্যাপক আয়োজন তারাও মেতে ওঠেছে। বিপাশা আক্তার মুন্নি শিশু পরিবারের একজন সদস্য। ২০১৫ সাল থেকে ওই পরিবারে বসবাস শুরু হয় বিপাশার। বিপাশা আক্তার মুন্নি বতর্মানে সরকারি শিশু পরিবার (বালিকা), রায়নগর, সিলেটে তার বসবাস।
নগরীর রায়নগরস্থ সরকারি শিশু পরিবার (বালিকা) এর উপতত্ত্বাবধায়ক জয়তি দত্তের সাথে সিলেট এক্সপ্রেসের পক্ষ থেকে আজ বুধবার দুপুরে এ প্রতিনিধির আলাপ হয়। তিনি তখন মহাজনপট্টিতে বিপাশার বিয়ের কেনাকাটা করছিলেন। বিয়ের আয়োজন করতে পেরে তিনি খুব খুশি। জানালেন, বিপাশার বিয়েতে এগিয়ে এসেছে সমাজের বিভিন্ন স্তরের ব্যক্তিবর্গরা। তার বিয়েতে ব্যয় হচ্ছে প্রায় তিন লাখ টাকা। বিপাশার বিয়েতে কেউ দিচ্ছে ফার্নিচার, সোনা, কেউ আংটি আবার কেউ বিয়ের খাবারের উপহার হিসেবে সফল করে তুলছেন। তবে সমাজসেবা অধিপপ্তরের নিজস্ব কোন তহবিল থেকে কোন ব্যয় হচ্ছে না বলে জানা যায়।
বিপাশার বিয়েতে অতিথিদের উপস্থিতি কামনা করেছেন শিশু পরিবারের উপ-তত্ত্বাবধায়ক জয়তি দত্ত। দাওয়াত কার্ডে লিখেছেন- ‘শুক্রবার সরকারি শিশু পরিবার (বালিকা) রায়নগর নিবাসী বিপাশা আক্তার মুন্নির শুভ বিবাহের দিন ধার্য করা হয়েছে। ওই শুভানুষ্ঠানে আপনার-আপনাদের উপস্থিতি ও দোয়া আন্তরিকভাবে কামনা করি।’


  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

পরবর্তী খবর পড়ুন : যে সব কাজে নেক আমল নষ্ট হয়!

আরও পড়ুন